বই পড়ে, মামলার ফাইল ঘেঁটে সময় কাটছে আইনজীবীদের

আমিনুল ইসলাম মল্লিক, ঢাকা টাইমস
| আপডেট : ২৭ মার্চ ২০২০, ২০:১৮ | প্রকাশিত : ২৭ মার্চ ২০২০, ১৯:৫৫

সকাল ১০টা থেকে বিকেল ৪টা পর্যন্ত কোর্টে থাকতে হয় বিভিন্ন মামলায় রাষ্ট্রপক্ষে আইনী লড়াই করতে। শুধু তাই নয় নিজের কিছু মামলা করেন তারা। দিন শেষে অ্যাটর্নি জেনারেল কার্যালয় ও ব্যাক্তগত চেম্বারেও সময় দিতেন মামলা মোকাদ্দমা নিয়ে। অংশ নিতেন বিভিন্ন সামাজিক ও পারিবারিক অনুষ্ঠানে।

সব কিছুই যেন এলোমেলো। একদম ঘরবন্দী হয়ে সময কাটাতে হচ্ছে। বই পড়ে মামলার ফাইল ঘাটাঘাটির পাশাপাশি টিভি দেখে। কিছুটা চিন্তা ও আতঙ্ক কাজ করছে।

এরকমই বলছিলেন সুপ্রিম কোর্টে রাষ্ট্রপক্ষে নিয়োজিত কয়েকজন ডেপুটি অ্যাটর্নি জেনারেল।

এদের মধ্যে অনেকে প্রায় ১০ ধরে ঘরবন্দী। বের হচ্ছন না করেনা ভাইরাস কোভিট-১৯ এর ভয়ে। সচেতন থাকতে। পরিবার পরিজন নিয়ে আছেন সতর্কতার সঙ্গে।

শুক্রবার দুপুরে এমন অভিজ্ঞতার কথা জানান রাষ্ট্রপক্ষের আইনজীবী এ কেএম আমিন উদ্দিন মানিক।

তিনি বলেন, গত ১৮ মার্চ কোর্টে গিয়েছিলাম। ১৯ মার্চ থেকে ঘরেই আছি। বের হচ্ছি না। পরিবার পরিজন নিয়ে সময় পার করছি। ২৬ মার্চ স্বাধীনতা দিবস আনুষ্ঠানিক ভাবে পালন করতে পারিনি।

বসায় থাকতে আনইজি লাগছে। একঘেয়েমিও কাজ করছে কিছুটা।

বাসায় বসে সময় পার করছেন কীভাবে? এমন প্রশ্নের জবাবে তিনি বলেন, বই পড়ছি। গৃহের কাজে সময় দিচ্ছি। টিভি দেখছি। মামলার কিছু ফাইল বাসায় নিয়ে এসেছি। সেগুলো নড়াচড়া করেই সময় পার করছি। আসলে কিছু করার নেই। করোনা ভাইরাস বিশ্বব্যাপী যেভাবে আক্রমণ করেছে তাতে ঘরে বসে থাকাই লাভ। আমাদেন প্রধানমন্ত্রীও ঘরে বসে থাকার জন্য বলেছেন। এদিকে সুপ্রিম কোর্ট ১০দিনে সাধারণ ছুটি ঘোষণা করেছে। আগামী ৫ এপ্রিল কোর্টে যাব।

গৃহে থেকে মনে হচ্ছে জেলে আছি। কখনো জেলে যাইনি। কিন্তু করোনা ভাইরাস কোভিট-১৯ কে ঘরে বসে মোকাবেলা করতে জেলের কষ্টটা বুঝতে পারছি। এমন কথা জানালেন রাষ্ট্রপক্ষের আরেক ডেপুটি অ্যাটর্নি জেনারেল গিয়াস উদ্দিন আহম্মেদ।

তিনি বলেন, দুর্বিষহ মনে হচ্ছে। বাইরে না যেতে পেরে ভালো লাগছে না। অলস হয়ে গেছি। শুয়ে বসে সময় কাটছে না। বোরিং লাগছে। সবই করছি করোনা ভাইরাস কোভিট-১৯ থেকে সাবধানে থাকার জন্য।

আশা করছি আর কিছু দিন গেলে সমস্যা অনেক কমে আসবে আল্লার রহমতে।

২১ মার্চ থেকে বাইরে বের হচ্ছেন না ডেপুটি অ্যাটর্নি জেনারেল তুষার কান্তি রায়। তিনি বলেন, আমি ঘরবন্দী হয়ে আছি। সময কাটছে বই পড়ে। সুপ্রিম কোর্টের সব কিছুই বন্ধ। সাধারণ ছুটি ঘোষণা করা হয়েছে।

বই পড়ার ভালো সুযোগ পেয়েছেন মন্তব্য করে ডেপুটি অ্যাটর্নি জেনারেল ফজলুর রহমান খান বলেন, করোনা ভাইরাস কোভিট-১৯ কে কেন্দ্র করে বাসাতেই সময় পার করছি। বই পড়ছি। বিভিন্ন মামলার রেফারেন্স দেখছি। ঘাটাঘাটি করছি বিভিন্ন আইন নিয়ে। আমার বাসায় লাইব্রেরি আছে। এখানে অনেক বই রেখেছি। আইনের বইসহ অন্যান্য বইও। এই মুহূর্তে আমি আরব জাতির ইতিহাস নামেন একটি বই পড়ছি। সময় পেলেই আমি বই পড়ি। আমার বই পড়ার অভ্যাস অনেক আগে থেকেই।

সুপ্রিম কোর্টে নিয়মিত ১০ বছর ওকালতির পর একজন আইনজীবী ডেপুটি অ্যাটর্নি জেনারেল হিসেবে নিয়োগ পাওয়ার যোগ্যতা রাখেন।

এই আইনজীবীরা বার কাউন্সিলে তালিকা ভুক্তি লাভের পর দীর্ঘদিন দিন ধরে ওকালতি করছেন। তাদের কর্মজীবনে ব্যস্ততা থাকা স্বাভাবিক। রাষ্ট্রীয় মামলায় আইনী লড়াইয়ের পাশাপাশি অনেক ব্যক্তিগত মামলাতেও সময় দিতে হয়। কিন্তু প্রাণঘাতি করোনা ভাইরাস কোভিট-১৯ থেকে সতর্ক থাকতে সবাই এখন ঘরবন্দী।

(ঢাকা টাইমস/২৭ মার্চ/এআইএম/এজেড)

সংবাদটি শেয়ার করুন

আদালত বিভাগের সর্বাধিক পঠিত

বিশেষ প্রতিবেদন বিজ্ঞান ও তথ্যপ্রযুক্তি বিনোদন খেলাধুলা
  • সর্বশেষ
  • সর্বাধিক পঠিত

শিরোনাম :