করোনা: পর্তুগালে অবৈধ অভিবাসীদের জন্য নতুন আইন

রনি মোহাম্মদ, লিসবন (পর্তুগাল)
 | প্রকাশিত : ২৯ মার্চ ২০২০, ১৬:২৪

করোনাভাইরাসের মতো জাতীয় দুর্যোগে স্থানীয় নাগরিকদের পাশাপাশি পর্তুগালে বসবাসরত অনিয়মিত ও অবৈধ অভিবাসীদের সরকারি জাতীয় স্বাস্থ্য সেবা, স্যোশাল সিকিউরিটি থেকে আর্থিক সহায়তা প্রধানের সিদ্ধান্ত নিয়েছে পর্তুগাল সরকার। পর্তুগালে অবস্থানরত বিভিন্নভাবে আশ্রয় গ্রহণকারীরা এর আওতায় থাকবেন।

উল্লেখ্য, গেল সপ্তাহে পর্তুগালের অভিবাসীদের ২০টি অ্যাসোসিয়েশনসহ পর্তুগালে অবস্থানরত শিক্ষক, চিকিৎসক, ছাত্র, লেখক, নিরাপত্তাকর্মীসহ বিভিন্ন পেশার অভিবাসী মানুষেরা করোনাভাইরাসের মতো জাতীয় দুর্যোগে সব অভিবাসীর সমান অধিকার নিশ্চিতকরণের জন্য সরকারের কাছে লিখিতভাবে দাবি জানান। এর পরিপ্রেক্ষিতে পর্তুগাল সরকারের স্বরাষ্ট্র মন্ত্রী ক্লাউদিয়া ভেলোসো শুক্রবার রাতে এক বিবৃতিতে বলেন, পর্তুগালের অভিবাসী প্রাথীরা অনিয়মিত ও অবৈধ হওয়ায় এমন দুর্যোগ মুহূর্তে সরকারি স্বাস্থ্য সেবাসহ বিভিন্ন সেবা থেকে দূরে থাকতে পারে না। তাদের সরকারি বিভিন্ন সেবার লক্ষ্যে ও অধিকার নিশ্চিতের আদেশ প্রদানের জন্য পর্তুগিজ সরকারের বিশেষ আইন (৬২/২০২০) করা হয়েছে।

এই আইনের ফলে চলতি বছরের ১৮ মার্চ পর্তুগালের বর্তমান জরুরি অবস্থা জারির দিন পর্যন্ত যারা পর্তুগালের ইমিগ্রেশন সেন্টারে ৮৮ ও ৮৯, ৯০ অনুচ্ছেদের অধীনে বৈধ হওয়ার জন্য আবেদন করেছেন সবাই এর আওতাধীন থাকবেন। এছাড়াও সাধারণ নাগরিকদের যাদের বৈধ কাগজের মেয়াদ শেষ হয়ে গেছে তাদের আগামী ৩০ জুন পর্যন্ত সব কাগজের বৈধ মেয়াদ থাকবে বলে নিশ্চিত করেন তিনি।

সেই সঙ্গে করোনাভাইরাসের দুর্যোগকালে পর্তুগাল সরকারের স্বরাষ্ট্র মন্ত্রণালয়ের পক্ষ থেকে ইমিগ্রেশন সার্ভিসকে পাঠানো নির্দেশনায় জানানো হয়, ইমিগ্রেশন সার্ভিসে নিবন্ধনের প্রমাণ হিসেবে যে কাগজ অভিবাসীদের হাতে রয়েছে সেটি বর্তমান পরিস্থিতিতে অন্যান্য স্থানীয় সাধারণ নাগরিকদের মতো সরকারের জাতীয় স্বাস্থ্য সেবা, স্যোশাল সিকিউরিটি থেকে সহায়তা, কাজের কন্ট্রাক্ট সই করা, নতুন ব্যাংক অ্যাকাউন্ট খোলাসহ সব ধরনের সরকারি কাজে নিবন্ধনের জন্য বৈধ কাগজ বলে গণ্য হবে উল্লেখ করেন।

(ঢাকাটাইমস/২৯মার্চ/কেএম)

সংবাদটি শেয়ার করুন

প্রবাসের খবর বিভাগের সর্বাধিক পঠিত

বিশেষ প্রতিবেদন বিজ্ঞান ও তথ্যপ্রযুক্তি বিনোদন খেলাধুলা
  • সর্বশেষ
  • সর্বাধিক পঠিত

শিরোনাম :