গোবিন্দকে একহাত নিলেন এমপি বাহার, গ্রেপ্তার দাবি

নিজস্ব প্রতিবেদক, ঢাকাটাইমস
| আপডেট : ১৮ অক্টোবর ২০২১, ২১:২৪ | প্রকাশিত : ১৮ অক্টোবর ২০২১, ২১:১৫
গোবিন্দ প্রামাণিক ও বাহাউদ্দিন বাহার (ফাইল ছবি)

কুমিল্লায় পবিত্র কোরআন অবমাননাকে কেন্দ্র করে দেশের বিভিন্ন স্থানে প্রতিমা ভাঙচুর ও হামলার ঘটনা ঘটে। এসব হামলার প্রতিবাদে দেশের বিভিন্ন স্থানে বিক্ষোভ, সম্প্রীতি সমাবেশ হচ্ছে। একাধিক মামলায় অনেককে গ্রেপ্তারও করা হয়েছে। এমন পরিস্থিতির মধ্যে কুমিল্লায় আওয়ামী লীগের পক্ষ থেকে সমাবেশ থেকে হিন্দু মহাজোটের মহাসচিব গোবিন্দ প্রামাণিকের কড়া সমালোচনা করলেন স্থানীয় সংসদ সদস্য বীর মুক্তিযোদ্ধা আ ক ম বাহাউদ্দিন। সংসদ সদস্যের দাবি, গোবিন্দ প্রামাণিককে গ্রেপ্তার করলেই কারা পূজামণ্ডপে হামলা করেছে তা বের হয়ে আসবে। এজন্য তাকে গ্রেপ্তারের দাবি জানিয়েছেন।

সোমবার বিকালে কুমিল্লার টাউন হল মাঠে মহানগর আওয়ামী লীগ আয়োজিত ‘সাম্প্রদায়িক অপশক্তির বিরুদ্ধে সম্প্রীতির পক্ষে গণ জমায়েত’ অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথির বক্তৃতায় তিনি এই দাবি জানান।

কুমিল্লার বিভিন্ন মন্দির ও পূজামণ্ডপে হামলা, ভাঙচুর ও অগ্নিসংযোগের ঘটনায় এখন পর্যন্ত পাঁচটি মামলায় ৬২ জনের নাম উল্লেখসহ অজ্ঞাতনামা ৫০০ জনকে আসামি করা হয়। এসব মামলায় পুলিশ এ পর্যন্ত ৪০ জনকে গ্রেপ্তার করেছে।

এছাড়া সারাদেশে একাধিক জায়গায় হামলা, ভাঙচুর ও বাড়িঘরে অগ্নিসংযোগের ঘটনায় মামলা হয়েছে। অনেককে গ্রেপ্তারও করা হয়েছে।

সরকারের পক্ষ থেকে এসব ঘটনায় জড়িতদের বিরুদ্ধে কঠোর ব্যবস্থা নেওয়ার কথা বলা হয়েছে। অন্যদিকে এসব ঘটনার জন্য সরকারকে দায়ী করে বক্তব্য দিচ্ছেন বিএনপি নেতারা। তারা বলছেন, জনগণের নজর ভিন্নখাতে নিতে সরকার পরিকল্পিতভাবে এই ঘটনা ঘটিয়েছে।

কুমিল্লায় সব ধর্মের মানুষের একসঙ্গে বসবাস উল্লেখ করে বাহাউদ্দিন বলেন, ‘এখানে সবার মধ্যে সম্প্রীতি আছে। যারা চক্রান্ত করেছেন, তাদের কঠোর হস্তে দমন করা হবে। এই ক্ষেত্রে প্রশাসনের দায়বদ্ধতা আছে। আমরাও তাদের সঙ্গে কাজ করব। সাম্প্রদায়িক সম্প্রীতি বিনষ্টকারীদের কোনোভাবেই ছাড় দেওয়া হবে না।’

সাংসদ বলেন, গোবিন্দ প্রামাণিককে গ্রেপ্তার করতে হবে। তাকে গ্রেপ্তার করলেই কারা পূজামণ্ডপে হামলা করেছে, তা বেরিয়ে আসবে। তিনি সারা দেশের মানুষকে উসকে দিচ্ছেন।’

