হাতিরঝিলে সাংবাদিকের লাশ উদ্ধারের ঘটনায় মামলা

নিজস্ব প্রতিবেদক, ঢাকাটাইমস
 | প্রকাশিত : ০৮ জুন ২০২২, ২১:৪৭

রাজধানীর হাতিরঝিল থেকে বেসরকারি টেলিভিশন চ্যানেল ডিবিসি নিউজের প্রডিউসার আবদুল বারীর লাশ উদ্ধারের ঘটনায় মামলা হয়েছে। গুলশান থানায় অজ্ঞাতনামা কয়েকজনকে আসামি করে হত্যা মামলা করেছেন নিহতের বড় ভাই আবদুল আলিম।

বুধবার সকালে পুলিশ প্লাজার পাশে ফজলে রাব্বি পার্কের পেছনে লেকের ধার থেকে ক্ষতবিক্ষত লাশটি উদ্ধার করা হয়।

পুলিশের গুলশান জোনের সহকারী কমিশনার নিউটন দাস ঢাকাটাইমসকে বিষয়টি নিশ্চিত করেছেন। নিউটন দাস বলেন, ‘ধারণা করা হচ্ছে মঙ্গলবার রাতে যেকোন সময় তাকে অজ্ঞাত দুর্বৃত্তরা এখানে এনে এলোপাতাড়ি কুপিয়ে মৃত্যু নিশ্চিত করে ফেলে গেছে।

সহকারী পুলিশ কমিশনার বলেন, ‘ইতোমধ্যে পুলিশের অপরাধ তদন্ত বিভাগের (সিআইডি) ক্রাইম ইউনিট ও ডিবির ক্রাইম টিম আলামত সংগ্রহ করেছে। তবে এ ঘটনায় কাউকে গ্রেপ্তার করা যায়নি।’

পুলিশের এই কর্মকর্তা বলেন, ‘ধারণা করা হচ্ছে প্রথমে তাকে ছুরিকাঘাত করে হত্যার চেষ্টা করা হয়। পরে লেকের পাড়ে পানিতে নেমে গেলে তাকে উঠিয়ে নিয়ে এসে গলা কেটে হত্যা করা হয়। লাশের পাশ থেকে মানিব্যাগ, মোবাইল ও হত্যাকাণ্ডে ব্যবহৃত ছুরি উদ্ধার করা হয়েছে।‘

নিহতের লাশ ময়নাতদন্তের জন্য শহীদ সোহরাওয়ার্দী মেডিকেল কলেজ হাসপাতালের মর্গে পাঠায় পুলিশ। পরে সন্ধ্যায় ময়নাতদন্ত শেষ পরিবারের কাছে হস্তান্তর করেন।

আবদুল বারী ডিবিসি নিউজের আগে মোহনা টেলিভিশনের প্রডিউসার হিসেবে কর্মরত ছিলেন। মোহনা টেলিভিশনের সহকারী প্রডিউসার সোহেল রানা ঢাকাটাইমসকে বলেন, ‘আবদুল বারীর গ্রামের বাড়ি সিরাজগঞ্জের চণ্ডীদাস পাড়ায়। তিনি আগে মিরপুরে থাকতেন। পরে মহাখালীতে একটি মেসে ভাড়া থাকতেন। গত মঙ্গলবার দুপুরে তার পরিবারের সদস্যদের সঙ্গে কথা হয়েছে। আগামী সপ্তাহে বিয়ের জন্য পাত্রী দেখতে যাওয়ার কথা ছিল।

আবদুল বারীর বাবা মুদি দোকানি আবদুল্লাহ শেখ কান্নাজড়িত কণ্ঠে সাংবাদিকদের বলেন, ‘আমার ছেলে অত্যন্ত সহজ–সরল। এমন সহজ-সরল ছেলেকে কারা, কী কারণে হত্যা করল? আমি আমার ছেলে হত্যার বিচার চাই। আমরা প্রধানমন্ত্রীর হস্তক্ষেপ কামনা করছি।’

আবদুল্লাহ শেখ জানান, টেলিভিশন চ্যানেলে সংবাদ পরিবেশন বা প্রচার নিয়ে আবদুল বারীর সঙ্গে ঢাকায় কারও কোনো ঝামেলা ছিল কি না বলতে পারেন না তিনি। কিন্তু সিরাজগঞ্জে তার কোনো শত্রু ছিল না। এলাকায় আবদুল বারী ছিলেন সবার স্নেহের।

তিন বোন ও দুই ভাইয়ের সংসারে বারী খুবই আদরের ছিলেন। বড় ভাই আলীম বাবার সঙ্গে মুদি দোকান চালাতেন। বোনদের দুজনের সিরাজগঞ্জে আর একজনের ঢাকার উত্তরায় বিয়ে হয়েছে। অনেকটা কষ্ট ও সংগ্রাম করেই ঢাকার বাংলাদেশ ইউনিভার্সিটি অব বিজনেস অ্যান্ড টেকনোলজি (বিউবিটি) থেকে প্রকৌশলে পড়াশোনা করেছেন বারী। তিনি ঢাকার মালিবাগ ওয়্যারলেস গেট এলাকায় একটি মেসে ভাড়া থাকতেন।

ডিবিসি নিউজের প্রধান প্রতিবেদক রাজীব ঘোষ। তিনি বলেন, আবদুল বারী ডিবিসি নিউজের প্রযোজক ছিলেন। মঙ্গলবার তার সাপ্তাহিক ছুটি ছিল। এ কারণে তিনি অফিসে যাননি। আবদুল বারী মহাখালীতে অবস্থিত ডিবিসি নিউজ কার্যালয়ের কাছে একটি মেসে থাকতেন বলে জানান তার সহকর্মীরা।

গুলশান বিভাগ উপ-পুলিশ কমিশনার (ডিসি) আসাদুজ্জামান জানান, রাজধানীর হাতিরঝিলের লেকের পাড় থেকে উদ্ধার কার লাশের গলায় ও বুকের নিচে আঘাতের চিহ্ন দেখতে পেয়েছি। যে স্থান থেকে মরদেহটি উদ্ধার করা হয়েছে সেটি অনেক নীরব এলাকা। প্রাথমিকভাবে ধারণা করছি তাকে হত্যা করা হয়েছে। নিহত বারী ঘটনাস্থলে কেনো এসেছেন বা কার সঙ্গে এসেছে জানতে কাজ করছি। হত্যায় কে বা কারা জড়িত তাদের গ্রেপ্তারের চেষ্টা করছি।

এই হত্যার কারণ জানতে সিসিটিভির ফুটেজ সংগ্রহ করা হয়েছে কি না জানতে চাইলে ডিসি নাজমুল হাসান বলেন, তথ্যপ্রযুক্তির পাশাপাশি সিসিটিভির ফুটেজ সংগ্রহে কাজ চলছে। কীভাবে তিনি ঘটনাস্থলে এসেছেন বা কারা নিয়ে এসেছে সেটা জানার চেষ্টা চলছে।

(ঢাকাটাইমস/০৮জুন/এএইচ/কেএম)

সংবাদটি শেয়ার করুন

গণমাধ্যম বিভাগের সর্বাধিক পঠিত

বিশেষ প্রতিবেদন বিজ্ঞান ও তথ্যপ্রযুক্তি বিনোদন খেলাধুলা
  • সর্বশেষ
  • সর্বাধিক পঠিত

গণমাধ্যম এর সর্বশেষ

এই বিভাগের সব খবর

শিরোনাম :