রোগ জীবাণু দূর করতে জোয়ানের আশ্চর্যজনক উপকারিতা

স্বাস্থ্য ডেস্ক, ঢাকাটাইমস
| আপডেট : ২২ সেপ্টেম্বর ২০২০, ১২:৫৩ | প্রকাশিত : ২২ সেপ্টেম্বর ২০২০, ০৯:৫১

জোয়ান অ্যাপিয়াসি পরিবারের অন্তর্ভুক্ত বর্ষজীবি উদ্ভিদ। যাকে বিজ্ঞানের ভাষায় ডাকা হয় ট্রেসিস্পেরমাম আম্মি। দেখতে অনেকটা ধনে গাছের মতো। জৈন, জোয়ান বা আজওয়াইন গাছ নামেও পরিচিত। ফুল দেখতে সাদা বর্ণ। সাধারণত এটি মসলা হিসেবে অনেক রান্নার প্রস্তুতিতে ব্যবহৃত হয়। জোয়ান খাবারের গন্ধ বৃদ্ধি করে এবং তার নিরাময় ও ঔষধি বৈশিষ্ট্যের জন্য পরিচিত। হজমের সমস্যা, পেটের যন্ত্রণার লক্ষণ, দীর্ঘস্থায়ী কোষ্ঠকাঠিন্য, এবং ঠান্ডা ও কাশির নিরাময় করে। জোয়ান থাইমল নামে একটি উপাদান ধারণ করে যা একটি শক্তিশালী জীবাণুনাশক ও ছত্রাকনাশক হিসাবে কাজ করে এবং অনাকাঙ্ক্ষিত প্যাথোজেনগুলোর বিকাশে বাধা দেয়।

আমাদের দেশে আবহাওয়ার পরিবর্তনের সাথে সাথে ছোট-খাটো শারীরিক সমস্যা, যেমন - সর্দি, কাশি, জ্বর, বমি এগুলো লেগেই থাকে। আর এই সমস্ত রোগ থেকে মুক্তি পেতে ইমিউনিটি পাওয়ার অত্যন্ত গুরুত্বপূর্ণ ভূমিকা পালন করে জোয়ান। নিয়মিত শরীরচর্চা ছাড়াও জোয়ানে এমন কিছু জিনিস রয়েছে, যা আমাদের রোগ প্রতিরোধ ক্ষমতা বাড়িয়ে বিভিন্ন রোগে আক্রান্ত হওয়া থেকে রক্ষা করে। ইমিউনিটি পাওয়ার বাড়ানোর জন্য, ঘরোয়া উপায়ে স্বাস্থ্যকর ভেষজ জোয়ানের পানীয়।

ভেষজ জোয়ানের পানীয় সহজেই সর্দি-কাশি ও সাধারণ জ্বর নিরাময় করার ক্ষমতা রাখে। পাশাপাশি এটি আপনার রোগ প্রতিরোধ ক্ষমতাও শক্তিশালী করবে। জোয়ানে অনেক অ্যান্টিঅক্সিডেন্ট থাকে, যা আমাদের সংক্রমণ থেকে রক্ষা করে।

জোয়ানে প্রচুর পুষ্টি থাকে, যা শরীরকে সুস্থ ও ফিট রাখতে সহায়তা করে। এছাড়াও, এতে অ্যান্টি-ইনফ্ল্যামেটরি, অ্যান্টি-ব্যাকটেরিয়াল এবং অ্যান্টি-ফাঙ্গাল বৈশিষ্ট্য রয়েছে যা সর্দি-কাশির কমাতে অত্যন্ত উপকারী। যেভাবে বানাবেন ভেষজ জোয়ানের পানীয়:

উপকরণ

জোয়ান : ১/২ চামচ

তুলসী পাতা: পাঁচটি

গোলমরিচ গুঁড়া: ১/২ চামচ

মধু : ১ টেবিল চামচ

প্রণালি

একটি পাত্রে এক গ্লাস পানি, জোয়ান, গোলমরিচ গুঁড়া এবং তুলসী পাতা দিন। এবার এই পানি পাঁচ মিনিট ফুটিয়ে নিন। মিশ্রণটি একটু ঠান্ডা হওয়ার পর তাতে মধু দিন। এবার ভালভাবে মিশিয়ে এটি পান করুন।

