স্বাস্থ্য বিভাগের অবদানে দেশ অনেক এগিয়েছে: স্বাস্থ্যমন্ত্রী

নিজস্ব প্রতিবেদক, ঢাকাটাইমস
 | প্রকাশিত : ২৮ জুন ২০২২, ২০:০৫

স্বাস্থ্য খাতে দেশ অনেক এগিয়ে যাচ্ছে জানিয়ে স্বাস্থ্যমন্ত্রী জাহিদ মালেক বলেছেন, আমাদের দেশের মানুষের এখন গড় আয়ু ৭৩ বছর। গড় আয়ু ৭৩ বছরের পেছনে স্বাস্থ্য বিভাগের অনেক বড় অবধান রয়েছে। আমাদের দেশে শিশু ও মাতৃ মৃত্যুর হার কমিয়ে নিয়ে আসতে সক্ষম হয়েছি।

মঙ্গলবার (২৮ জুন) দুপুর ১টায় বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিব মেডিকেল বিশ্ববিদ্যালয়ের (বিএসএমএমইউ) শহীদ ডা. মিলন হলে এক অনুষ্ঠানে স্বাস্থ্যমন্ত্রী এসব কথা বলেন। বিশ্ববিদ্যালয়ের ইনস্টিটিউট অব পেডিয়াট্রিক নিউরোডিজঅর্ডার অ্যান্ড অটিজমের (ইপনা) উদ্যোগে ‘সার্টিফিকেট কোর্স অন নিউরোডেভেলপমেন্ট ডিজঅর্ডার’ শীর্ষক কোর্সের উদ্বোধন ও সনদ বিতরণ উপলক্ষে এ অনুষ্ঠান হয়।

জাহিদ মালেক বলেন, আমাদের যেগুলো সংক্রামক ব্যাধি সেগুলো আমরা অনেক কমাতে পেরেছি, নির্মুল করতে পেরেছি। দেশে বর্তমানে কলেরা, ডায়রিয়া, ম্যালেরিয়াসহ সবই মোটামুটি নিয়ন্ত্রণে রয়েছে। এসব অসুখে আগে হাজার হাজার লোক মারা যেতো। এখন আর সেই অবস্থা নেই। তার পেছনে অনেক হাত রয়েছে। এর মধ্যে হলো টিকা কর্মসূচি, সেনিটেশন, সুপিয় পানির ব্যবস্থাসহ সব কিছু ঠিকঠাকভাবে কাজ করায় আমরা সফল হয়েছি।

স্বাস্থ্যমন্ত্রী বলেন, বাংলাদেশের প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা বঙ্গবন্ধুর সোনার বাংলার স্বপ্ন বাস্থবায়ন করে যাচ্ছেন। ২৫ জুন আমাদের স্বপ্নের পদ্মা সেতু উদ্বোধন করেছেন। এটা বাঙালি জাতির গর্ব, সক্ষমতার পরিচয়, সম্মানের পরিচয়। পৃথিবীর বুকে বাঙালি মাথা উঁচু করে দাঁড়িয়ে বলতে পারে যে আমাদের ব্রিজ, আমাদের নিজের অর্থায়নের ব্রিজ। অনেক ষড়যন্ত্র ছিল, সব ষড়যন্ত্র ছিন্ন করে সব মানুষের অর্থায়নে এই ব্রিজ তৈরি করা হয়েছে।

স্বাস্থ্যমন্ত্রী বলেন, পদ্মা সেতুর মাধ্যমে অর্থনৈতিক উন্নয়নও ঘটবে। শুধু ২১টি জেলা নয়, সারা বাংলাদেশে অর্থনৈতিক উন্নয়ন ঘটবে। বাংলাদেশ প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার নেতেৃত্বে বাংলাদেশ সব বিষয়ে এগিয়ে যাচ্ছে।

