কালকিনিতে ব্যবসায়ীর চোখ উপড়ে ফেলার ঘটনায় আটক ৩

কালকিনি (মাদারীপুর) প্রতিনিধি, ঢাকাটাইমস
 | প্রকাশিত : ০৪ মে ২০১৭, ১৮:২৪

পূর্ব শত্রুতার জের ধরে কালকিনিতে এক পান ব্যবসায়ীকে অপহরণের পর দুই চোখ উপড়ে ফেলার ঘটনায় তিন জনকে আটক করেছে পুলিশ।

বৃস্পতিবার সকালে তাদের আটক করা হয়। তারা হলেন- মো. সাইদুল বিশ্বাস (২৮), জাহাঙ্গীর আকন (৪১) ও সেলিম হাওলাদার।

এদিকে মো. কবির মৃধা (৪২) নামের ওই ব্যবসায়ীকে ঢাকার জাতীয় চক্ষু বিজ্ঞান ইনস্টিটিউটে ভর্তি করা হয়েছে। তিনি খুনেরচর গ্রামের নুরু মৃধার ছেলে।
কবির মৃধার ভাষ্য, এ ঘটনার জন্য বাঁশগাড়ির ইউপি চেয়ারম্যান মোস্তাফিজুর রহমানকে দায়ী। তবে চেয়ারম্যান এ অভিযোগ অস্বীকার করেছেন।


পুলিশ ও এলাকা সূত্রে জানা গেছে, বুধবার রাতে ব্যবসায়ীক কাজে বাঁশগাড়ি থেকে রাজধানীর ঢাকায় যাচ্ছিলেন ওই পান ব্যবসায়ী কবির মৃধা। লঞ্চের জন্য শখীপুর এলাকায় অপেক্ষা করছিলেন তিনি। এ সময় সেখানে আগে থেকে ওঁৎ পেতে থাকা দুর্বৃত্তরা তাকে অস্ত্রের মুখে জিম্মি করে পাশের একটি নির্জন স্থানে নিয়ে যায়।

এরপর ধারালো অস্ত্র দিয়ে দুই চোখ উপড়ে ফেলে রেখে পালিয়ে যায় তারা। খবর পেয়ে বুধবার রাত ১০টার দিকে শরীয়তপুরের গোসাইরহাট, বরিশালের মুলাদী ও মাদারীপুরের কালকিনি থানা পুলিশ তাকে উদ্ধার করে। পরে গুরুতর অবস্থায় প্রথমে কালকিনি উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্স পরে অবস্থার অবনতি হলে ঢাকার জাতীয় চক্ষু বিজ্ঞান ইনস্টিটিউটে ভর্তি করা হয়।


এ ঘটনায় জড়িত সন্দেহে বৃহস্পতিবার সকালে ৩ জনকে আটক করেছে কালকিনি থানা পুলিশ। তবে, স্থানীয় ইউপি চেয়ারম্যানের সাথে পূর্ব শক্রতার জেরে এই ঘটনা হতে পারে বলে ধারণা পুলিশের।

এ ব্যাপারে আহত কবির মৃধা বলেন, বাঁশগাড়ির ইউপি চেয়ারম্যান মোস্তাফিজুর রহমানের নেতৃত্বে আমার দুই চোখ উৎপাটন করা হয়েছে।

তবে, ইউপি চেয়ারম্যান মোস্তাফিজুর রহমান সুমন এ ঘটনার অভিযোগ অস্বীকার করে বলেন, এলাকায় তার অনেক শত্রু রয়েছে। তারা এ ঘটনা ঘটিয়েছেন বলে আমার ধারণা। এ বিষয় আমি জড়িত নই।

এ ব্যাপারে কালকিনি থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা কৃপা সিন্দু বালা বলেন, রাতের আধারে দুর্বৃত্তরা কবির মৃধার চোখ উৎপাটন করেছে। এ ঘটনায় তিনজনকে আটক করা হয়েছে।

(ঢাকাটাইমস/০৪মে/প্রতিনিধি/ইএস)

সংবাদটি শেয়ার করুন

বাংলাদেশ বিভাগের সর্বাধিক পঠিত

বিশেষ প্রতিবেদন ফিচার বিনোদন খেলাধুলা
  • সর্বশেষ
  • সর্বাধিক পঠিত