জলাবদ্ধতায় তিন বছর ধরে আমন চাষ হয় না গ্রামটিতে

নুরনবী ইসলাম, খানসামা (দিনাজপুর)
 | প্রকাশিত : ০৫ আগস্ট ২০২১, ১৮:৪০

দিনাজপুরের খানসামা উপজেলার ভাবকি ইউনিয়নের রামনগর গ্রামে জলাবদ্ধতার কারণে তিন বছর ধরে আমন ধানের চাষাবাদ করতে পারছেনা কৃষকরা। সরেজমিনে গিয়ে দেখা গেছে, রামনগর উচ্চ বিদ্যালয়ের দক্ষিণে জলাবদ্ধতার কারণে তিন ফসলি জমি এখন এক ফসলি জমিতে পরিণত হয়েছে। এখন কেবল বোরো মৌসুমে একবার ধান উৎপাদন করতে পারছেন এ এলাকার কৃষকরা। বিশাল এলাকা জুড়ে পানি আর শেওলা।

স্থানীয় এক ব্যক্তি পানি চলাচলের কালভার্ট বন্ধ করে দিয়ে বাড়ি নির্মাণ করায় এ অবস্থার সৃষ্টি হয়েছে বলে জানান কৃষকরা। দেখা গেছে, যখন উপজেলা জুড়ে পানির অভাবে সেচযন্ত্রের সাহায্যে কৃষকরা আমনের চারা রোপণ করছে, তখন রামনগর এলাকায় প্রায় অর্ধ শতাধিক বিঘা জমি জলাবদ্ধতার কারণে পড়ে আছে। এতে এ গ্রামের কৃষকরা ক্ষতির সম্মুখীন হচ্ছেন।

রামনগর এলাকার নাসির উদ্দীন, মোমিনুল ইসলাম, হামিদ, সফিকুল ইসলাম, ছকিমউদ্দীনসহ ভুক্তভোগী কৃষকরা বলেন, গত তিন বছর আগে স্থানীয় সাফিয়ার রহমান পানি পারাপারের কালভার্ট বন্ধ করে দিয়ে বাড়ি নির্মাণ করে। তখন থেকেই জলাবদ্ধতার কারণে তিন ফসলি জমিতে বছরে একবার আবাদ করতে হচ্ছে। কালভার্টের মুখ খুলে দিয়ে ৫০/৬০ ফুট দীর্ঘ একটি ড্রেনেজ ব্যবস্থা করা গেলেই পানি নিষ্কাশনের মাধ্যমে এসব জমিতে বছরে তিনবার ফসল উৎপাদন করা সম্ভব হবে। আয়ের প্রধান উৎস ব্যাহত হওয়ায় তিন বছর ধরে তাদের সংসার চালাতে হিমশিম খেতে হচ্ছে।

ভাবকি ইউপি চেয়ারম্যান সফিকুল ইসলাম বলেন, কালভার্ট বন্ধ করায় এ জলাবদ্ধতা দেখা দিয়েছে। গত বছর শেষের দিকে পাইপের সাহায্যে জলাবদ্ধতা নিরসন করে আংশিক আমন চাষ করা হয়েছিল। তবে এ জলাবদ্ধতা দূরীকরণে দীর্ঘমেয়াদি পরিকল্পনা গ্রহন করতে হবে।

এ প্রসঙ্গে উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা আহমেদ মাহবুব-উল-ইসলাম বলেন, এ বিষয়ে অভিযোগ পেয়েছি। জলাবদ্ধ ফসলের মাঠ পরিদর্শনের পর সমস্যা চিহ্নিত করে শিগগিরই জলাবদ্ধতা নিরসনে প্রয়োজনীয় নেওয়া হবে।

(ঢাকাটাইমস/৫আগস্ট/পিএল)

সংবাদটি শেয়ার করুন

বাংলাদেশ বিভাগের সর্বাধিক পঠিত

বিশেষ প্রতিবেদন বিজ্ঞান ও তথ্যপ্রযুক্তি বিনোদন খেলাধুলা
  • সর্বশেষ
  • সর্বাধিক পঠিত

শিরোনাম :