উপাচার্য অধ্যাপক ডা. মো. শারফুদ্দিন আহমেদের সভাপতিত্বে অনুষ্ঠানে আরও বক্তব্য দেন, বিএসএমএমইউর উপ-উপাচার্য (গবেষণা ও উন্নয়ন) অধ্যাপক ডা. মো. জাহিদ হোসেন, উপ-উপাচার্য (শিক্ষা) অধ্যাপক ডা. একেএম মোশাররফ হোসেন, উপ-উপাচার্য (প্রশাসন) অধ্যাপক ডা. ছয়েফ উদ্দিন আহমেদ, কোষাধ্যক্ষ অধ্যাপক ডা. মোহাম্মদ আতিকুর রহমান, প্রক্টর অধ্যাপক ডা. মো. হাবিবুর রহমান দুলাল ও শিশু নিউরোলজি বিভাগের চেয়ারম্যান অধ্যাপক ডা. গোপেন কুমার কুন্ডু।

অনুষ্ঠানটির মূল লক্ষ্য হলো দেশব্যাপী স্নায়ুবিকাজনিত সমস্যাগুলোর সেবা দেওয়ার জন্য দক্ষ জনশক্তি তৈরি করা এবং এ বিষয়ে জনসচেতনতা বৃদ্ধি করা।

এছাড়াও সারা বিশ্বের ন্যায় বাংলাদেশও অটিজম বৈশিষ্ট্য সম্পন্ন বিশেষ শিশুদের নিয়ে তাদের অভিভাবক এবং কেয়ারগিভারগণ নানা ধরনের সমস্যার সম্মুখীন হন। এসব সমস্যা সমাধানে ইপনা বিভিন্ন জনসচেতনতামূলক কার্যক্রম পরিচালনা করে থাকে। এরই একটি অংশ হিসেবে ইপনাতে ছয় মাস মেয়াদি কোর্সের কার্যক্রম শুরু করে।

অফলাইন ও অনলাইনে অভিভাবক, বিশেষ শিশু, সাংবাদিকসহ ইপনা ও বিশ্ববিদ্যালয়ের ডাক্তার, সাইকোলোজিস্ট, থেরাপিস্ট এবং কর্মকর্তা-কর্মচারীরা এই অনুষ্ঠানে অংশগ্রহণ করেন।

(ঢাকাটাইমস/২৮জুন/পিআর/কেএম)

সংবাদটি শেয়ার করুন

জাতীয় বিভাগের সর্বাধিক পঠিত

বিশেষ প্রতিবেদন বিজ্ঞান ও তথ্যপ্রযুক্তি বিনোদন খেলাধুলা
  • সর্বশেষ
  • সর্বাধিক পঠিত

জাতীয় এর সর্বশেষ

চার দিনের সফরে ঢাকায় জাতিসংঘের মানবাধিকার বিষয়ক হাইকমিশনার

জেনে নিন আজ কখন কোথায় লোডশেডিং

দায়িত্বহীন বক্তব্য নয়, বাজারে গিয়ে প্রমাণ করুন: মন্ত্রীদের বিশিষ্টজনেরা

ওটিটি প্ল্যাটফর্ম: দুই মন্ত্রণালয়ের ভিন্ন নীতির কারণে জটিলতা তৈরি হওয়ার শঙ্কা

‘বেহেশতে আছি’ ব্যাখ্যায় পররাষ্ট্রমন্ত্রী, বললেন ‘সাংবাদিকরা এক্কেবারে উল্টা’

বঙ্গবন্ধু হত্যার কুশীলব খুঁজতে কমিশনের রূপরেখা প্রস্তুত: আইনমন্ত্রী

সাইবার বুলিংয়ের শিকার ৫০.২৭ শতাংশ, আইনের আশ্রয় নেন না ৭৩.৪ শতাংশ

রবিবার ঢাকা আসছেন জাতিসংঘের মানবাধিকার বিষয়ক হাইকমিশনার

ঢাকা-সিলেট রুটে বাড়ছে বিমানের ভাড়া

সারাদেশের চা বাগানে অনির্দিষ্টকালের ধর্মঘটে শ্রমিকরা

এই বিভাগের সব খবর

শিরোনাম :