নেই বেড, সারি সারি চেয়ারে অক্সিজেনসহ রোগী

আন্তর্জাতিক ডেস্ক
 | প্রকাশিত : ০৯ মে ২০২১, ১১:৪৮

করোনাভাইরাস মহামারিতে ধরাশায়ী ভারত। একের পর এক রাজ্য বিধ্বস্ত হচ্ছে অচেনা এই ভাইরাসে। দেশটিতে অক্সিজেন ও প্রয়োজনীয় ওষুধের ভয়াবহ সংকট দেখা দিয়েছে। সংবাদমাধ্যমে প্রকাশিত ছবি ও ভিডিওতে দেখা গেছে, হাসপাতালের জরুরি বিভাগসহ কোথাও বেড খালি নেই। ভেতরে সারি সারি চেয়ারে বসে আছেন অক্সিজেন মাস্ক পরা অসংখ্য রোগী। এই মর্মান্তিক ছবিই বলে দিচ্ছে ভারতে করোনা পরিস্থিতি কতটা ভয়াবহ।

ওয়ার্ল্ডোমিটারের তথ্য অনুযায়ী, গত একদিনে দেশটিতে নতুন করে মৃত্যু হয়েছে ৪ হাজার ১৩৩ জনের। একই সময়ে নতুন করে আক্রান্ত হয়েছেন ৪ লাখ ৯ হাজার ৩০০ জন।

দেশটিতে এখন পর্যন্ত করোনায় আক্রান্ত হয়েছেন, ২ কোটি ২২ লাখ ৯৬ হাজার ৪১৪ জন। মৃত্যু হয়েছে দুই লাখ ৪২ হাজার ৩৯৮ জনের। সুস্থ হয়েছেন এক কোটি ৮৩ লাখ ১৭ হাজার ৪০৪ জন।

ভারতে প্রতিদিনই সংক্রমণ ও মৃত্যুর সংখ্যা আগের রেকর্ডকে ছাড়িয়ে যাচ্ছে। প্রচণ্ড অক্সিজেন সংকটে মৃত্যু হয়েছে বহু মানুষের। শ্মশানে জায়গার সংকুলান না হওয়ায় দিল্লিসহ কয়েক রাজ্যে গণচিতা তৈরি করা হয়েছে। খোঁড়া হচ্ছে গণকবর এবং মরদেহ পোড়াতে বানানো হয়েছে অস্থায়ী শ্মশান।

স্বাস্থ্যকর্মীরা জানিয়েছেন, এর আগে এমন অবস্থা কখনো দেখেননি তারা। ভারতে এখন যে হারে আক্রান্তের সংখ্যা বাড়ছে তার গতি যুক্তরাষ্ট্রের চেয়ে অনেক বেশি। ভারতে এমন পরিস্থিতি চলমান থাকলে যুক্তরাষ্ট্রও পেছনে পড়ে যাবে। করোনার প্রকোপ ভয়াবহ আকার ধারণ করায় ভারতে স্বাস্থ্য ব্যবস্থা ভেঙে পড়েছে।

যুক্তরাষ্ট্রের মিশিগান বিশ্ববিদ্যালয়ে বৈশ্বিক জনস্বাস্থ্যর অধ্যাপক এবং রোগতত্ত্ববিদ ভ্রমর মুখার্জি ভারতের করোনাভাইরাস পরিস্থিতির সম্পর্কে বিবিসিকে বলেছেন, ভাইরাস অন্তরালে তার কাজ করে চলেছে, দ্বিতীয় রাউন্ডে নামার আগে, সে নিজেকে আরও সতেজ ও সবল করে তুলছে, অতর্কিতে ছোবল মারবে, যখন আমরা আমাদের মাস্ক নামিয়ে দিয়েছি, দিক দিগন্তের অবগুণ্ঠন আবার তার আক্রমণের আহ্বানে খোলা।

মহামারির ইতিহাস পড়লে দেখা যায় যে দ্বিতীয় ঢেউ অনেক সময়েই হয়ে ওঠে জলোচ্ছ্বাস, কারণ ঠিক এই ইতিহাসেরই পুনরাবৃত্তি ঘটে বারংবার, মনুষ্যচরিত্রে আসে বিধিনিষেধ লঙ্ঘন করার স্বভাবগত প্রবৃত্তি ও তার প্রতিদ্বন্দ্বী ধূর্ত ভাইরাসের ঘটে দ্রুত বিবর্তন। ভারতেও এই দুটি প্রক্রিয়ার সমাপাতন ঘটেছে। নূতন সব রূপ ধারণ করেছে ভাইরাস, তার জিনোমটাকে বদলে নিয়ে।

তিনি বলেন, মনে রাখবেন এটা শেষ ঢেউ নয়। এবার যে ভুল করেছি আমরা আর যেন না হয়। টিকা নিন। এটাই আমাদের এই যুদ্ধ থেকে বেরোনোর বিজয়-টিকা। তারপরও বাইরে বেরোলে মাস্ক পরে থাকুন।

ঢাকাটাইমস/০৯মে/একে

সংবাদটি শেয়ার করুন

আন্তর্জাতিক বিভাগের সর্বাধিক পঠিত

বিশেষ প্রতিবেদন বিজ্ঞান ও তথ্যপ্রযুক্তি বিনোদন খেলাধুলা
  • সর্বশেষ
  • সর্বাধিক পঠিত

শিরোনাম :