কলেজছাত্রকে পিটিয়ে হত্যায় দুই বখাটের দোষ স্বীকার

আদালত প্রতিবেদক, ঢাকাটাইমস
 | প্রকাশিত : ০৫ নভেম্বর ২০১৯, ১৮:১৭
ফাইল ছবি

রাজধানীর হাজারীবাগ এলাকায় বান্ধবীকে উত্ত্যক্তের প্রতিবাদ করতে গিয়ে কলেজছাত্র আরিফুল ইসলাম সজলকে পিটিয়ে হত্যা মামলায় দুই বখাটে দোষ স্বীকার করেছে। অপর আট আসামিকে রিমান্ড শেষে কারাগারে পাঠিয়েছে আদালত।

দুই দিনের রিমান্ড শেষে মঙ্গলবার দশ আসামিকেই মামলার তদন্ত কর্মকর্তা হাজারীবাগ থানার পুলিশ পরিদর্শক (অপারেশন) কাজী শরিফুল ইসলাম আদালতে হাজির করেন।

তিনি আসামিদের মধ্যে মো. মিরাজ (২২) ও মো. ইমনের (১৯) দোষ স্বীকারোক্তি গ্রহণের আবেদন করেন।

অন্যদিকে আসামি মো. নয়ন (২৪), মো. পারভেজ (২০), সজিব শরীফ (২২), মো. বেলাল হোসেন শুভ (২০), মো. রবিউল আওয়াল (১৮), মো. রবিউল আওয়াল (১৯), সাগর (২০) ও মো. মহিউদ্দিন নূরকে (২২) কারাগারে পাঠানোর আবেদন করেন।

ঢাকা মহানগর হাকিম মোর্শেদ আল মামুন ভূঁইয়া আট আসামির জামিনের আবেদন নাকচ করে কারাগারে পাঠানোর আদেশ দেন।

অন্যদিকে ঢাকার অতিরিক্ত মুখ্য মহানগর হাকিম মো. আমিনুল হক ও মহানগর হাকিম রাজেশ চৌধুরী দুই আসামির জবানবন্দি রেকর্ডের পর তাদের কারাগারে পাঠানোর আদেশ দেন।

এর আগে গত ২ নভেম্বর দশ আসামির দুই দিন করে রিমান্ডে আদেশ দেয় সিএমএম আদালত।

নিহত আরিফুল ইসলাম সজল (২০) মোহাম্মাদপুর সরকারি কলেজের দ্বিতীয় বর্ষের শিক্ষার্থী ছিলেন।

মামলার অভিযোগে থেকে জানা যায়, গত ২৯ অক্টোবর রাতে সজল হাজারীবাগ রায়েরবাগ এলাকায় তার বান্ধবী সানজিদা আক্তার দোলনের সঙ্গে দেখা করতে যান। হাজারীবাগ ব্রিজের ঢালে ষড়কুঞ্জের রাস্তার পাশে তিনি যখন তার বান্ধবীর সঙ্গে কথা বলছিলেন ওই সময় দুই-তিনজন বখাটে তাদের উদ্দেশে বাজে মন্তব্য করে। এক পর্যায়ে সজল ওই বখাটেদের সঙ্গে বাকবিতণ্ডায় জড়িয়ে পড়েন। এরপর বখাটেরা সজলকে লাঠি ও ধারালো অস্ত্র দিয়ে সজলকে আঘাত করে। সঙ্গে থাকা সজলের বান্ধবী তাকে মুমূর্ষু অবস্থায় হাসপাতালে নিলে কর্তব্যরত চিকিৎসক মৃত ঘোষণা করেন।

এই ঘটনায় গত ৩০ অক্টোবর সজলের বাবা মো. শহিদুল ইসলাম চুন্নু বাদী হয়ে হত্যা মামলা দায়ের করেন। মামলায় ১৯ জনের নাম উল্লেখ করা হয়।

(ঢাকাটাইমস/০৫নভেম্বর/আরজেড/জেবি)

সংবাদটি শেয়ার করুন

আদালত বিভাগের সর্বাধিক পঠিত

বিশেষ প্রতিবেদন বিজ্ঞান ও তথ্যপ্রযুক্তি বিনোদন খেলাধুলা
  • সর্বশেষ
  • সর্বাধিক পঠিত

শিরোনাম :