আইসল্যান্ডের সংসদে অর্ধেক আসনই গেল নারীর দখলে

আন্তর্জাতিক ডেস্ক, ঢাকাটাইমস
| আপডেট : ২৬ সেপ্টেম্বর ২০২১, ২০:১৩ | প্রকাশিত : ২৬ সেপ্টেম্বর ২০২১, ২০:০৫
ছবি: সংগৃহীত

ইউরোপের প্রথম দেশ হিসেবে আইসল্যান্ডে নারী সংখ্যাগরিষ্ঠ সংসদ নির্বাচিত হয়েছে। লিঙ্গ সমতা প্রতিষ্ঠার ক্ষেত্রে নারীদের এই জয়কে মাইলফলক হিসেবে মনে করা হচ্ছে। রবিবার সব ভোট গণনা শেষে দেখা গেছে, দেশটির সংসদ অলথিংয়ের মোট ৬৩টি আসনের মধ্যে ৩৩টিতে জিতেছে নারী প্রার্থী। সূত্র: এপি।

গতকাল (শনিবার) নির্বাচনের ভোটগ্রহণ অনুষ্ঠিত হয়। দেশটিতে তিন দলের সমন্বয়ে গঠিত যে জোট সরকার ক্ষমতায় ছিল এই নির্বাচনে তারা ৩৭টি আসনে জয় পেয়েছে। সরকার গঠন করতে জিততে হয় ৩৫টি আসনে।

আইসল্যান্ডে গত মেয়াদে যিনি প্রধানমন্ত্রীর দায়িত্ব পালন করেছেন তিনি একজন নারী। তার নাম ক্যাটরিন জ্যাকবসডত্তির। এর আগে ২০১৭ সালে অনুষ্ঠিত নির্বাচনের তুলনায় এবার নারীরা ৭টি আসন বেশি জিতেছে। শতাংশের হিসাবে এবার নারীরা ৫২ শতাংশ আসনে জিতেছে।

ইন্টার পার্লামেন্টারি ইউনিয়নের দেয়া তথ্য অনুযায়ী, এর আগে ইউরোপের কোনো দেশে নারীরা ৫০ শতাংশের বেশি আসনে জিততে পারেনি। এর আগে সুইডেনে ৪৭ শতাংশ আসনে নারীরা জয় পেয়েছিল।

অন্য অনেক দেশের মতো আইল্যান্ডের সংসদে নারীদের জন্য আলাদা কোটা নেই। যদিও কয়েকটি রাজনৈতিক দলে নিয়ম আছে যে, নির্দিষ্ট সংখ্যক আসনে অবশ্যই নারী প্রার্থী থাকতে হবে। লিঙ্গ সমতার ক্ষেত্রে আইসল্যান্ডকে প্রথম সারির একটি দেশ হিসেবে মনে করা হয়। দেশটিতে পিতৃত্বকালীন ছুটির বিষয়টি নারী ও পুরুষদের ক্ষেত্রে সমান।

উত্তর আটলান্টিক মহাসাগরে অবস্থিত এই দ্বীপরাষ্ট্রে ১৯৬১ সালে নারী ও পুরুষদের সমান বেতনের বিষয়ে একটি আইন করা হয়েছিল। ১৯৮০ সালে বিশ্বের প্রথম দেশ হিসেবে নারী প্রেসিডেন্ট নির্বাচিত করে আইসল্যান্ড।

আইসল্যান্ড ছাড়া বিশ্বের অন্য পাঁচটি দেশের সংসদে এখন ৫০ শতাংশের বেশি নারী সংসদ রয়েছেন। এই তালিকায় শীর্ষে রয়েছ রুয়ান্ডা। দেশটির সংসদের নিম্নকক্ষে মোট সাংসদের ৬১.৩ শতাংশ নারী। কিউবায় ৫৩.৪ শতাংশ সাংসদ নারী। নিকারাগুয়ায় এই সংখ্যা ৫০.৬ শতাংশ। মেক্সিকো ও সংযুক্ত আরব আমিরাতে ৫০ শতাংশ।

(ঢাকাটাইমস/২৬ সেপ্টেম্বর/এসইউএল)

সংবাদটি শেয়ার করুন

আন্তর্জাতিক বিভাগের সর্বাধিক পঠিত

বিশেষ প্রতিবেদন বিজ্ঞান ও তথ্যপ্রযুক্তি বিনোদন খেলাধুলা
  • সর্বশেষ
  • সর্বাধিক পঠিত

শিরোনাম :