ছেলের লাঠির আঘাতে মায়ের মৃত্যু

আখাউড়া প্রতিনিধি, ঢাকাটাইমস
 | প্রকাশিত : ২০ মে ২০১৭, ১৬:৪৪

আখাউড়ায় দ্বিতীয় স্ত্রীর সঙ্গে ঝগড়া করায় ছেলের লাঠির আঘাতে প্রাণ গেল সরস্বতী রানী দাসের। ঘটনার পর ছেলে প্রমোদ চন্দ্র দাস ও তার স্ত্রী সাবিত্রী রানী দাস পলাতক রয়েছেন।

নিহত শরস্বতী রানী দাস উপজেলা উত্তর ইউনিয়নের আমোদাবাদ গ্রামের দাসপাড়ার মৃত গোপাল চন্দ্র দাসের ছেলে। এর আগেও পারিবারিক অশান্তির কারণে প্রথম স্ত্রী ও এক শিশু সন্তানের মুখে বিষ দিয়ে হত্যা করেন প্রমোদ চন্দ্র দাস। ওই ঘটনায়  তার সাজাও হয়েছিল। সম্প্রতি জেল থেকে মুক্তি পান প্রমোদ। 

স্থানীয় ইউপি সদস্য কুতুব উদ্দিন জানান, সরস্বতী রানী দাসের সঙ্গে তার মানসিক রোগী ছেলে প্রমোদ চন্দ্র দাসের দ্বিতীয় স্ত্রী সাবিত্রী রানী দাস পারিবারিক তুচ্ছ ঘটনা নিয়ে শুক্রবার রাতে ঝগড়া করেছিল। এ সময় প্রমোদ চন্দ্র দাস হঠাৎ উত্তেজিত হয়ে তার মাকে লাঠি দিয়ে আঘাত করে। এতে তার বৃদ্ধা মা আহত হন। শনিবার সকালে সরস্বতী মারা যান।

খবর পেয়ে আখাউড়া থানার উপ-পুলিশ পরিদর্শক আবু বকর লাশ উদ্ধার করে ব্রাহ্মণবাড়িয়া সদর হাসপাতাল মর্গে পাঠান। স্বামী-স্ত্রী দুজনে পলাতক রয়েছে। এখনো তাদের গ্রেপ্তার করতে পারেনি পুলিশ।

(ঢাকাটাইমস/২০মে/প্রতিনিধি/জেডএ)

সংবাদটি শেয়ার করুন

বাংলাদেশ বিভাগের সর্বাধিক পঠিত

বিশেষ প্রতিবেদন ফিচার বিনোদন খেলাধুলা
  • সর্বশেষ
  • সর্বাধিক পঠিত