গুলিতে নিহত ৩

ঠাকুরগাঁও আদালতে বিজিবির বিরুদ্ধে মামলার আবেদন

ঠাকুরগাঁও প্রতিবেদক, ঢাকাটাইমস
| আপডেট : ২০ ফেব্রুয়ারি ২০১৯, ২২:২৬ | প্রকাশিত : ২০ ফেব্রুয়ারি ২০১৯, ২২:২৩
ফাইল ছবি

গরু জব্দ নিয়ে গ্রামবাসীর সঙ্গে সংঘর্ষের সময় গুলিতে তিনজন নিহতের ঘটনায় সীমান্তরক্ষী বাহিনী বিজিবির বিরুদ্ধে ঠাকুরগাঁও আদালতে মামলার আবেদন করা হয়েছে। বুধবার হরিপুর আমলি আদালতের বিচারক ফারহানা খানের আদালতে পৃথক তিনটি মামলার আবেদন করেন নিহতের স্বজনেরা। বাদীপক্ষের আইনজীবী ছিলেন মো. মানিক।

নিহত নবাবের বাবা নজরুল ইসলাম, সাদেকের ভাই মো. বাসেদ ও শিশু জয়নালের পিতা নুর ইসলাম বাদী হয়ে মামলার আর্জি করেছেন।

মামলায় ৫০ বিজিবির অধিনায়ক লে. কর্নেল তুহিন মো. মাসুদসহ সংস্থাটির ছয় সদস্যের নাম উল্লেখ করে আরও অনেককে অজ্ঞাত আসামি করা হয়।

আদালত তাৎক্ষণিকভাবে আদেশ দেয়নি। তবে আগামী রবিবার বিচারক মামলাটি গ্রহণ করা হবে কি না মর্মে আদেশের জন্য দিন ধার্য করেছেন।

মামলার বাদী নজরুল, বাসেদ ও নুর ইসলাম অভিযোগ করেন, থানায় লিখিত অভিযোগ দিয়েও পুলিশ মামলা না নেয়ায় তারা আদালতের শরণাপন্ন হয়েছেন। তারা আশা করছেন, আদালত মামলাটি গ্রহণ করবে এবং তারা স্বজন হত্যার বিচার পাবেন।

বাদীপক্ষের আইনজীবী মো. মানিকও আশা করেন, আদালত মামলাটি গ্রহণ করে ন্যায়বিচার পাওয়ার পথ সুগম করবে।

গত ১২ ফেব্রুয়ারি হরিপুরের বেতনা বিওপির টহল দল বকুয়া ইউনিয়নের বহরমপুর গ্রামের হবিবর রহমানের বাড়িতে অভিযান চালিয়ে কয়েকটি গরু চোরাই পথে ভারত থেকে আনা হয়েছে সন্দেহে আটক করে। পরে গরুগুলো পিকআপে তুলে বিওপিতে নিতে চাইলে গ্রামবাসী বাধা দেয় এবং লাঠিসোটা নিয়ে বিজিবিকে ঘেরাও করে। উত্তেজিত জনতা পিকআপ থেকে গরু নামিয়ে নিলে বিজিবির সদস্যরা গুলি ছোড়েন। এতে সংঘর্ষ বেধে যায়। সংঘর্ষের সময় সাদেক আলী (৪০), নবাব আলী (২৫) ও  জয়নুল  (১২) নামে তিনজন গুলিবিদ্ধ হয়ে মারা যান। আহত হন ১৫ জন। এ ঘটনায় বিজিবি বাদী হয়ে গ্রামবাসীর বিরুদ্ধে মামলা করেছে। এছাড়া এই ঘটনায় গঠিত তদন্ত কমিটি কাজ করছে।

(ঢাকাটাইমস/২০ফেব্রুয়ারি/জেবি)

সংবাদটি শেয়ার করুন

বাংলাদেশ বিভাগের সর্বাধিক পঠিত

বিশেষ প্রতিবেদন বিজ্ঞান ও তথ্যপ্রযুক্তি বিনোদন খেলাধুলা
  • সর্বশেষ
  • সর্বাধিক পঠিত

শিরোনাম :