জোয়ানের ভেষজ উপকারিতা

কাশি দূর করে: নিয়মিত অল্প একটু করে যোয়ান খেলে সর্দি কাশির কষ্ট দূর হয়।

ম্যালেরিয়া জ্বর সারায়: জোয়ান খেলে ম্যালেরিয়া জ্বরের শীতের প্রকোপ কম হয়, ঘাম দিয়ে জ্বর ছাড়ে।

সর্দি দূর করে: জোয়ান পিষে পেঁয়াজের রস মিশে শরীরে মালিশ করলে ঘাম বেরিয়ে সর্দির কষ্ট দূর হয় এবং শরীর মনে ফুর্তি আসে। যোয়ান পিষে পুটলি তৈরি করে নাকে কলে সর্দি কমে যায়।

শ্বাস কষ্ট দূর করে: জোয়ান গরম জলের সঙ্গে মিশিয়ে খাওয়ালে শ্বাসের কষ্ট দূর হয়। যোয়ানের আরক খেলেও উপকার পাওয়া যায়।

পেটের অসুখে: জোয়ান খেয়ে গরম জল খেলে পেটের শূল ব্যথা কমে যায়। মুখে থুতুর আধিক্য, অজীর্ণ এবং বদ্ধ বায়ুর প্রকোপ উপশম হয়।

অম্ল দূর করে: তাওয়ায় জোয়ান সেঁকে নিয়ে সম পরিমাণ সৈন্ধব লবণ মিশিয়ে পিষে ফেলতে হবে। গরম জলের সঙ্গে এই চুর্ণ খানিকটা খেলে পেটের বায়ু দূর হয়।

আমবাত সারে: জোয়ান গুড় মিশিয়ে খেলে আমবাত সারে যায়।

প্রসূতির জন্য উপকার: জোয়ান খাওয়ালে প্রসূতির খিদে বেড়ে যায়, খাবার হজ্জম হয়, অধোবায়ু মুক্ত হয়, কোমরের ব্যথা কমে আর গর্ভাশয়ের শুদ্ধি হয়।

বহুমূত্র রোগে উপকার : জোয়ান আর তিল একসঙ্গে পিষে খেলে বহুমূত্র রোগের (ডায়বেটিসের) প্রকোপ কমে।

অর্শর ব্যথা কমাতে: জোয়ান আর গুড় সমপরিমাণে নিয়ে একসঙ্গে মিশিয়ে পিষে সকাল ও সন্ধেবেলা অল্প অল্প করে খেলে অর্শর ব্যথা কমে কোমরের ব্যথা সেরে যায়।

বিভিন্ন কারনে হাত-পা ঠাণ্ডা হয়ে যাওয়া: যোয়ান জল দিয়ে পিষে শরীরে মালিশ করলে ঠাণ্ডা হয়ে যাওয়া শরীর গরম হয়। জোয়ানের পুটুলি তৈরি করে তাওয়ায় গরম করে হাতে পায়ে সেঁক দিলে কলেরা বা আন্ত্রিক রোগ, টাইফয়েড বা হাঁপানির কষ্টের জন্যে যদি হাত-পা ঠাণ্ডা হয়ে গিয়ে থাকে ক্রমশ গরম হয়ে ওঠে।

(ঢাকাটাইমস/২২ সেপ্টেম্বর/আরজেড/এজেড)

সংবাদটি শেয়ার করুন

ফিচার বিভাগের সর্বাধিক পঠিত

বিশেষ প্রতিবেদন বিজ্ঞান ও তথ্যপ্রযুক্তি বিনোদন খেলাধুলা
  • সর্বশেষ
  • সর্বাধিক পঠিত

শিরোনাম :