জাবিতে ইবি খেলোয়াড়দের হত্যার হুমকির অভিযোগ

ইবি প্রতিবেদক, ঢাকাটাইমস
 | প্রকাশিত : ০৭ এপ্রিল ২০১৯, ১৯:৫৩

বঙ্গবন্ধু আন্তঃবিশ্ববিদ্যালয় স্পোর্টস চ্যাম্প-১৯ হ্যান্ডবল প্রতিযোগিতায় জাহাঙ্গীরনগর বিশ্ববিদ্যালয়ে অংশ নিতে যাওয়া ইসলামী বিশ্ববিদ্যালয়ের (ইবি) খেলোয়াড়দের মাথায় পিস্তল ঠেকিয়ে হত্যার হুমকি দেয়া হয়েছে বলে অভিযোগ ওঠেছে। রবিবার বিকাল তিনটার দিকে বিশ্ববিদ্যালয়ের ফুটবল মাঠে ইবির হ্যান্ডবল টিম অংশগ্রহণ করতে গেলে এ ঘটনা ঘটে।

হ্যান্ডবল দলের অধিনায়ক আশিক জানান, রবিবার জাহাঙ্গীরনগর বিশ্ববিদ্যালয়ের ফুটবল মাঠে হ্যান্ডবলের সেমিফাইনাল প্রতিযোগিতা অনুষ্ঠিত হওয়ার কথা। বিকাল তিনটার দিকে খেলায় অংশ নেয়ার জন্য প্রস্তুতি নিতে যায় ইবির টিম। মাঠে অপরিচিত (নেতাটাইপের) ১৫/১৬ জন এসে কারা কারা জাতীয় দলের খেলোয়াড় তা জানতে চান। পরে ইবি টিমকে খেলায় অংশ না নিতে হুমকি দেয়া হয়। কিছুক্ষণ পরে তারা আবারোও মাঠে এসে খেলোয়াড়দের খেলায় অংশ নিতে নিষেধ করেন। এক পর্যায়ে অকথ্য ভাষায় গালিগালাজ শুরু করেন। ক্যাপ্টেন আশিক ও খেলোয়াড় ইমনের মাথায় পিস্তল ঠেকিয়ে খেলায় অংশ নিলে মেরে ফেলা হবে বলে হুমকি দেয় তারা। পরে ইবির খেলোয়াড়রা মাঠ ত্যাগ করেন।

ক্যাম্পাস থেকে বের হয়ে যাওয়া দেখে তারা আবারো ধাওয়া করে। ক্যাপ্টেন আশিক জানান, হুমকিদাতারা সবাই ক্ষমতাসীন দলের ছাত্র সংগঠনের কর্মী হতে পারে বলে সন্দেহ খেলোয়াড়রদের।

আশিক বলেন, ‘আমাদের টিমকে গতকাল মাঠে অনুশীলন করতেই দেয়া হয়নি। আমাদের  খেলোয়াড়দের তারা মাঠ থেকে তুলে দিয়েছে। আমরা সেখানে কোনো ধরনের নিরাপত্তা পাইনি।’

ইবির টিম ম্যানেজার অধ্যাপক ড. জাকারিয়া রহমান বলেন, ‘মাঠে কোনো রকম নিরাপত্তা ব্যবস্থা নেই। কর্তৃপক্ষের যথেষ্ট আন্তরিক হওয়ার প্রয়োজন ছিল। লিখিতভাবে বঙ্গবন্ধু আন্তঃবিশ্ববিদ্যালয় স্পোর্টস চ্যাম্প কর্তৃপক্ষের কাছে নিন্দা ও শাস্তি জানিয়ে আবেদন করা হয়েছে। ঘটনার পর খেলোয়াড়দের নিরাপদে নেয়া হয়েছে এবং তারা সুস্থ আছে।’

 জাবির প্রক্টর আ.স.ম ফিরোজ-উল-হাসান বলেন, ‘ইবির টিম খেলা না করে মাঠ ছেড়ে চলে গেছে। আমরা উদারতা দেখিয়েছি। তারা যে অভিযোগগুলো করেছে তার কোনো ভিত্তি নেই।’

ইবির উপাচার্য অধ্যাপক ড. হারুন-উর-রশিদ আসকারী বলেন, ‘এটা অপ্রত্যাশিত ঘটনা। আমরা লিখিত আগিভযোগ করেছি। খেলা বন্ধ হয়েছে। আশা করি অভিযোগ আমলে নিয়ে যথাযথ ব্যবস্থা গ্রহণ করবে কর্তৃপক্ষ।’

(ঢাকাটাইমস/০৭এপ্রিল/জেবি)

সংবাদটি শেয়ার করুন

শিক্ষা বিভাগের সর্বাধিক পঠিত

বিশেষ প্রতিবেদন বিজ্ঞান ও তথ্যপ্রযুক্তি বিনোদন খেলাধুলা
  • সর্বশেষ
  • সর্বাধিক পঠিত

শিরোনাম :