ফরিদপুরে প্রবাসীর বাড়িতে ডাকাতি, অস্ত্রসহ নয়জন গ্রেপ্তার

ফরিদপুর প্রতিনিধি, ঢাকাটাইমস
 | প্রকাশিত : ১১ আগস্ট ২০২২, ২০:৪৩

ফরিদপুরের চরভদ্রাসনে প্রবাসীর বাড়িতে ডাকাতির সঙ্গে জড়িত সন্দেহে অস্ত্রসহ নয়জনকে গ্রেপ্তার করেছে পুলিশ। এ সময় ডাকাতি হওয়া স্বর্ণালংকারসহ বিভিন্ন সামগ্রী উদ্ধার করা হয়েছে।

গত ১ আগস্ট দিবাগত রাত আড়াইটার দিকে চরভদ্রাসন উপজেলার এমকে ডাংগি গ্রামে সৌদি প্রবাসী আসলাম সিকদারের বাড়িতে এ ডাকাতির ঘটনা ঘটে। ডাকাতরা জানালার গ্রিল কেটে ঘরের ভেতরে ঢুকে প্রবাসীর স্ত্রী সাবিনা ইয়াসমিন, তার দুই ছেলে ও এক মেয়েকে হাত মুখ বেঁধে অস্ত্রের মুখে আলমারী ও তার নাক-কান এবং গলা হতে স্বর্ণালংকারসহ নগদ টাকা পয়সা নিয়ে যায়। এ ঘটনায় গত ২ আগস্ট চরভদ্রাসন থানায় একটি মামলাদায়ের করা হয়।

পুলিশ যে নয়জনকে গ্রেপ্তার করেছে তারা হলেন, চরভদ্রাসন সদরের বিএসডাঙ্গী গ্রামের রুবেল শেখ (৩৪) ও প্রার্থনা সরকার (২৭), চরসবান্দিয়া মুন্সির ডাঙ্গী গ্রামের ইমন মুন্সি (২৬), বিএস ডাঙ্গী (হেলিপোর্ট) এলাকার মো. নাইম পত্তনদার (২২), ফরিদপুরের সালথা উপজেলার জয়কাইল ছোট বাবুইখোলা গ্রামের জিহাদ মোল্লা (২৪), ফরিদপুরের মধুখালী উপজেলার দাশপাড়া গ্রামের মো. মামুন শেখ (২৭), ফরিদপুর সদরের ভাটি কানাইপুর গ্রামের অন্তর কর্মকার(২২), ফরিদপুরের বোয়ালমারী উপজেলার দেউলি গ্রামের বিল্লাল মোল্লা (২৪) ও রাজবাড়ী জেলার বালিয়াকান্দি উপজেলার শালমারা গ্রামের রিয়াজুল শেখ (৩৫)।

এ ব্যাপারে জেলা পুলিশের উদ্যোগে এক সংবাদ সম্মেলনের আয়োজন করা হয়। এতে লিখিত বক্তব্য পড়ে শোনান ফরিদপুরের অতিরিক্ত পুলিশ সুপার (প্রশাসন ও অর্থ) জামাল পাশা।

লিখিত বক্তব্যে বলা হয় গোপন সংবাদ এবং একটি সোনার দোকানে ডাকাতি করা সোনার গহনা বিক্রির সূত্র ধরে রুবেল ও পরে একে একে ইমন, নাইম, জিয়াদ, বিল্লাসহ অপর ব্যক্তিদের গ্রেপ্তার করা হয়।

এ সময় তাদের কাছ থেকে ডাকাতির কাজে ব্যবহার করা একটি দেশি তৈরি স্বয়ংক্রিয় পিস্তল, একটি দা, একটি ছেনদা, দুটি চাইনিজ কুড়াল, একটি সেলাই রেঞ্জ উদ্ধার করা হয়।

এ ছাড়া ডাকাতি হওয়া ১৩ আনা গলিত স্বর্ণ, তিন আনা স্বর্ণালংকার, এক জোড়া নুপুর ও একটি মুঠোফোন উদ্ধার করা হয়।

ফরিদপুরের অতিরিক্ত পুলিশ সুপার (সদর সার্কেল) সুমন রঞ্জন সরকার বলেন, ডাকাতদের ফেলে যাওয়া একটি চাইনিজ কুড়াল এবং একটি সোনার দোকানে ডাকাতি করা সোনা বিক্রির সুত্র ধরে গত বুধবার সকাল থেকে গভীর রাত পর্যন্ত অভিযান চালিয়ে ওই ব্যাক্তিদের গ্রেপ্তার করা হয়।

সংবাদ সম্মেলনে বলা হয়, ই ডাকাত চক্র ফরিদপুর, রাজবাড়ি, গোপালগঞ্জ সহ আসে পাশের জেলাতে খুন, ডাকাতি করে থাকে। তারা বিদ্যুতের ট্রান্সমিটার এবং টাওয়ারের ব্যাটারিও চুরি করে থাকে।

সংবাদ সম্মেলনে আরও জানানো হয় গ্রেপ্তার হওয়া রুবেল শেখ, রিয়াজুল শেখ ও ইমন মুন্সীর নামে নামে হত্যা, ডাকাতি ও চুরিসহ পাঁচটি করে মামলা রয়েছে। এছড়া মো. মামুন শেখের নামে হত্যা ও ডাকাতিসহ তিনটি মামলা রয়েছে।

এ সময় অন্যদের মধ্যে অতিরিক্ত পুলিশ সুপার (ডিএসবি) মো. হেলালউদ্দিন ভূইয়া, ফরিদপুর কোতয়ালী থানার ভখারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) এম এ জলিল, চরভদ্রাসন থানার ওসি মিন্টু মন্ডল, মামলার তদন্তকারী কর্মকর্তা চরভদ্রাসন থানার উপ-পরিদর্শক (এসআই) প্রবীর রায় উপস্থিত ছিলেন।

মামলার তদন্তকারী কর্মকর্তা এসআই প্রবীর রায় জানান, আসামিদের সাত দিনের রিমান্ডের আবেদন জানিয়ে গতকাল বিকালে আট নম্বর আমলি আদালতে সোপর্দ করা হয়েছে।

( ঢাকাটাইমস/১১আগস্ট/এআর)

সংবাদটি শেয়ার করুন

বাংলাদেশ বিভাগের সর্বাধিক পঠিত

বিশেষ প্রতিবেদন বিজ্ঞান ও তথ্যপ্রযুক্তি বিনোদন খেলাধুলা
  • সর্বশেষ
  • সর্বাধিক পঠিত

শিরোনাম :