রিফাত হত্যা: দর্শকদেরও গ্রেপ্তার চান প্রতিমন্ত্রী শাহরিয়ার

ব্যুরো প্রধান, রাজশাহী
| আপডেট : ২৭ জুন ২০১৯, ১৭:২৭ | প্রকাশিত : ২৭ জুন ২০১৯, ১৭:২৪

বরগুনায় প্রকাশ্যে দিবালোকে স্ত্রীর সামনে রিফাত শরীফ নামে এক যুবককে কুপিয়ে হত্যার সময় সেখানে দাঁড়িয়ে থাকা দর্শকদেরও গ্রেপ্তার দাবি করেছেন পররাষ্ট্র প্রতিমন্ত্রী শাহরিয়ার আলম।

বুধবার সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যম ফেসবুকে দেওয়া এক স্ট্যাটাসে এই দাবি জানান তিনি।

প্রতিমন্ত্রী লিখেন, ‘দাঁড়িয়ে দাঁড়িয়ে যারা দেখছিলেন তারা মনে হয় না সাধারণ পথচারী বা ছাত্র। অবশ্যই তাদেরকেও আইনের আওতায় আনতে হবে।’

গতকাল বুধবার সকালে বরগুনা সরকারি কলেজের সামনে দিয়ে যাওয়ার পথে একদল দুর্বৃত্ত হামলা করে রিফাত শরীফের ওপর। হামলা থেকে স্বামীকে বাঁচাতে স্ত্রী দুর্বৃত্তদের বাধা দিলেও বাঁচাতে পারেননি প্রাণপ্রিয় স্বামীকে। স্ত্রী গণনবিদারী চিৎকার আর ছোটাছুটি করলেও কেউ তার স্বামীকে বাঁচাতে এগিয়ে আসেননি। অথচ রিফাতকে দা দিয়ে কুপিয়ে ক্ষতবিক্ষত করার সময় পাশে দাঁড়িয়ে ছিলেন অনেক মানুষ। তাদের অনেকে ঘটনার ভিডিও ধারণ করছেন, অনেকে ছবি তুলছেন। কেউ কেউ মোবাইল ফোনে কথা বলছেন, কেউ বা চেয়ে চেয়ে দেখছেন। আর হামলাকারীরা মনের আক্রোশ মিটিয়ে চলে গেছে, কিন্তু কেউ কিছু বলেনি।

বর্বরোচিত এই হত্যাকাণ্ডের ভিডিও ছড়িয়ে পড়ার পর সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে চলছে নিন্দার ঝড়। ঘটনার সময় প্রত্যক্ষদর্শীদের কেউ এগিয়ে না আসায় তাদের ধিক্কারও জানান ফেসবুক ব্যবহারকারী অনেকে। তাদের মতো পররাষ্ট্র প্রতিমন্ত্রী শাহরিয়ার আলমও নির্মম এই হত্যাকাণ্ডের সময় দাঁড়িয়ে থাকা দর্শকদের নিন্দা জানিয়ে তাদের গ্রেপ্তারের দাবি জানান।

ফেসবুকে দেওয়া স্ট্যাটাসের একটি অংশে প্রতিমন্ত্রী লিখেছেন, ‘দাঁড়িয়ে দাঁড়িয়ে যারা দেখছিলেন তারা মনে হয় না সাধারণ পথচারী বা ছাত্র। অবশ্যই তাদেরকেও আইনের আওতায় আনতে হবে। আমরা নিশ্চিত করবো প্রথমে গ্রেপ্তার তারপর ন্যায়বিচার। এ ব্যাপারে কোনো সন্দেহের অবকাশ নেই।’

গতকাল একই সময়ে রাজশাহীর তানোরে আরেকটি হত্যাকাণ্ডের ঘটনা উল্লেখ করে প্রতিমন্ত্রী লিখেন, গতকাল একই সময়ে রাজশাহীর তানোরে বাজারে আম বিক্রি করতে গিয়ে একইভাবে নিহত হয়েছেন আরও এক তরুণ। প্রকাশ্যে দিবালোকেই তাকে হত্যা করেছে পাশের আর এক দোকানদারের ছেলে।

স্ট্যাটাসে প্রতিমন্ত্রী লেখেন, সব মৃত্যুই আমাকে নাড়া দেয়। তরুণ-তরুণীর মৃত্যু একটু বেশি নাড়া দেয়। শিশুর মৃত্যু আরও বেশি নাড়া দেয়।

শাহরিয়ার আলম আরও লিখেন, আমরা বরগুনার মত সবগুলোর ভিডিও দেখতে পাই না। গতকাল হয়তো এই দুইয়ের বাইরেও মানুষ খুন হয়েছে বা অপমৃত্যু হয়েছে। আমরা সবগুলোর খোঁজ রাখি না। তবে সচেতনতা সামাজিক সমস্যাগুলোকে কমিয়ে আনবে বলে মনে করেন প্রতিমন্ত্রী।

ঢাকাটাইমস/২৭জুন/আরআর/এমআর

সংবাদটি শেয়ার করুন

জাতীয় বিভাগের সর্বাধিক পঠিত

বিশেষ প্রতিবেদন বিজ্ঞান ও তথ্যপ্রযুক্তি বিনোদন খেলাধুলা
  • সর্বশেষ
  • সর্বাধিক পঠিত

শিরোনাম :