চুয়াডাঙ্গায় ফল ব্যবসায়ীকে কুপিয়ে হত্যা

চুয়াডাঙ্গা প্রতিনিধি, ঢাকা টাইমস
 | প্রকাশিত : ০৯ জুন ২০২৩, ০৮:২১

চুয়াডাঙ্গার দামুড়হুদা উপজেলার ধান্যঘড়ায় বাবর আলী (৪৫) নামে এক ফল ব্যবসায়ীকে কুপিয়ে হত্যা করেছে দুর্বৃত্তরা।

বৃহস্পতিবার রাত সাড়ে ১২টার দিকে ঘুমন্ত অবস্থায় বাবর আলীকে দুর্বৃত্তরা কুপিয়ে পালিয়ে যায়।

পরে পরিবারের সদস্যরা দ্রুত উদ্ধার করে চুয়াডাঙ্গা সদর হাসপাতালে নিয়ে গেলে কিছুক্ষণ পর তার মৃত্যু হয়।

নিহত বাবর আলী দামুড়হুদা উপজেলার কার্পাসডাঙ্গা ইউনিয়নের ধান্যগরা গ্রামের দক্ষিণপাড়ার মৃত. আব্দুল সাত্তারের ছেলে।

নিহতের স্ত্রী মহিমা খাতুন বলেন, গতকাল বৃহস্পতিবার সন্ধায় অজ্ঞাত পরিচয়ে তিন ব্যক্তি আমার স্বামীকে বাড়িতে খুঁজতে আসেন। তিনি বাড়িতে না থাকায় তার মোবাইল নাম্বার চান। আমি মোবাইল দিতে না পারায় তারা চলে যান। রাতে আমি ও আমার ছেলে ঘরের মধ্যে ঘুমিয়ে ছিলাম। আমার স্বামী বারান্দায় ঘুমাচ্ছিলেন। রাত সাড়ে ১২টার দিকে অজ্ঞাত পরিচয়ে সেই ব্যক্তিরা বাড়িতে এসে আমার স্বামীকে ডেকে উঠানে নিয়ে যায়। এরপরই ধারাল অস্ত্র দিয়ে গলায় একটি কোপ দেয়। আমি চিৎকার চেঁচামেচি করলে প্রতিবেশিরা ছুটে আসলে তারা পালিয়ে যান।

বাবর আলীর সঙ্গে কারো দ্বন্দ্ব আছে কিনা জানতে চাইলে তার স্ত্রীর মহিমা খাতুন বলেন, আমার স্বামী কার্পাসডাঙ্গা বাজারে লিচু বিক্রি করেন। আমার স্বামী একজনের নিকট ৪ লাখ টাকা পায়। তবে তার নাম জানিনা। সেই টাকা নিয়ে অনেক ঘুরিয়েও দিচ্ছে না। কি কারণে, কে বা কারা আমার স্বামীকে হত্যা করেছে তা জানিনা।

চুয়াডাঙ্গা সদর হাসপাতালের জুনিয়র সার্জারী কনসালটেন্ট ডা. এহসানুল হক তন্ময় বলেন, গলার নিচে ধারালো অস্ত্রের একটা কোপ ছিল। তার রক্তনালী কেটে গেছে। জরুরি বিভাগে চিকিৎসারত অবস্থায় তিনি মারা যান। অতিরিক্ত রক্তক্ষরণের কারণেই তার মৃত্যু হয়।

চুয়াডাঙ্গা জেলা পুলিশের সহকারী পুলিশ সুপার (দামুড়হুদা সার্কেল) জাকিয়া সুলতানা বলেন, আমি ঘটনাস্থল পরিদর্শন করেছি। নিহতের পরিবার হাসপাতালে থাকায় ঘরের দরজা তালাবদ্ধ ছিল। আমরা নিহতের প্রতিবেশীরদের সঙ্গে কথা বলেছি। প্রাথমিকভাবে কোন কিছু জানা যায়নি।

(ঢাকাটাইমস/০৯জুন/এসএম)

সংবাদটি শেয়ার করুন

বাংলাদেশ বিভাগের সর্বাধিক পঠিত

বিশেষ প্রতিবেদন বিজ্ঞান ও তথ্যপ্রযুক্তি বিনোদন খেলাধুলা
  • সর্বশেষ
  • সর্বাধিক পঠিত

শিরোনাম :