বেকার বানানোর চক্রান্তকারীদের কাঠগড়ায় তুলব: মিশা

অনলাইন ডেস্ক
| আপডেট : ০৮ মে ২০১৭, ১০:৫০ | প্রকাশিত : ০৮ মে ২০১৭, ০৮:৩৫

বাংলা চলচ্চিত্রের জনপ্রিয় খলনায়ক অভিনেতা মিশা সওদাগর। সদ্য অনুষ্ঠিত চলচ্চিত্র শিল্পী সমিতির ১৪তম নির্বাচনে তিনি সভাপতি নির্বাচিত হয়েছেন। তার নেতৃত্বে নতুন কমিটি দেশের চলচ্চিত্রের জন্য বন্ধুভাবাপন্ন হবে বলে মনে করা হচ্ছে। ‘চলচ্চিত্রবান্ধব’ নতুন কমিটির পরিকল্পনা ও জরুরি করণীয় সম্পর্কে জানতে নবনির্বাচিত সভাপতির সঙ্গে কথা বলেছে ঢাকাটাইমস। নাতিদীর্ঘ সাক্ষাৎকারটি নিয়েছেন সিরাজুম সালেকীন।

চলচ্চিত্র শিল্পী সমিতির নির্বাচনে সভাপতি নির্বাচিত হওয়ায় আপনাকে অভিনন্দন।

মিশা: ধন্যবাদ।

দুই বছরের জন্য দায়িত্ব পেয়েছেন। এই সময়ে বাস্তবায়নের জন্য আপনার পরিকল্পনা জানতে চাইছি।

মিশা: পরিকল্পনার বিষয়টি নির্বাচনী ইশতেহারে বলেছি আমরা। এর একটি হলো উপদেষ্টা কমিটি গঠন। যেখানে চলচ্চিত্রের সিনিয়রদের উপদেশ গ্রহণ করে কাজ করা হবে। এ ছাড়া শিল্পীদের বেকার বানানোর চক্রান্তকারীদের কাঠগড়ায় দাঁড় করানো, যৌথ প্রযোজনার ছবির ক্ষেত্রে সরকারি নীতিমালার সঠিক প্রয়োগ, বাংলাদেশের বাজার দখলের অপচেষ্টা বন্ধ করে দেশীয় চলচ্চিত্র নির্মাণে বাধাবিপত্তি ও সমস্যা চিহ্নিতকরণ ও সমাধান; চলচ্চিত্র ও শিল্পীদের উন্নয়নে কাজ করাসহ ২১টি বিষয় রয়েছে আমাদের পরিকল্পনায়।

দেশে প্রেক্ষাগৃহসহ চলচ্চিত্রে এক ধরনের স্থবিরতা চলছে। এ থেকে উত্তরণে জরুরিভাবে কী পদক্ষেপ নেয়া উচিত?

মিশা: বাংলাদেশে যতগুলো চলচ্চিত্র সমিতি আছে বা চলচ্চিত্র পরিবার আছে, সবাইকে নিয়ে যত তাড়াতাড়ি সম্ভব বসব। যেসব হাউজ বন্ধ হয়ে গেছে, সেসব হাউজের মালিকদের নিয়ে মিটিং হবে। তাদের চলচ্চিত্রে ফিরিয়ে আনার চেষ্টা করব। এ ছাড়া পরিকল্পনা আছে বাজেট কমিয়ে লজিস্টিক সাপোর্টের মাধ্যমে কীভাবে সুন্দর ছবি বানানো যায়।

শিল্পীদের কল্যাণের জন্য কী ভাবছেন?

আমার পরিকল্পনায় রয়েছে অসুস্থ শিল্পীদের জন্য সরকারি অনুদান সংগ্রহের চেষ্টা করা। আমরা সমিতির পক্ষ থেকেও তাদের সাহায্য করব।

সমিতি কীভাবে সাহায্য করবে, টাকা কোথা থেকে আসবে?

আমরা ১ কোটি টাকার একটা ফান্ড করব। টাকা আসবে বিভিন্ন প্রোগাম করে, বিভিন্ন কর্পোরেট অফিসে গিয়ে ফান্ড জোগাড় করব। এই ফান্ড ব্যাংকে ফিক্সড ডিপোজিট করে রাখব। সেখান থেকে পাওয়া লভ্যাংশ দিয়ে অসুস্থ শিল্পীদের সাহায্য করা হবে।

নতুন শিল্পীদের মান উন্নয়নে কোনো পরিকল্পনা আছে কি না?

মিশা: ভাবনার মধ্যে যে নেই তা নয়। তবে একবারে অনেক কিছু করব বললে আসলে কিছুই করা হয় না। সবাই ভোট দিয়ে আমাদের নির্বাচিত করেছে চলচ্চিত্রের উন্নয়নের জন্য। সে লক্ষ্যে কাজ শুরু করব। আশা করি মিডিয়াসহ সবাইকে পাশে পাব।

সময় দেবার জন্য আপনাকে ধন্যবাদ।

মিশা: আপনাকেও ধন্যবাদ।

(ঢাকাটাইমস/৮মে/এজেড/মোআ)

সংবাদটি শেয়ার করুন

বিনোদন বিভাগের সর্বাধিক পঠিত

বিশেষ প্রতিবেদন ফিচার বিনোদন খেলাধুলা
  • সর্বশেষ
  • সর্বাধিক পঠিত