লকডাউন, কোভিড এবং মাহে রমজান

আবু বকর সিদ্দিক
| আপডেট : ১৩ এপ্রিল ২০২১, ১৪:০৩ | প্রকাশিত : ১৩ এপ্রিল ২০২১, ১৪:০১

আমরা এমন একটা সময় অতিক্রম করছি যখন পুরো পৃথিবী স্থবির অবস্থায় রয়েছে। গত বছর ঠিক এই সময়ে যখন রমজান আসলো তখন ভাবছিলাম সামনে একটা সুন্দর বছর পেতে পারি। কিন্তু বছর ঘুরে আবার রমজান আসলো এখনো সেই আগের মতোই মানুষের মধ্যে ভয়ভীতি এবং চিন্তার রেখা।

বিজ্ঞানীরা নানারকম মন্তব্য করছেন। তবে বেশিরভাগের মতামত করোনা দুনিয়া থেকে অতি সহজেই বিদায় হচ্ছে না৷ আমাদের মতো দেশে এইসব ভবিষ্যৎ বাণী বড়ই কষ্টের কারণ হয়ে যায়।

আমাদের দেশের বেশির ভাগ মানুষই সাধারণ মধ্যবিত্ত। এদের অনেকের পরিবার চলে শুধুমাত্র নিজেদের ইনকাম থেকে৷ অনেকেই চাকরি হারিয়ে দীর্ঘ দিন থেকেই বেকার জীবন যাপন করছেন। আবার অনেকেই নিজেদের সসর্বশেষ সঞ্চয় শেষ করে প্রায় পথে বসা বাকী!

রমজান মাস পুরো মুসলিম উম্মাহের জন্য একটা অতি স্পেশাল একটা মাস৷ রহমত,বরকত এবং মাগফিরাত এর মাস পবিত্র মাহে রমজান। পুরো মুসলিম উম্মাহ উৎসাহ উদ্দীপনা থেকেই এই মাসটি পালন করে থাকেন। মুসলিম জাতির জন্য একটা বিশেষ মাস এই মাহে রমজান।

রমজান মাস এমন একটা সময়ে এসে হাজির হয়েছে যে মাস আমাদের দেশে লক ডাউন দিয়েই শুরু হবে। লক ডাউন দেওয়ার ফলে অনেক অনেক মানুষ নেহায়েত জীবন পালন করবেন। অনেকের কাজ কর্ম নেই। কাজ কর্ম না থাকলে যেমন ভাবে আর ইনকাম করা যায় না ঠিক তেমনি পরিবারকে নিয়ে একটা মাস সুন্দর ভাবে কাটানো ও সম্ভব হয় না।

যেহেতু, আমাদের দেশসহ গোটা বিশ্বে এখন নানা রকম প্রতিকূলতা পার করছে সেজন্য আমাদের উচিত অন্তত আমাদের আশপাশে মনযোগ দেওয়া। আমাদের অনেকেই আছেন যারা দিনে আনেন দিনে খান। তাদের প্রতি রাষ্ট্র থেকে শুরু করে আমাদের সামাজিক সংগঠন সমূহ এগিয়ে আসা, একান্ত দায়িত্ব বলে আমি মনে করি।

ঢাকা থেকে শুরু করে প্রতিটি মফস্বল শহরে আমাদের উচিত, সামাজিকভাবে অসহায় মানুষদের পাশে দাঁড়ানো। যার যে রকম সাধ্য আছে তা দিয়ে অসহায় মানুষের দোরগোড়ায় পৌঁছে যেতে পারলে। অনেকের কষ্ট লাঘব হবে বলে আমার দৃঢ় বিশ্বাস।

প্রশাসনের উচিত প্রতিটি অসহায় মানুষ যেনো এই লক ডাউনের সময়ে না খেয়ে থাকে সে ব্যাপারে নিশ্চিত হওয়া। যার যে রুপ সাধ্য আছে তা থেকে সর্বোচ্চ সহযোগিতা করা।

নিশ্চয়ই একদিন এই ধরণী সুস্থ হয়ে উঠবে। মানুষ আবার উৎসাহ উদ্দীপনা এবং শান্তিপূর্ণভাবে পবিত্র রমজান মাস পালন করবে বলেই আমার আত্মবিশ্বাস।

আসুন এই পবিত্র মাসে আমরা মানবিক হই এবং হাতে হাত রেখে আগামী একটা সুন্দর পৃথিবী বিনির্মাণে কার্যকরী ভূমিকা রাখি।

লেখক: সংগঠক ও লেখক

ঢাকাটাইমস/১৩এপ্রিল/এসকেএস

সংবাদটি শেয়ার করুন

পাঠকের অভিমত বিভাগের সর্বাধিক পঠিত

বিশেষ প্রতিবেদন বিজ্ঞান ও তথ্যপ্রযুক্তি বিনোদন খেলাধুলা
  • সর্বশেষ
  • সর্বাধিক পঠিত

শিরোনাম :