১০ হাজার কিলোমিটার নৌপথ খনন করতে সক্ষম হব: নৌ প্রতিমন্ত্রী

নিজস্ব প্রতিবেদক, ঢাকাটাইমস
 | প্রকাশিত : ১৭ জুন ২০২১, ২২:১৬
ফাইল ছবি

বাংলাদেশ অভ্যন্তরীণ নৌপরিবহন কর্তৃপক্ষের (বিআইডব্লিউটিএ) ড্রেজিংয়ের সক্ষমতা বৃদ্ধি পাওয়ায় ১০ হাজার কিলোমিটার নৌপথ খনন করা সম্ভব হবে বলে জানিয়েছেন নৌপরিবহন প্রতিমন্ত্রী খালিদ মাহমুদ চৌধুরী।

বৃহস্পতিবার পটুয়াখালী নদী বন্দর ও গলাচিপা উপজেলার বগা লঞ্চঘাট পরিদর্শনকালে তিনি এ কথা বলেন।

এসময় অন‍্যান‍্যের মধ‍্যে সংসদ সদস‍্য এস এম শাহাজাদা, বিআইডব্লিউটিএর চেয়ারম‍্যান কমডোর গোলাম সাদেক, সদস‍্য (পরিকল্পনা ও পরিচালন) মো. দেলোয়ার হোসেন ও প্রধান প্রকৌশলী (ড্রেজিং) মো. আব্দুল মতিন উপস্থিত ছিলেন।

প্রতিমন্ত্রী বলেন, বিআইডব্লিউটিএর ড্রেজিংয়ের ক্ষেত্রে সক্ষমতা বৃদ্ধি পেয়েছে। এ পর্যন্ত ২,৫০০ কিলোমিটার নৌপথ খনন করা হয়েছে। ১০,০০০ কিলোমিটার নৌপথ খনন করতে আমরা সক্ষম হব। দক্ষিণাঞ্চলের মানুষের নৌপথে যাতায়াত সহজ রাখতে প্রয়োজনীয় ড্রেজিং অব‍্যাহত থাকবে। নদী তীর ভাঙনরোধে এবং নদীর প্রবাহ ঠিক রাখতে নৌপথ ড্রেজিংয়ের কাজ অব‍্যাহত থাকবে।

প্রতিমন্ত্রী আজ সকালে ঢাকা থেকে নারায়ণগঞ্জ হয়ে বিআইডব্লিউটিএর পরিদর্শী জাহাজযোগে নৌপথে পটুয়াখালীতে পৌঁছেন।

পটুয়াখালী নদী বন্দরের নিয়ন্ত্রণে ৩৪টি লঞ্চঘাট রয়েছে। প্রতিদিন এ নদী বন্দরের টার্মিনাল থেকে তিনটি ডাবল ডেকার ও তিনটি একতলা লঞ্চ চলাচল করে থাকে। টার্মিনালে বর্তমানে একটি দ্বিতল ভবন এবং একটি পার্কিং ইয়ার্ড রয়েছে। এছাড়াও যাত্রী সাধারণের উঠানামার জন‍্য চারটি পন্টুন ও তিনটি গ‍্যাংওয়ে রয়েছে। ঢাকা-পটুয়াখালী নৌপথের দূরত্ব ২৫২ কিলোমিটার।

প্রতিমন্ত্রী এর আগে বগা লঞ্চঘাট পরিদর্শন করেন। ঘাটটি ১৯৭৫ সালে চালু হয়। ঘাটটি পটুয়াখালী জেলার বাউফল উপজেলার বগা ইউনিয়নের লৌহালিয়া নদীর তীরে অবস্থিত। যাত্রী সাধারণের বিশ্রামের জন্য এখানে একটি যাত্রী ছাউনি এবং যাত্রী সাধারণের লঞ্চে উঠানামার জন্য দু’টি পন্টুন ও দু’টি গ্যাংওয়ে রয়েছে। প্রতিদিন এ ঘাট দিয়ে তিনটি ডাবল ডেকার ও দু’টি একতলা লঞ্চ চলাচল করে। ঢাকা-বগা নৌপথের দূরত্ব ২৩৮ কিলোমিটার।

ঢাকাটাইমস/১৭জুন/ইএস

সংবাদটি শেয়ার করুন

জাতীয় বিভাগের সর্বাধিক পঠিত

বিশেষ প্রতিবেদন বিজ্ঞান ও তথ্যপ্রযুক্তি বিনোদন খেলাধুলা
  • সর্বশেষ
  • সর্বাধিক পঠিত

শিরোনাম :