‘হত্যার পর’ হাসপাতালে লাশ রেখে পালালেন স্বামী

ময়মনসিংহ প্রতিনিধি, ঢাকাটাইমস
 | প্রকাশিত : ২৮ নভেম্বর ২০২০, ২১:৩১

ময়মনসিংহে স্ত্রী শ্বাসরোধে হত্যার পর মরদেহ ময়মনসিংহ মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে রেখে স্বামী পালিয়ে গেছেন- এমনটাই ধারণা করছে পুলিশ।

নিহত গৃহবধূর নাম মুয়মুন মুনা (২৫)। তিনি ময়মনসিংহ নগরীর জামতলা মোড় এলাকার আব্দুল জলিলের মেয়ে। নিহত মুনার চার বছর বয়সী একটি কন্যা সন্তান রয়েছে।

শুক্রবার রাত সাড়ে ৯টার দিকে ময়মনসিংহ মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে এ ঘটনা ঘটে।

ময়মনসিংহ কোতোয়ালি থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) ফিরোজ তালুকদার জানান, ২০১৪ সালে জামতলা মোড়ের নাসিম হোসেনের ছেলে ফুয়াদ হোসেনের সঙ্গে একই এলাকার মুয়মুন মুনার বিয়ে হয়।

তিনি আরও জানান, বিয়ের পর থেকেই তাদের মধ্যে বিভিন্ন বিষয় নিয়ে বনিবনা হচ্ছিল না। ধারণা করা হচ্ছে, এর জের ধরে ফুয়াদ তার স্ত্রীকে শ্বাসরোধে হত্যার পর গলায় রশি বেঁধে আত্মহত্যার বলে চালতে চেয়েছিল। পরে মরদেহ হাসপাতালে রেখে ফুয়াদসহ তার বাড়ির লোকজন পালিয়েছে। পলাতকদের আটকের চেষ্টা চলছে। মরদেহ ময়নাতদন্তের জন্য ময়মনসিংহ মেডিকেল কলেজ হাসপাতাল মর্গে পাঠানো হয়েছে।

নিহতের মামা ফারুক হোসেন বলেন, শুক্রবার রাত ৯টার দিকে ফুয়াদ তাদের মোবাইল ফোনে কল করে জানায় মুনা অসুস্থ, তাকে হাসপাতালে নিতে হবে। পরে মুনাকে হাসপাতালে রেখে ফুয়াদ পালিয়ে যায়।

তিনি আরও অভিযোগ করে বলেন, শ্বশুরবাড়ির লোকজন প্রায়ই যৌতুকের জন্য মুনাকে মারধর করত। সংসার টিকানোর জন্য জায়গা বিক্রি করেও ফুয়াদকে টাকা দেয়া হয়েছে। কিন্তু ফুয়াদ মুনাকে মেরে গলায় রশি লাগিয়ে ফ্যানের সঙ্গে ঝুলিয়ে রাখে।

(ঢাকাটাইমস/২৮নভেম্বর/এলএ)

সংবাদটি শেয়ার করুন

বাংলাদেশ বিভাগের সর্বাধিক পঠিত

বিশেষ প্রতিবেদন বিজ্ঞান ও তথ্যপ্রযুক্তি বিনোদন খেলাধুলা
  • সর্বশেষ
  • সর্বাধিক পঠিত

বাংলাদেশ এর সর্বশেষ

এই বিভাগের সব খবর

শিরোনাম :