পাঁচবিবিতে স্বতন্ত্র মেয়র প্রার্থীর মনোনয়ন বাতিল

পাঁচবিবি (জয়পুরহাট) প্রতিনিধি, ঢাকাটাইমস
 | প্রকাশিত : ০১ জুলাই ২০২২, ২১:৪৪

জয়পুরহাটের পাঁচবিবি পৌরসভা নির্বাচনে মেয়র প্রার্থীদের মনোনয়পত্র যাচাই-বাছাইয়ের সময় স্বতন্ত্র মেয়র প্রার্থী সাবেকুন নাহার শিখার প্রার্থিতা অবৈধ ঘোষণা করা হয়। কারণ হিসেবে সমর্থকের স্বাক্ষর ভুয়া উল্লেখ করে মনোনয়নপত্র অবৈধ ঘোষণা করেন উপজেলা নির্বাচন কমিশন। আর এই ঘটনার পর থেকে মেয়র প্রার্থী ও সমর্থনকারী পাল্টাপাল্টি অভিযোগ করেছেন।

উপজেলা নির্বাচন কর্মকর্তা শহিদুল ইসলাম বলেন, প্রার্থীদের মনোনয়নপত্র যাচাই-বাছাইয়ের সময় ওই নারীর কাছে জানতে চাইলে তিঁনি স্বাক্ষর করেননি বলে অফিসের দায়িত্বপ্রাপ্ত কর্মকর্তাকে জানান। পরে তার প্রার্থিতা অবৈধ ঘোষণা করা হয়।

বৃহস্পতিবার মেয়র প্রার্থী সাবেকুন নাহার শিখার প্রার্থিতা অবৈধ ঘোষণা করেন নির্বাচন কমিশন।

এদিকে প্রার্থিতা অবৈধ ঘোষণার পরে বৃহস্পতিবার সন্ধ্যায় পাঁচবিবির দানেজপুর এলাকায় নিজ কার্যালয়ে প্রার্থী সাবেকুন নাহার শিখা তার সমর্থক নার্গিস বেগমের স্বাক্ষর বৈধ দাবি করে এক সংবাদ সম্মেলনের আয়োজন করেন।

সংবাদ সম্মেলনে মেয়র প্রার্থী সাবেকুন নাহার শিখা বলেন, নির্বাচনে অংশগ্রহণের জন্য প্রার্থীদের কাগজপত্র যাচাই-বাছাইয়ের সময় আমার ১০০ জন সাধারণ ভোটারের সমর্থন সম্বলিত স্বাক্ষরের তালিকায় দুই সমর্থকের স্বাক্ষর ভুয়া উল্লেখ করে আমার মনোনয়নপত্র বাতিল করা হয়।

তিনি বলেন, বেলা ১২টার দিকে আমার সমর্থক নার্গিস বেগমকে নিয়ে উপজেলার আটাপুর ইউনিয়ন পরিষদ ভবনে আমি অবস্থান করছিলাম। এই সময় প্রতিপক্ষ মেয়র প্রার্থীর ৬-৭ জন লোক নার্গিসকে ভয়ভীতি দেখিয়ে মোটরসাইকেলে যোগে তুলে নিয়ে যায়। এসয়ম আমাকে ও আটাপুর ইউপি চেয়ারম্যানকে গুলি করার হুমকিও দেয়। এ বিষয়ে আমি থানায় একটি অভিযোগ করেছি।

তিনি আরো বলেন, আমার সমর্থক নার্গিসকে বিভিন্ন ভাবে ভয়ভীতি দেখিয়ে উল্টো তাকে দিয়ে আমার বিরুদ্ধে একটি অপহরণ মামলা করে আমাকে নির্বাচন থেকে দূরে রাখার পাঁয়তারা করা হচ্ছে।

আটাপুর ইউপি চেয়ারম্যান আ স ম আরেফীন চৌধুরী বলেন, আমি ও প্রার্থী সাবেকুন নাহার শিখাসহ কর্মী-সমর্থকদের সঙ্গে কথা বলছিলাম। হঠাৎ প্রতিপক্ষের লোকজন এসে নার্গিস বেগমকে তুলে নিয়ে যায় এবং আমিসহ শিখাকে প্রকাশ্যে গুলি করার হুমকিও দিয়ে যায়।

এদিকে শুক্রবার বিকালে পাঁচবিবি পৌর শহরের দমদমা এলাকার নিজ বাসভবনে নার্গিস বেগম সাংবাদিকদের ডেকে এক সংবাদ সম্মেলন করেছেন।

সংবাদ সম্মলনে লিখিত বক্তব্য পাঠকালে তিনি বলেন, পাঁচবিবি পৌরসভা নির্বাচনে আমার স্বাক্ষর জাল করে মনোনয়নপত্র জমা দেন সাবেকুন নাহার শিখা। মেয়র প্রার্থী সাবেকুন তার তালিকায় আমার স্বাক্ষর দেখিয়েছেন কিন্তু আমি কোন স্বাক্ষর দেয়নি। তাছাড়া অপহরণের ঘটনা সম্পূর্ণ মিথ্যা, ভিত্তিহীন।

নার্গিস বেগম আরো বলেন, ওই মহিলা যে অন্যের স্বাক্ষর জাল করে নির্বাচন করতে চায়, সে আমার পরিবারের নামে মিথ্যা অভিযোগ করায় আমি তার সুষ্ঠু বিচার চাই।

পাঁচবিবি থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) পলাশ চন্দ্র দেব বলেন, এ ঘটনায় উভয় পক্ষ থানায় লিখিত অভিযোগ করেছেন। বিষয়টি তদন্ত করে আইনগত ব্যবস্থা নেওয়া হবে।

(ঢাকাটাইমস/০১জুলাই/এলএ)

সংবাদটি শেয়ার করুন

বাংলাদেশ বিভাগের সর্বাধিক পঠিত

বিশেষ প্রতিবেদন বিজ্ঞান ও তথ্যপ্রযুক্তি বিনোদন খেলাধুলা
  • সর্বশেষ
  • সর্বাধিক পঠিত

বাংলাদেশ এর সর্বশেষ

রডের বদলে বাঁশ! প্রধানমন্ত্রীর দেওয়া ১১টি উপহারের ঘর গুঁড়িয়ে দিয়েছে প্রশাসন

শৈলকুপায় স্কুল ম্যানেজিং কমিটির নির্বাচন নিয়ে সংঘর্ষ, আহত ১০

জমি নিয়ে বিরোধ: পদ্মা সেতু নিয়ে কটূক্তির অভিযোগে হাজতে যুবক!

দাবি না মানলে মঙ্গলবার থেকে ফের অনির্দিষ্টকালের ধর্মঘটের আল্টিমেটাম চা শ্রমিকদের

কক্সবাজারে জেসিআই ঢাকা ইস্টের তৃতীয় এজিএম অনুষ্ঠিত

সাতক্ষীরায় বাস-ট্রাকের ত্রিমুখী সংঘর্ষ, নয় গরুসহ প্রাণ গেল একজনের

পদ্মায় ডাকাত-পুলিশ গোলাগুলি, আটক ৫

ফেনীতে তিন ছিনতাইকারীকে ধোলাই দিয়ে পুলিশে দিলো জনতা

নোয়াখালীতে নিবন্ধন না থাকায় ৪ ক্লিনিকে সিলগালা

মুহুরীগঞ্জ স্কুল স্থানান্তরের উদ্যোগ, প্রতিবাদে সাবেক শিক্ষার্থীদের সমাবেশ

এই বিভাগের সব খবর

শিরোনাম :