নামেই আছে জেব্রাক্রসিং, কাজে নেই

শেখ সাইফ, ঢাকাটাইমস
| আপডেট : ২৮ জুন ২০২২, ১১:৩৪ | প্রকাশিত : ২৮ জুন ২০২২, ১১:২৫

নাজমা আনোয়ার সন্তানের হাত ধরে রমনা থানার বিপরীত দিকে রাস্তার পাশে দাঁড়িয়ে আছেন। গাড়ি গতি একটু থামলেই জেব্রা ক্রসিং দিয়ে রাস্তা পার হবেন তিনি। কিন্তু গতি আর কমে না। অনেকক্ষণ দাঁড়িয়ে থাকার পর গাড়ির সংখ্যা একটু কম হলে দ্রুত রাস্তা পার হয়ে সড়কের মাঝখানের ডিভাইডারে ওঠেন। সেখানেও তাকে অপেক্ষা করতে হয়- কখন গাড়ির সংখ্যা একটু কমবে। নাজমা আনোয়ারের মতোই রাস্তা পার হচ্ছিলেন ঢাকা টাইমসের এ প্রতিবেদক। রাস্তার অপর পাশে গিয়ে আলাপ করেন এই পথচারীর সঙ্গে। কথা বলে জানা যায়, এভাবেই প্রতিদিন জেব্রা ক্রসিং দিয়ে রাস্তা পার হন নাজমা আনোয়ার। তার মেয়ে শান্তা তাবাসসুম ভিখারুননিসা নূন স্কুল অ্যান্ড কলেজের সপ্তম শ্রেণির শিক্ষার্থী। তাকে নিয়ে প্রতিদিনই এ পথে চলতে হয়।

নাজমা আনোয়ার বলেন, ‘কাকরাইল-মগবাজার সড়কের এ জায়গায় একটা ফুটওভার ব্রিজ খুব প্রয়োজন। রাস্তা পারাপার খুব ঝুঁকিপূর্ণ। জেব্রা ক্রসিং থাকলেও সেখান দিয়ে পার হওয়া যায় না। কারণ কোনো গাড়িই গতি থামায় না। তাই গাড়ি আসা একটু কমলেই দৌড়ে রাস্তা পার হতে হয়।’

রাজধানীর এই একটি জায়গার জেব্রা ক্রসিংয়ের চিত্রই যে এমন তা নয়। সরেজমিনে দেখা যায়, কাকরাইল মোড়, শান্তিনগর, মৎস্য ভবন মোড়, পল্টন মোড় সব জায়গায়ই জেব্রা ক্রসিং দিয়ে পার হতে একই সমস্যা। কোনো গাড়িই গতি কমায় না। গাড়ির সংখ্যা একটু কমে এলেই জেব্রা ক্রসিং দিয়ে দৌড়ে রাস্তা পার হন পথচারীরা।

মৎস্য ভবনের পাশেই পেট্রোল পাম্প। সেখানে মোটরসাইকেল আরোহীদের কাছে জানতে চাইলে তারা এই প্রতিবেদককে বলেন, ‘রাস্তায় সব গাড়ি চলমান থাকলে তখন সবাইকে একই গতিতে চলতে হয়। কেউ থামে না বা গতি কমায় না। এজন্য আমরাও গতি কমাতে পারি না।’

প্রাইভেট কার চালক জব্বার হোসেন রাজধানীতে দীর্ঘ ১৫ বছর ধরে গাড়ি চালান। তিনি এই প্রতিবেদককে বলেন, ‘আগে কিছুটা নিয়ম মানা হলেও এখন মোটেই গাড়ির গতি কমানো হয় না। কেউ নিয়ম মানে না।’

পথচারীদের নিরাপদে রাস্তা পার হওয়ার জন্য সড়কের কালো পিচের ওপর আড়াআড়ি সাদা দাগ কেটে জেব্রা ক্রসিং করা হয়। শিক্ষাপ্রতিষ্ঠান, বাজার, হাসপাতাল, বিপণিবিতানসহ জনসমাগমের জায়গাগুলোতে সহজ ও নিরাপদে পারাপারের জন্যই মূলত জেব্রা ক্রসিং দেওয়া হয়।

সাধারণ নিয়ম হলো, জেব্রা ক্রসিংয়ের আগে সাদা দাগ সামনে রেখে গাড়ি থামতে হবে। কিন্তু সে নিয়ম মানা হচ্ছে না।

এ নিয়ে কথা হয় পুরাতন রমনা থানার সামনে যানবাহন নিয়ন্ত্রণের দায়িত্বে থাকা লতিফুরের সঙ্গে। তিনি বলেন, ‘এক কথায় বলব, কেউ মানে না এখন। মাঝে মাঝে আমরা নিজেদের তাগিদে অনেক পথচারীকে গাড়ি থামিয়ে পার করে দিই। অসচেতনতা এবং আইন না মানার কারণেই বর্তমানে এই অবস্থা।’

এই ট্রাফিক পুলিশ বলেন, ‘চালকদের মধ্যে সচেতনতা ও দায়িত্ববোধ সৃষ্টি না হলে সড়কে শৃঙ্খলা ফেরানো খুবই কঠিন। রাজধানীর বিভিন্ন সিগন্যাল এলাকা এবং অন্য যেসব জায়গায় জেব্রা ক্রসিং রয়েছে সেগুলোর সঠিক ব্যবহার হলে সড়কের বিশৃঙ্খলা রোধ করা সম্ভব। জেব্রা ক্রসিংগুলোই হতে পারে সড়কে নৈরাজ্যের সমাধান।’

সম্প্রতি নগরীর রাস্তায় বিদ্যমান জেব্রা ক্রসিংগুলো ব্যবহারের চেষ্টা চালাচ্ছে পুলিশ ও সিটি করপোরেশন। পথচারীদের জেব্রা ক্রসিং ব্যবহারের অনুরোধ জানানো হচ্ছে। কিন্তু নগরীর বিভিন্ন এলাকা ঘুরে দেখা যায়, যেসব স্থানে জেব্রা ক্রসিং আছে, সেখানে এর ব্যবহার তেমন নেই। অনেক জায়গায় ক্রসিংয়ের সাদা দাগের ওপরই যানবাহন থেমে থাকছে।

জেব্রা ক্রসিংয়ের কাছাকাছি এলে গাড়ির গতি কমানোর নিয়ম রয়েছে। কিন্তু বেশির ভাগ চালক সেটা মানেন না। তারা জানেন না জেব্রা ক্রসিংয়ে গাড়ি থামাতে হয়। পথচারীদের পারাপারের সময় কিংবা হাত দিয়ে ইশারা দেওয়া হলেও গাড়ির গতি কমে না।

(ঢাকাটাইমস/২৮জুন/এসকেএস/এফএ)

সংবাদটি শেয়ার করুন

বিশেষ প্রতিবেদন বিভাগের সর্বাধিক পঠিত

বিশেষ প্রতিবেদন বিজ্ঞান ও তথ্যপ্রযুক্তি বিনোদন খেলাধুলা
  • সর্বশেষ
  • সর্বাধিক পঠিত

শিরোনাম :