জর্ডানের হ্যাটট্রিকে অল্পতেই গুটিয়ে গেলো যুক্তরাষ্ট্র 

ক্রীড়া ডেস্ক, ঢাকা টাইমস
| আপডেট : ২৩ জুন ২০২৪, ২৩:২৩ | প্রকাশিত : ২৩ জুন ২০২৪, ২২:১৪

চলতি বিশ্বকাপে একই দিনে দুইটি হ্যাটট্রিক দেখলো ক্রিকেটবিশ্ব। সেমিফাইনালের দৌড়ে টিকে থাকতে যুক্তরাষ্ট্রের বিপক্ষে ডু অর ডাই ম্যাচ ইংল্যান্ডের। এমন ম্যাচে টস জিতে আগে বোলিংয়ের সিদ্ধান্ত নেয়া ইংলিশরা এবারের চমক যুক্তরাষ্ট্রকে ধসিয়ে দিয়েছে। আর একই দিনে দ্বিতীয় হ্যাটট্রিক দেখা গেল টি-টোয়েন্টি বিশ্বকাপে। আফগানিস্তানের বিপক্ষে প্যাট কামিন্সের হ্যাটট্রিকের পর যুক্তরাষ্ট্রের বিপক্ষে হ্যাটট্রিক করেছেন ইংল্যান্ডের ক্রিস জর্ডান।

রোববার (২৩ জুন) ব্রিজটাউনের কেনসিংটন ওভালে ইংল্যান্ডের বিপক্ষে টস হেরে ব্যাট করতে নামা যুক্তরাষ্ট্র ১৮.৫ ওভারে মাত্র ১১৫ রানে অলআউট হয়েছে। হ্যাটট্রিক করেছেন ইংলিশ পেসার ক্রিস জর্ডান।

সুপার এইটে নিজেদের শেষ ম্যাচে যুক্তরাষ্ট্রের হয়ে ওপেনিংয়ে নামেন স্টিভেন টেলর ও আন্দ্রিস গউস। তবে ইনিংসের প্রথম ওভারেই ভেঙে যায় এই জুটি। ৫ বলে ৮ রান করা আন্দ্রিস গউস রিস টপলির বলে ফিলিপ সল্টের হাতে ক্যাচ তুলে দিযে ফিরে যান। তার বিদায়ে ৯ রানেই প্রথম উইকেট হারায় স্বাগতিকরা।

৯ রানে প্রথম উইকেট হারানোর পর জুটি গড়েন স্টিভেন টেলর ও নিতিশ কুমার। এই জুটিতে ভর করে ঘুরে দাঁড়ানোর চেষ্টা করে যুক্তরাষ্ট্র। তবে ভয়ঙ্কর হয়ে ওঠার আগেই এই জুটিকেস থামান স্যাম কারেন। স্যাম কারেনের বলে সাজঘরে ফিরে যান আরেক ওপেনার স্টিভেন টেলর। আউট হওয়ার আগে করেন ১৩ বলে ১২ রান। তার বিদায়ে ভাঙে ৩৪ রানের জুটি।

স্টিভেন টেলরের বিদায়ের পর দ্রুত সাজঘরে ফিরে যান অ্যারোন জোন্স ও নিতিশ কুমার। দুই ব্যাটারকেই ফেরান আদিল রশিদ। অ্যারোন জোন্স ১৬ বলে ১০ ও নিতিশ কুমার ২৪ বলে ৩০ রান করে পথ ধরেন প্যাভিলিয়নের। এই দুই ব্যাটারের বিদায়ে ৬৭ রানে ৪ উইকেট হারিয়ে বিপর্যয়ে পড়ে যুক্তরাষ্ট্র।

৬৭ রানে ৪ উইকেট হারিয়ে বিপর্যয়ে পড়া যুক্তরাষ্ট্র দলের হাল ধরার চেষ্টা করেন কোরি এন্ডারসন ও মিলিন্দ কুমার। তবে তারাও ব্যর্থ হন নিজেদের জুটিকে বেশিদূর নিয়ে যেতে। দলীয় ৮৮ রানে মিলিন্দ কুমারের বিদায়ে ২১ রানেই ভেঙে যায় এই জুটি।

মিলিন্দ কুমারের বিদায়ের পর হার্মিত সিংকে নিয়ে জুটি গড়েন কোরি এন্ডারসন। ষষ্ঠ উইকেটে তারা গড়েন ২৭ রানের জুটি। দলীয় ১১৫ রানে হার্মিত সিং ফিরে গেলে ভেঙে যায় এই জুটি। এই জুটি ভাঙার পর আর একটি রানও যোগ করতে পারেনি তারা। কোনো রান যোগ না করেই হারিয়েছে শেষ চার উইকেট। ১৯তম ওভার করতে এসে কোনো রান খরচ না করেই ৪ উইকেট শিকার করেছেন জর্ডান, যেখানে আছে হ্যাটট্রিক।

১৯তম ওভারের প্রথম বলে তিনি ফেরান ২৮ বলে ২৯ রান করা কোরি অ্যান্ডারসনকে। পরের বলে ব্যাট করতে নেমে ডট বল দেন আলি খান। কিন্তু পরের বলেই বোল্ড হয়ে যায় আলি খান । তার পরের বলে এলবিডব্লিউ হন কেনজিগে, আর পঞ্চম বলে বোল্ড হয়ে যান নেত্রাভালকার।

এর আগে সকালে আফগানিস্তানের বিপক্ষে হ্যাটট্রিক করেন অজি পেসার প্যাট কামিন্স। তার আগের ম্যাচে বাংলাদেশের বিপক্ষেও হ্যাটট্রিক করেছিলেন তিনি। টানা দুই ম্যাচে একই বোলারের হ্যাটট্রিকের পর একই দিনে দুই হ্যাটট্রিক দেখল ক্রিকেটবিশ্ব।

ইংল্যান্ডের পক্ষে সফলতম বোলার জর্ডান ২.৫ ওভারে ১০ রান দিয়ে ৪ উইকেট শিকার করেন। এছাড়া আদিল রশিদ এবং স্যাম কুরান ২টি করে উইকেট শিকার করেন। লিভিংস্টোন এবং রিস টপলি ১টি করে উইকেট শিকার করেন।

(ঢাকাটাইমস/২৩ জুন/এনবিডব্লিউ)

সংবাদটি শেয়ার করুন

খেলাধুলা বিভাগের সর্বাধিক পঠিত

বিশেষ প্রতিবেদন বিজ্ঞান ও তথ্যপ্রযুক্তি বিনোদন খেলাধুলা
  • সর্বশেষ
  • সর্বাধিক পঠিত

শিরোনাম :