ছাত্র আন্দোলনে সরকার গদি হারানোর আতঙ্কে থাকে: ভিপি নুর

ঢা‌বি প্রতি‌নি‌ধি, ঢাকাটাইমস
 | প্রকাশিত : ১৩ অক্টোবর ২০১৯, ২৩:১৯

দেশে  জনগণের কিংবা শিক্ষার্থীদের কোনো আন্দোলন তৈরি হলে সরকারের মধ্যে গদি হারানোর আতঙ্ক চলে আসে বলে মন্তব্য করেছেন ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয় ছাত্র সংসদের (ডাকসু) ভিপি নুরুল হক নুর। তিনি বলেছেন, সেই কারণে সরকার প্রতিটি যৌ‌ক্তিক আন্দোলন নি‌য়ে অপপ্রচার করে।

আজ  রবিবার বিকালে শাহবাগেরর কেন্দ্রীয় জাদুঘরের সামনে এক প্রতিবাদ সমাবেশে এ কথা বলেন তিনি।

আবরারসহ সব ছাত্রহত্যার দ্রুত বিচারসহ পাঁচ দফা দাবিতে প্রতিবাদ সমাবেশেটি আয়োজন করে বাংলাদেশ সাধারণ ছাত্র অধিকার সংরক্ষণ পরিষদ।

সরকারের উদ্দেশে নুর বলেন, ‘বাংলাদেশের জনগণ এত বোকা নয় যে সত্যকে আপনারা যেভাবে গুজব বলে চালিয়ে দেবেন জনগণ সেটা বিশ্বাস করবে।’

ভাষা আন্দোলন থেকে শুরু করে মুক্তিযুদ্ধ ও স্বৈরাচারবিরোধী আন্দোলনে ছাত্ররাজনীতির গৌরবোজ্জ্বল ইতিহাসের কথা তুলে ধরে নুর প্রশ্ন তোলেন, ‘আজ‌কে কেন দেশের সর্বোচ্চ বিদ্যাপীঠ থেকে ছাত্ররাজনীতি ব‌ন্ধের দা‌বি এল? কারণ ক্ষমতাসীন দল সেই ছাত্ররাজনীতিকে কলুষিত করেছে। শিক্ষাঙ্গনগুলোতে তাদের ছাত্রসংগঠনকে সন্ত্রাসী বাহিনীতে পরিণত করেছে যাদের ভয়ে ভিন্নমতের শিক্ষার্থীরা বিশ্ববিদ্যালয়ে কথা বলতে পারে না।’

আবরার হত্যাকাণ্ডের মতো নির্মম ঘটনা সারা দেশের মানুষকে জাগিয়েছে তুলেছে বলে দাবি নুরের।  ডাকসু ভিপি বলেন, ‘তারা বিবেকের তাড়নায় ক্ষোভে, রাগে, ন্যায়বিচারের দাবিতে রাজপথে নেমে এসেছে। আর তাতে বুয়েট প্রশাসনের কিছুটা টনক নড়েছে এবং আমাদের তথাকথিত সরকারের টনক নড়েছে।’

বর্তমান সরকারের বৈধতা নিয়েও কথা বলেন ভিপি নুর। বলেন, ‘কিন্তু আমরা কোনো প্রতিবাদ করিনি, আপনাদের গদি ধরে টান দিইনি।  আমরা ছাত্রদের সমস্যা নিয়ে কথা বলেছি। তারপরও আপনারা শিক্ষার্থীদের বিভিন্ন আন্দোলন নিয়ে অপপ্রচার করেছেন।’

প্রধানমন্ত্রীকে উদ্দেশ করে ডাকসু ভিপি বলেন, ‘মাননীয় প্রধানমন্ত্রী আপনার কথায় আমরা লজ্জিত হই যখন আপনি বলেন ‘আমরা ভারতকে যা দিয়েছি তা তারা সারা জীবন মনে রাখবে’। ভারত অনেক আগে থেকেই ফেনী নদীর পানি তুলছে আর সরকার গিয়ে সেটির বৈধতা দিয়ে এসেছে।’

বঙ্গোপসাগর উপকূলে ভারতের রাডার স্থাপনের চুক্তির সমালোচনা করে ভিপি নুর বলেন, ‘ভারত আমাদের মুক্তিযুদ্ধে বিভিন্নভাবে সাহায্য করেছে। তাদের প্রতিদান আমরা নানাভাবে দিয়েছি। ভবিষ্যতেও দেব। কিন্তু দেশের স্বার্থ বিসর্জন করে নয়।’

দেশের সব কলেজ-বিশ্ববিদ্যালয়ে ছাত্র সংসদ নির্বাচনের দাবি করেন করেন ডাকসু ভিপি। নুর বলেন, ‘আমরা জানি আমাদের ওপর হামলা হবে, মামলা হবে। ছাত্রসমাজের স্বার্থে, দেশের স্বার্থে আমরা যে প্রতিবাদ করছি শরীরের শেষ রক্তবিন্দু থাকা পর্যন্ত তা অব্যাহত থাকবে।’

সবাইকে অন্যায়ের প্রতিবাদ করার আহ্বান জানিয়ে নুরুল হক নুর বলেন, ‘আমরা যদি মরে যাই আপনাদের প্রতি আহ্বান থাকবে, আপনারা এই আন্দোলন চালিয়ে যাবেন। ছাত্রসমাজকে উটপাখির মতো মাথা গুঁজে বসে থাকলে হবে না। কথা বলতে হবে, মাথা উঁচু করে অন্যায়ের প্রতিবাদ করতে হবে।’

সমাবেশে তোলা দাজিগুলো হলো- দ্রুত ট্রাইবুন্যাল গঠন করে আবরারসহ সব ছাত্র হত্যার বিচার, গণরুম গেস্টরুমের নামে যে টর্চার সেল রয়েছে সেগুলো উচ্ছেদ করে ১ম বর্ষ থেকে প্রশাসনিকভাবে সিট বণ্টন, ভারতের সঙ্গে দেশবিরোধী সব চুক্তি বাতিল, সব বিশ্ববিদ্যালয় কলেজে দ্রুত ছাত্র সংসদ নির্বাচন এবং বিশ্ববিদ্যালয়ের দলীয় প্রশাসনকে পাল্টিয়ে দলনিরপেক্ষ যোগ্য ব্যক্তিদের ভিসি এবং অন্যান্য গুরুত্বপূর্ণ পদে নিয়োগ।

প্রতিবাদ সমাবেশে ছাত্রদল, ছাত্র ইউনিয়নের বিভিন্ন নেতাকর্মীসহ শতাধিক শিক্ষার্থী অংশ নেন। পরে শাহবাগ থেকে ভিপি নুরের নেতৃত্বে একটি মিছিল  সন্ত্রাসবিরোধী রাজু ভাস্কর্যের পাদদেশে গিয়ে শেষ হয়।

(ঢাকাটাইমস/১৩অক্টোবর/ইএস/মোআ)

সংবাদটি শেয়ার করুন

শিক্ষা বিভাগের সর্বাধিক পঠিত

বিশেষ প্রতিবেদন বিজ্ঞান ও তথ্যপ্রযুক্তি বিনোদন খেলাধুলা
  • সর্বশেষ
  • সর্বাধিক পঠিত

শিরোনাম :