কালিয়াকৈরে ৩৯টি ইটভাটার ১৪টিই অবৈধ

আশিকুর রহমান, কালিয়াকৈর (গাজীপুর)
 | প্রকাশিত : ০৯ মার্চ ২০২১, ১২:৩৮

গাজীপুরের কালিয়াকৈর উপজেলার বিভিন্ন এলাকায় ৩৯টি ইটভাটার মধ্যে ১৪টিই অবৈধ। নীয়মনীতি না মেনে উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্স, ইউনিয়ন পরিষদ, হাট-বাজার, স্কুল-কলেজ, মাদ্রাসা, রেললাইনের আশপাশের দুই ফসলি জমিতে এসব ইটভাটা চলছে।

সম্প্রতি অবৈধ ইটভাটার বিরুদ্ধে অভিযানে নামে গাজীপুর জেলা পরিবেশ অধিদপ্তর। অভিযানে উপজেলার চাপাইর ইউনিয়নের বড়ইবাড়ী ন্যাশনাল ব্রিকস-১ ও ন্যাশনাল ব্রিকস-২ মালিককে ১২ লাখ টাকা করে, ভূঙ্গাবাড়ী এলাকার মেসার্স ভ্যান্ডার ব্রিকস, দরবাড়িয়া এলাকার মেসার্স ন্যাশনাল ব্রিকস, স্ট্রং ব্রিকস ও মেসার্স রাইমা ব্রিকসের প্রত্যেক মালিককে ছয় লাখ টাকা করে জরিমানা করা হয়।

কিন্তু দীর্ঘ দেড়মাস পার হলেও রহস্যজনক কারণে বাকি নয়টি অবৈধ ইটভাটায় এখনো কোনো অভিযান পরিচালনা করেনি পরিবেশ অধিদপ্তর।

অন্যদিকে পরিবেশ অধিদপ্তরের অভিযানে বন্ধ হওয়ার পরদিন থেকেই আবার এসব অবৈধ ইটভাটা নির্বিঘ্নে চলছে। এছাড়া উপজেলার অধিকাংশ ইটভাটায় অবাধে চলছে অমানবিক শিশুশ্রম। শিশুদের দিয়ে অল্প মূল্যে করানো হচ্ছে ইট পরিবহনসহ ভারি ও ঝুঁকিপূর্ণ কাজ। যেকোন সময় অনাকাঙ্ক্ষিত দুর্ঘটনার শিকার হতে পারে এসব শিশু শ্রমিক।

বাংলাদেশ মানবাধিকার বাস্তবায়ন সংস্থা কালিয়াকৈর শাখার সাধারণ সম্পাদক ইমরান হোসেন হান্নান বলেন, কালিয়াকৈরে অধিকাংশ ইটভাটায় অবাধে শিশুশ্রম চলছে। তিনি ইটভাটায় শিশুশ্রম বন্ধে প্রশাসনের হস্তক্ষেপ কামনা করেন।

এ ব্যপারে গাজীপুর জেলা পরিবেশ অধিদপ্তরের উপ-পরিচালক আব্দুস সালাম সরকার বলেন, সিডিউলের কারণে কালিয়াকৈরে অভিযান পরিচালনা করা সম্ভব হচ্ছে না। তা ছাড়া ইটভাটা আইন বাস্তবায়নের বিষয় শুধু পরিবেশ অধিদপ্তরের নয়, ইটপুড়ানো আইন জেলা প্রশাসনের আওতায়ও রয়েছে।

তিনি বলেন, পরিবেশ অধিদপ্তর কয়টা অভিযান পরিচালনা করেছে এবং অন্যান্য অধিদপ্তর কয়টা অভিযান পরিচানা করেছে সেটাও দেখবেন।

আব্দুস সালাম বলেন, ঢাকা থেকে ম্যাজিস্ট্রেট আসছেন। দ্রুত কালিয়াকৈরে অবৈধ ইটভাটায় ফের অভিযান পরিচালনা করা হবে।

(ঢাকাটাইমস/৯মার্চ/কেএম)

সংবাদটি শেয়ার করুন

বাংলাদেশ বিভাগের সর্বাধিক পঠিত

বিশেষ প্রতিবেদন বিজ্ঞান ও তথ্যপ্রযুক্তি বিনোদন খেলাধুলা
  • সর্বশেষ
  • সর্বাধিক পঠিত

শিরোনাম :