ট্রায়ালে সফল হলে বঙ্গভ্যাক্সের এক ডোজই যথেষ্ট

এনামুল হক সাগর, ঢাকাটাইমস
| আপডেট : ২৮ মার্চ ২০২১, ২০:৪৭ | প্রকাশিত : ২৮ মার্চ ২০২১, ২০:২৬

বৈশ্বিক মহামারী করোনাভাইরাসের প্রতিষেধক টিকা উদ্ভাবনের দৌড়ে থাকা দেশীয় প্রতিষ্ঠান গ্লোব বায়োটেক তাদের উদ্ভাবিত টিকা বঙ্গভ্যাক্স ক্লিনিক্যাল ট্রায়ালের অনুমোদনের অপেক্ষায় আছে। ট্রায়ালে সফল হলে মানবশরীরে এই টিকার এক ডোজই যথেষ্ট বলে দাবি করছেন প্রতিষ্ঠানটিন ব্যবস্থাপক ড. মো. মহিউদ্দিন।

তিনি ঢাকা টাইমসকে বলেন, গত বছরের ৮ মার্চ দেশে প্রথম করোনা রোগী শনাক্ত হওয়ার দিনই আমরা বঙ্গ ভ্যাকসিনের প্রজেক্ট হাতে নিই। ২ জুলাই সংবাদ সম্মেলন করে আমরা সবাইকে আমাদের ভ্যাকসিনটি আবিষ্কারের কথা জানাই।

গত বছরের অক্টোবরের ৫ তারিখে একটি গবেষণা করে আমরা জানাই যে, প্রথমিক ভ্যাকসিনটি প্রাণীর শরীরে প্রয়োগ করা হয়েছে। সেখানে আমরা এটি খুবই কার্যকর এবং নিরাপদ দেখতে পেয়েছি।

এরপর থেকেই বঙ্গভ্যাক্স ক্লিনিক্যাল ট্রায়ালের জন্য প্রস্তুত দাবি করে গ্লোব বায়োটেকের ব্যবস্থাপক বলেন, ক্লিনিক্যাল ট্রায়াল মানবদেহে করা হয় এবং সেটার তিনটি ফেইজ আছে। সেটা করার আগে নিয়ম হচ্ছে বাংলাদেশ মেডিকেল রিসার্স কাউন্সিল থেকে অনুমোদন ও বাংলাদেশ ওষুধ প্রশাসন থেকে ক্লিনিক্যাল ট্রায়ালের অনুমোদ নিতে হয়।

গত ১৭ জানুয়ারি বাংলাদেশ মেডিকেল রিসার্স কাউন্সিলে ক্লিনাক্যাল ট্রায়ালের ইথিক্যাল ক্লিয়ারেন্সের জন্য আবেদন করা হয়েছে জানিয়ে তিনি বলেন, তারা গত ১১ ফেব্রুয়ারি আমাদের ১৫ থেকে ১৬টি বিষয়ে তথ্য চেয়েছে। সেগুলো আমরা যথাযথভাবে ফেব্রুয়ারির ১৭ তারিখ বাংলাদেশ মেডিকেল রিসার্স কাউন্সিলে জমা দেই। এখন আমরা যদি ক্লিয়ারেন্সটা পাই পরর্তীতে ক্লিনিক্যাল প্রটোকলটা বাংলাদেশ ওষুধ প্রশাসনের মহাপরিচালকের কাছে যাবে চূড়ান্ত অনুমোদনের জন্য। সে অনুমোদন পেলে ক্লিনিক্যাল শুরু করতে পারবো।

ড. মো. মহিউদ্দিন বলেন, পরবর্তীতে ক্লিনিক্যাল ট্রায়ালের তথ্য-উপাত্ত আমরা ওষুধ প্রশাসনে জমা দিবো তারা যখন চূড়ান্ত অনুমোদন দেবে। তারপরে টিকা বাজারে আনা যাবে। তবে এই প্রসেস শেষ হতে কতোদিন সময় লাগবে সেটি আমাদের জানা নেই। তবে ট্রায়ালের জন্য সবমিলিয়ে ৫ মাসের মতো সময় লাগবে।

বঙ্গভ্যাক্স এক ডোজের আর রিজেনেবল প্রাইজের টিকা হবে জানিয়ে তিনি বলেন, দামের বিষয় নির্ভর করে উৎপাদন ও ওষুধ প্রশাসনের কাছ থেকে যে মূল্য নির্ধারণ করা হবে সেটির ওপর। আমরা আশাবাদী বঙ্গভ্যাক্স যদি বাজারে আসে সেটি বাংলাদেশের মানুষের জন্য নাগালের মধ্যে থাকবে। আর বাহিরে রপ্তানির ক্ষেত্রে দাম বাড়তে পারে।

গ্লোব বায়োটেকের এ ব্যবস্থাপক বলেন, বঙ্গবন্ধুর জন্মশতবার্ষিকী এবং স্বাধীনতার সুবন্তজয়ন্তীতে আমাদের উৎপাদিত ভ্যাকসিনের নাম বঙ্গভ্যাক্স রেখেছি। এটা আমাদের পক্ষ থেকে সেরা উপহার।

সংবাদটি শেয়ার করুন

সাক্ষাৎকার বিভাগের সর্বাধিক পঠিত

বিশেষ প্রতিবেদন বিজ্ঞান ও তথ্যপ্রযুক্তি বিনোদন খেলাধুলা
  • সর্বশেষ
  • সর্বাধিক পঠিত

শিরোনাম :