জগন্নাথে ‘বিশ্ব সংহতির জন্য রসায়ন’ শীর্ষক সিম্পোজিয়াম

জবি প্রতিনিধি, ঢাকাটাইমস
 | প্রকাশিত : ১৪ অক্টোবর ২০১৬, ১৮:৪০

উন্নত ভবিষ্যতের জন্য রসায়ন স্লোগানকে সামনে রেখে জগন্নাথ বিশ্ববিদ্যালয়ের (জবি) রসায়ন বিভাগের উদ্যোগে দিনব্যাপী সিম্পোজিয়াম অনুষ্ঠিত হয়েছে।

শুক্রবার সকাল ৯টায় জগন্নাথ বিশ্ববিদ্যালয়ের কেন্দ্রীয় মিলনায়তনে এই সিম্পোজিয়াম শুরু হয়ে চলে দিনব্যাপী।

রসায়ন বিভাগের চেয়ারম্যান অধ্যাপক ড. মো. শাহাজাহানের সভাপতিত্বে প্রধান অতিথি হিসেবে সিম্পোজিয়ামের উদ্বোধন করেন বাংলাদেশ বিশ্ববিদ্যালয় মঞ্জুরি কমিশনের চেয়ারম্যান অধ্যাপক আব্দুল মান্নান।

প্রধান অতিথি বলেন, ‘ইউনেস্কো প্রতিবেদন অনুসারে বিশ্বে মৌলিক বিজ্ঞান শিক্ষার্থীর সংখ্যা ক্রমশ হ্রাস পাচ্ছে। এর প্রধান কারণ বিজ্ঞান শিক্ষা প্রচুর ব্যয়বহুল। সেইদিকে আমাদের দেশে বিজ্ঞান শিক্ষার্থীর সংখ্যা ততটা কম নয়-দেশে এখনো অনেক বিজ্ঞান শিক্ষার্থী রয়েছে। তবে উন্নত গবেষণার জন্য আমরা হয়তো তাদের পর্যাপ্ত রিসোর্স দিতে সক্ষম হচ্ছি না। উন্নত বিশ্বের সাথে তাল মিলিয়ে আমাদের দেশেও নানা বিষয়ে গবেষণা হচ্ছে। সারা বিশ্বে শিক্ষাব্যবস্থার বিবর্তন হচ্ছে। আমাদের দেশেও সে তুলনায় শিক্ষাব্যবস্থার বিবর্তন হচ্ছে।’

আব্দুল মান্নান বলেন, ‘এই ধরনের সিম্পোজিয়ামের মাধ্যমে গবেষকদের মাঝে মত-বিনিময় ও যৌথ গবেষণা বৃদ্ধি পাবে। জগন্নাথ বিশ্ববিদ্যালয়ের শিক্ষার মান অনেক বৃদ্ধি পাচ্ছে-নীরবে শিক্ষাকেন্দ্রিক বিপ্লব ঘটাচ্ছে। আগামী ৫-১০ বছরে জগন্নাথ বিশ্ববিদ্যালয় আরও উন্নত হবে এবং গর্ব করার মতো প্রতিষ্ঠানে পরিণত হবে।’

এ ধরনের সিম্পোজিয়াম রসায়ন গবেষণায় গুরুত্বপূর্ণ ভূমিকা রাখার আশাবাদ ব্যক্ত করে প্রধান পৃষ্ঠপোষকের বক্তব্যে উপাচার্য অধ্যাপক ড. মীজানুর রহমান বলেন, ‘আমাদের দেশে পাসের হার বৃদ্ধি পাচ্ছে এবং শিক্ষার মান হ্রাস পাচ্ছে-বলে সমালোচনা করা হয়। উন্নত বিশ্বে পাশের হার হ্রাস পেলে বিভিন্ন কমিটি করা হয়। প্রকৃতপক্ষে বর্তমান সরকারের আমলে শিক্ষার মান অনেক বৃদ্ধি পেয়েছে। আধুনিক তথ্য-প্রযুক্তি ব্যবহারের ফলে আগের চেয়ে আমাদের শিক্ষার মান ও গবেষণা অনেক বৃদ্ধি পাচ্ছে।’