অনলাইনভিত্তিক একটি টকশোতে গত শনিবার রাতে গোবিন্দ প্রামাণিক কুমিল্লার ঘটনার পেছনে স্থানীয় রাজনৈতিক দ্বন্দ্ব দায়ী থাকতে পারে বলে মন্তব্য করেন। তিনি বলেন, স্থানীয় লোকজন ও হিন্দু সম্প্রদায়ের নেতারা তাকে বলেছেন, কুমিল্লা সদর আসনের এমপি বীর মুক্তিযোদ্ধা আ ক ম বাহাউদ্দিন বাহার ও মেয়র মনিরুল হক সাক্কুর রাজনৈতিক দ্বন্দ্বের জেরে এমন ঘটনা ঘটেছে।

গোবিন্দ প্রামাণিকের গ্রেপ্তার দাবির পক্ষে যৌক্তিকতা তুলে ধরে এমপি বাহার বলেন, ‘অর্থ -বিত্ত, টাকা-পয়সার লোভে সারা দেশে মুসলিম মৌলবাদীরা যেমন সংঘাত ছড়াচ্ছে, হিন্দু মৌলবাদীরাও সংঘাত ছড়াচ্ছে। তেমনই একজন গোবিন্দ প্রামাণিক। তিনি বিভিন্ন জায়গায় উসকানিমূলক বক্তব্য দিচ্ছেন। তিনি বলেন, এই দ্বন্দ্ব ওমুকে করেছে, তমুকে করেছে। অমুকের কারণে হইছে, তমুকের কারণে হইছে। তাকে গ্রেপ্তার করা হোক, নিশ্চয়ই তার কাছে তথ্য আছে।’

বাহার বলেন, ‘এর আগেও কুমিল্লায় নানাভাবে সম্প্রীতি বিনষ্টের চেষ্টা চালিয়েছে ষড়যন্ত্রকারীরা। আমরা তাদের প্রতিহত করেছি। এবার আবার কুমিল্লায় ষড়যন্ত্রের বীজ বোনা হয়েছে, তবে এখানকার হিন্দু-মুসলমান ভাই ও প্রশাসনের দৃঢ়তায় প্রাণহানির ঘটনা ঘটেনি।’

গোবিন্দ প্রামাণিককে উদ্দেশ্য করে এমপি বাহার বলেন, ‘আপনি কোন ফাঁকে এলেন, কোন ফাঁকে গেলেন? আপনার যদি শক্তি থাকে তাহলে আবার কুমিল্লায় আসেন। আপনাকে হিন্দুরাই মোকাবিলা করবে।’

কুমিল্লার ঘটনার রেশ ধরে রংপুরে হিন্দু ভাইদের ঘরবাড়ি পুড়িয়ে দেওেয়া হয়েছে উল্লেখ করে হামলাকারীদের উদ্দেশে তিনি বলেন, ‘একটু সাবধান থাকবেন মিয়া ভাইয়েরা। আপনাদের কাউকে ছাড় দেওয়া হবে না। আপনারা যেমন মানুষের ঘরবাড়ি জ্বালিয়ে দিচ্ছেন, পেট্রল ঢেলে আপনাদের ঘরবাড়িও জ্বালিয়ে দেওয়া হবে।’

পরে একটি গণমাধ্যমে গোবিন্দ প্রামাণিকের গ্রেপ্তারের দাবির বিষয়ে সাংসদ বাহাউদ্দিন বলেন, ‘গোবিন্দ প্রামাণিক পূজামণ্ডপে হামলার পর কুমিল্লায় এসেছেন। কে কে এই কাজ করেছেন, তা তিনি বিভিন্ন মন্দির ও মণ্ডপে গিয়ে বলেছেন। তিনি সারা দেশের এজেন্ট। তাকে ধরলে সব বেরিয়ে আসবে।’

কুমিল্লা মহানগর আওয়ামী লীগের সহসভাপতি ও কুমিল্লার আদালতের সরকারি কৌঁসুলি (পিপি) বীর মুক্তিযোদ্ধা জহিরুল ইসলামের সভাপতিত্বে অনুষ্ঠানে মহানগর আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক আরফানুল হক, যুগ্ম সাধারণ সম্পাদক আবিদুর রহমান প্রমুখ বক্তব্য দেন।

(ঢাকাটাইমস/১৮অক্টোবর/বিইউ/জেবি)

সংবাদটি শেয়ার করুন

রাজনীতি বিভাগের সর্বাধিক পঠিত

বিশেষ প্রতিবেদন বিজ্ঞান ও তথ্যপ্রযুক্তি বিনোদন খেলাধুলা
  • সর্বশেষ
  • সর্বাধিক পঠিত

শিরোনাম :