যাত্রীবেশে কিশোরের অটোরিকশা নিয়ে লাপাত্তা চোর চক্র, নিঃস্ব মা-ছেলে

লক্ষ্মীপুর প্রতিনিধি, ঢাকা টাইমস
| আপডেট : ১৯ ফেব্রুয়ারি ২০২৪, ১১:৫৫ | প্রকাশিত : ১৯ ফেব্রুয়ারি ২০২৪, ১১:৪৬

মা-ছেলের একমাত্র উপার্জনের অবলম্বন একটি অটোরিকশা নেওয়া হয় কিস্তিতে। ছেলে কিশোর পিয়াস হোসেন (১৬) অটোরিকশা চালিয়ে চালান সংসার। অভাবের সংসারে হানা দিলো চোর চক্র। যাত্রীবেশে কিশোর পিয়াসের হাত থেকে অটোরিকশা নিয়ে লাপাত্তা চোর চক্রটি।

এতে একমাত্র উপার্জনের অবলম্বন অটোরিকশাটি হারিয়ে কিছুতেই থামছে না মা-ছেলের কান্না। উপায় না পেয়ে থানায় অভিযোগ করেন মা পিয়ারা বেগম। মা-ছেলে এখন দিশেহারা। এখন তারা খুব নিঃস্ব।

রবিবার (১৮ ফেব্রুয়ারি) রাতে অটোরিকশা উদ্ধারের জন্য সদর মডেল থানায় লিখিত অভিযোগ দায়ের করা হয়।

ক্ষতিগ্রস্ত কিশোর পিয়াস সদর উপজেলার লাহারকান্দি ইউনিয়নের আবিরনগর গ্রামের ‘নজু হাজী বাড়ির’ মৃত ইসলাম হোসেনের ছেলে।

অভিযোগ সূত্রে জানা গেছে, শনিবার (১৭ ফেব্রুয়ারি) সকালে বাড়ি থেকে পিয়াস অটোরিকশা নিয়ে বের হয়। অটোরিকশা নিয়ে শহরের মক্কা মসজিদ এলাকায় আসলে রাস্তার ওপর দাঁড়িয়ে এক ব্যক্তি যাত্রী বেশে উঠে অটোরিকশায়। বাগবাড়ি এলাকায় নামবে। কিছুক্ষণ পর ঝুমুর ট্রাফিক চত্বর থেকে আরেক ব্যক্তি অটোরিকশায় উঠেন, তিনিও বাগবাড়ি নামবেন। কিন্তু তারা বাগবাড়িতে না নেমে (চালক) পিয়াসকে বলে আমরা আর একটু ভেতরে যাবো। এ কথা বলে গাড়িতে থাকা দুই ব্যক্তি পিয়াসকে লক্ষ্মীপুর-রামগঞ্জ সড়কের আঠিয়া বাজার এলাকায় নিয়ে (চালক) পিয়াসকে চলন্ত অটোরিকশা থেকে ধাক্কা দিয়ে ফেলে তার অটো নিয়ে পালিয়ে যায়।

অটোরিকশা চালক পিয়াসের মা পিয়ারা বেগম জানান, খুব দুঃখ-কষ্টে সংসার চলে। স্বামী ইসমাইল দ্বিতীয় বিয়ে করে সংসার বাঁধছে। কিছুদিন পর সেই (স্বামী) মারা যায়। বড় ছেলে বিয়ে করে আলাদা হয়ে গেছে। অভাবের সংসার ছেলে পিয়াসকে পড়ালেখা করাতে পারিনি। আমার দুঃখ-কষ্ট দেখে ছোট বোনের স্বামী বেল্লাল আমার ছেলে পিয়াসকে একটি অটোরিকশা কিস্তিতে কিনে দেয় ১ লাখ ৬০ হাজার টাকা দিয়ে। এখন আমি কি করব? ঘরে ভাতের চাউল নাই। প্রায় সময় অনাহারে থাকি। লজ্জায় ভিক্ষা করতে পারি না। এখন কিভাবে কিস্তির টাকা পরিশোধ করব? কিভাবে আমরা মা-ছেলে একমুঠো ভাত খাবো।

লক্ষ্মীপুর সদর মডেল থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) সাইফুদ্দিন আনোয়ার বলেন, অটোরিকশা ছিনতাই বিষয়ে পিয়ারা বেগম নামে এক নারী অভিযোগ দিয়েছে। বিষয়টি তদন্ত করে ব্যবস্থা নেওয়ার জন্য একজন অফিসারকে দায়িত্ব দেওয়া হয়েছে।

(ঢাকাটাইমস/১৯ফেব্রুয়ারি/প্রতিনিধি/জেডএম)

সংবাদটি শেয়ার করুন

বাংলাদেশ বিভাগের সর্বাধিক পঠিত

বিশেষ প্রতিবেদন বিজ্ঞান ও তথ্যপ্রযুক্তি বিনোদন খেলাধুলা
  • সর্বশেষ
  • সর্বাধিক পঠিত

বাংলাদেশ এর সর্বশেষ

এই বিভাগের সব খবর

শিরোনাম :