ভিসি বলেন, ‘জগন্নাথ বিশ্ববিদ্যালয়ে ভালো শিক্ষক ও শিক্ষার্থীদের ঘাটতি নেই। সর্বশেষ বিসিএস পরীক্ষায় সংখ্যার দিক থেকে জগন্নাথ বিশ্ববিদ্যালয়ের শিক্ষার্থীরা দ্বিতীয় স্থানে ছিল। তবে শিক্ষার্থীদের আরও উন্নয়নে যোগাযোগের দক্ষতা বৃদ্ধি করতে হবে।’

সিম্পোজিয়ামে বিশেষ অতিথি হিসেবে মওলানা ভাসানী বিজ্ঞান ও প্রযুক্তি বিশ্ববিদ্যালয়ের উপাচার্য এবং বাংলাদেশ পাবলিক বিশ্ববিদ্যালয় পরিষদের প্রেসিডেন্ট অধ্যাপক ড. মো. আলাউদ্দীন, বাংলাদেশ বিশ্ববিদ্যালয় মঞ্জুরি কমিশনের সদস্য অধ্যাপক ড. মোহাম্মাদ ইউসুফ আলী মোল্লা, বাংলাদেশ বিশ্ববিদ্যালয় মঞ্জুরি কমিশনের প্রাক্তন সদস্য, ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের অবসরপ্রাপ্ত অধ্যাপক ও বাংলাদেশ রসায়ন সমিতির প্রাক্তন প্রেসিডেন্ট অধ্যাপক ড. মো. মুহিবুর রহমান এবং গণবিশ্ববিদ্যালয়ের প্রাক্তন উপাচার্য অধ্যাপক ড. মেসবাহউদ্দিন আহমেদ উপস্থিত ছিলেন।

আমাদের জীবনযাত্রার মান উন্নত করার ক্ষেত্রে রসায়নের অবদান অগ্রগণ্য উল্লেখ করে সার বক্তব্য প্রদানকালে অধ্যাপক ড. মো. মুহিবুর রহমান ভবিষ্যত প্রজন্মের জন্য বায়ু, পানি ও পরিবেশ দূষণ রোধসহ চিকিৎসা, কৃষি, স্বাস্থ্যসেবার উন্নয়নে আমরা কিভাবে উন্নত বিশ্বের মতো রসায়নের জ্ঞানকে কাজে লাগতে পারি সে বিষয়ে আলোকপাত করেন।

প্রসঙ্গত, দিনব্যাপী এ সিম্পোজিয়ামে ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়সহ দেশব্যাপী বিভিন্ন বিশ্ববিদ্যালয়ের শিক্ষক, শিক্ষার্থী ও রসায়নবিদদের তিনটি মূল বক্তব্য, দুটি প্লিনারি লেকচার, ২৭টি আমন্ত্রিত বক্তৃতা, সাতটি মৌখিক উপস্থাপনা এবং ৬০টি পোস্টার প্রেজেন্টেশন উপস্থাপিত হয়। এসময় জগন্নাথ বিশ্ববিদ্যালয়সহ বিভিন্ন পাবলিক ও বেসরকারি বিশ্ববিদ্যালয়ের শিক্ষক ও শিক্ষার্থী, সাংবাদিকরা উপস্থিত ছিলেন।

(ঢাকাটাইমস/১৪অক্টোবর/ইসরাফিল/জেবি)

সংবাদটি শেয়ার করুন

শিক্ষা বিভাগের সর্বাধিক পঠিত

বিশেষ প্রতিবেদন ফিচার বিনোদন খেলাধুলা
  • সর্বশেষ
  • সর্বাধিক পঠিত