প্রধানমন্ত্রীর কার্যালয়ে অভিযোগ

‘মিরপুরে বাড়ি বানাতে চাইলেই টাকা দিতে হয়’

নিজস্ব প্রতিবেদক, ঢাকা টাইমস
| আপডেট : ২২ মার্চ ২০২৪, ২০:৪৬ | প্রকাশিত : ২২ মার্চ ২০২৪, ১৯:৪৫

রাজধানীর পল্লবী, মানিকদি, ক্যান্টনমেন্ট থানা এলাকায় জমি, ফ্ল্যাট কিনেও স্থানীয় একটি সন্ত্রাসী গ্রুপকে চাঁদা না দিয়ে দখলে নিতে পারছেন না অনেকে। প্রধানমন্ত্রীর কার্যালয় আইনশৃঙ্খলা বাহিনীসহ বিভিন্ন সরকারি দপ্তরে ভুক্তভোগীদের পক্ষে এমন লিখিত অভিযোগ দিয়ে এর তদন্ত চেয়েছে হিউম্যান রিসোর্স অ্যান্ড হেলথ ফাউন্ডেশন নামক একটি বেসরকারি সংগঠন।

পারভীন নামে সংগঠনটির একজন পরিচালক স্বাক্ষরিত ওই অভিযোগে উল্লেখ করা হয়, ডিএমপির ক্যান্টনমেন্ট থানা এলাকার বাসিন্দারা আব্বাস নামে এক ব্যক্তির কাছে জিম্মি। গত ১৬ বছরে নানা অপরাধ আর ভূমিদস্যুতায় আব্বাস গড়েছেন হাজার কোটি টাকার সম্পদ।

তবে বিষয়ে জানতে চাইলে আব্বাস ঢাকা টাইমসের সঙ্গে কোনো কথা বলতে রাজি হননি।

অভিযোগে আরও উল্লেখ করা হয়, আব্বাসের দৃশ্যমান কোনো আয়ের উৎস না থাকলেও লেনদেনে ব্যাংকের সেরা গ্রাহকের উপাধি পান প্রতি বছর। আব্বাস গাজীপুরের কালিগঞ্জে তার স্ত্রী আত্মীয় স্বজনের নামে করেছেন কোটি কোটি টাকার সম্পদ। মানিকদী, পল্লবী, নামা পাড়াসহ রাজধানী ঢাকার মধ্যে নামে বেনামে গড়েছেন অর্ধশতাধিক ফ্ল্যাট প্লট। মানিকদি, ক্যান্টনমেন্ট থানা এলাকায় কেউ জায়গা জমি কিনে বাড়ি বানাতে চাইলে নিতে হয় আব্বাসের অনুমতি। এসব কাজে আব্বাসের সহযোগী হিসেবে কাজ করেন মঞ্জুর কাদের শামীম নামের আরেক ব্যক্তি। এছাড়া মিরপুরের তালিকাভুক্ত সন্ত্রাসী আল আমিন আব্বাসের হয়ে কাজ করছেন। পুরো জোয়ার সাহারা মৌজাতে রয়েছে আব্বাসের একক নিয়ন্ত্রণ।

লিখিত অভিযোগে বলা হয়, আব্বাস নিয়ন্ত্রিত একটি গ্রুপ মাটি ভরাট একটি জমি দখলের কাজ করে। একজন যুবলীগ নেতা মন্ত্রীর নাম ভাঙ্গিয়ে দাপট দেখাচ্ছেন এই আব্বাস।

অভিযোগে আব্বাসের সহযোগি হিসেবে একাধিক অস্ত্র-মাদক মামলার আসামি শাহরিয়ার রাসেল ওরফে কাউয়া রাসেল, মাসুদ ওরফে গলা কাটা মাসুদ শিপলুর নাম উল্লেখ করা হয়েছে।

যোগাযোগ করা হলে হিউম্যান রিসোর্স অ্যান্ড হেলথ ফাউন্ডেশনের পরিচালক পারভীন বলেন, ‘আমরা অনেকের সঙ্গে কথা বলেছি। মানিকদী মিরপুরে বহু, জমি, ফ্ল্যাট, বাড়ির মালিক সর্বস্বান্ত হয়েছেন এই বাহিনীর কারণে। আব্বাস বাহিনীর নির্যাতনের শিকার হয়ে অনেক ভুক্তভোগী ইতোমধ্যে জমি রেখে এলাকা ছেড়ে পালিয়েছেন। এসব বিষয়ে আইন শৃঙ্খলাবাহিনীর কাছে ভুক্তভোগীরা গিয়েও কোনো প্রতিকার পাচ্ছেন না। এসব ঘটনায় গণমাধ্যমে সংবাদ প্রকাশ হলেও কেউ প্রতিবাদের সাহস পায়নি। বাধ্য হয়ে প্রধানমন্ত্রী, স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী, ভূমি মন্ত্রণালয়ের সচিব ডিএমপি কমিশনার বরাবর পৃথক প্রতিকার শাস্তি দাবি করে অভিযোগ করেছি। আশা করছি দ্রুত এর সমাধান হবে।

(ঢাকাটাইমস/২২মার্চ/এইচএম/পিএস)

সংবাদটি শেয়ার করুন

জাতীয় বিভাগের সর্বাধিক পঠিত

বিশেষ প্রতিবেদন বিজ্ঞান ও তথ্যপ্রযুক্তি বিনোদন খেলাধুলা
  • সর্বশেষ
  • সর্বাধিক পঠিত

জাতীয় এর সর্বশেষ

রামপুরায় অবরোধ ছেড়ে দিলো রিকশাচালকরা, যানচলাচল স্বাভাবিক

সৌদি আরব গেছেন ৩০ হাজার ৮১০ হজযাত্রী 

রাজধানীতে ৩৮ কোটি টাকার পশুর হাট

পাঁচ অঞ্চলে সর্বোচ্চ ৮০ কিমি বেগে ঝোড়ো হাওয়ার আশঙ্কা, নদীবন্দরে ২ নম্বর হুঁশিয়ারি

১৫৭ উপজেলায় দুই লক্ষ আনসার-ভিডিপি সদস্য মোতায়েন

মধ্যরাত থেকে সমুদ্রে মাছ ধরায় নিষেধাজ্ঞা

উপজেলা নির্বাচন: মাঠে নেমেছে আইনশৃঙ্খলা বাহিনী, কার কী দায়িত্ব

ভারতে গিয়ে নিখোঁজ এমপি আনোয়ারুল, স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী বললেন ‘উদ্বিগ্ন হওয়ার কারণ নেই’

এসএমসি প্লাস ও রিচার্জের সব ড্রিংকস বাজার থেকে প্রত্যাহারের নির্দেশ

সমন্বয় সভায় কর্মকর্তাদের বিশেষ দিক-নির্দেশনা পররাষ্ট্রমন্ত্রীর

এই বিভাগের সব খবর

শিরোনাম :