শ্রীপুরে নিখোঁজের একদিন পর শিশুর মরদেহ উদ্ধার

শ্রীপুর (গাজীপুর) প্রতিনিধি, ঢাকা টাইমস
 | প্রকাশিত : ১০ এপ্রিল ২০২৪, ১৩:৫৯

গাজীপুরের শ্রীপুরে গভীর জঙ্গলের ভেতর থেকে নিখোঁজের একদিন পর মাহিম (৮) নামে এক শিশুর মরদেহ উদ্ধার করেছে পুলিশ।

মঙ্গলবার রাত সাড়ে ১১টার দিকে শ্রীপুর উপজেলার গোসিংগা ইউনিয়নের লফিপুর গ্রামের কালিরটেক এলাকার গভীর জঙ্গল থেকে শিশুটির মরদেহ উদ্ধার করা হয়।

এ ঘটনায় জড়িত থাকার অভিযোগে রনি নামে এক যুবককে গ্রেপ্তার করেছে পুলিশ। মুক্তিপণ দাবির পর শিশুটিকে হত্যা করা হয়েছে বলে রনি পুলিশকে জানিয়েছে।

নিহত মাহিম টাঙ্গাইল জেলার মধুপুর উপজেলার বেরাইদ গ্রামের মো. আমিনুল ইসলামের ছেলে। আমিনুল শ্রীপুর পৌরসভার মাদখলা গ্রামে ভাড়া থেকে দিনমজুরের কাজ করেন।

আটক রনি (২২) শ্রীপুর পৌরসভার সাবারচালা গ্রামের মৃত আব্দুস ছাত্তারের ছেলে।

শিশুর বাবা আমিনুল ইসলাম বলেন, গত (৮ এপ্রিল) সোমবার আমার ছেলে অন্য দিনের মতো বাড়ির পাশে খেলাধুলা করে। সন্ধ্যা হলেও বাড়ি ফেরেনি। আমিসহ আমার পরিবারের লোকজন তাকে বিভিন্ন জায়গায় খোঁজাখুঁজি করে পাইনি। পরে প্রতিবেশীদের মাধ্যমে জানতে পারি মাহিমকে রনি নিয়ে গেছে। পাশের সাভারচালা গ্রামে রনির বাড়িতে গিয়ে রনিকে পাইনি।

আমিনুল ইসলাম আরও বলেন, পরে একটি অচেনা নম্বর থেকে রনি পরিচয় দিয়ে আমার স্ত্রীর মোবাইল ফোনে ২০ হাজার টাকা মুক্তিপণ দাবি করে। পরে টাকা সংগ্রহ করে রনিকে ফোন দিলে আর যোগাযোগ সম্ভব হয়নি। এরপর আমি থানায় সাধারণ ডায়েরি (জিডি) করি। রনি আমার ছেলেকে শ্বাসরোধ করে হত্যা করছে।

বিষয়টি নিশ্চিত করেছেন শ্রীপুর থানার উপ-পরিদর্শক (এসআই) ইসমাঈল হোসেন। রনির বরাত দিয়ে তিনি বলেন, মাদখলা গ্রামে মাহিমের পরিবারের পাশের বাড়িতে ভাড়া থা কত রনি। সেখান থেকে মাহিমের সঙ্গে পরিচয় হয়।

গত সোমবার বেলা ৩টার দিকে রনি মাহিমকে ঘুরতে যাওয়ার কথা বলে নিয়ে আসেন। এদিক-সেদিক ঘুরাঘুরি করেন রনি। একপর্যায়ে সন্ধ্যায় রনি মাহিমকে ওই বনের ভেতর নিয়ে যান। সেখান থেকে মোবাইল ফোনে মাহিমের মায়ের কাছে ২০ হাজার টাকা মুক্তিপণ দাবি করেন। এরপর টাকা জোগাড় করে মাহিমের পরিবার বারবার চেষ্টা করেও রনির সঙ্গে যোগাযোগ করতে পারেনি।

তিনি আরও জানান এ বিষয়ে শ্রীপুর থানায় একটি জিডি করেন নিহত শিশু মাহিমের স্বজনেরা। পরে তথ্যপ্রযুক্তির মাধ্যমে অভিযুক্তের অবস্থান নিশ্চিত হয়ে রণিকে আটক করা হয়। পরে তার দেওয়া তথ্যের ভিত্তিতে গভীর জঙ্গল থেকে ওই শিশুর মৃতদেহ উদ্ধার করা হয়। এ ঘটনায় মামলা প্রক্রিয়াধীন রয়েছে বলে জানানা উপ পরিদর্শক (এসআই) ইসমাঈল হোসেন।

(ঢাকাটাইমস/১০এপ্রিল/প্রতিনিধি/পিএস)

সংবাদটি শেয়ার করুন

সারাদেশ বিভাগের সর্বাধিক পঠিত

বিশেষ প্রতিবেদন বিজ্ঞান ও তথ্যপ্রযুক্তি বিনোদন খেলাধুলা
  • সর্বশেষ
  • সর্বাধিক পঠিত

সারাদেশ এর সর্বশেষ

এই বিভাগের সব খবর

শিরোনাম :