অপহৃত সন্তানকে ফিরে পেতে আহাজারি

শ্রীনগর (মুন্সীগঞ্জ) প্রতিনিধি, ঢাকাটাইমস
 | প্রকাশিত : ১০ মে ২০১৭, ২১:২৭

মুন্সীগঞ্জের শ্রীনগরে দুই মাস আগে অপহৃত সন্তানের সন্ধান দাবিতে আয়োজিত মানববন্ধনে এক শোকার্ত মায়ের আহাজারিতে বাতাস ভারি হয়ে উঠে। চোখের পানি সামলাতে না পেরে মানববন্ধনে অংশ নেয়া অনেকেই হাউ মাউ করে কেদেঁ উঠলে এক হৃদয় বিদারক পরিবেশের তৈরি হয়।

ঢাকার সদর ঘাটের ‘লাকী এন্টার প্রাইজ’ থেকে অপহৃত দোকান কর্মচারী কমল দাসের সন্ধান দাবিতে বুধবার বেলা ১১টার দিকে উপজেলার তন্তর ইউনিয়নের রুসদী এলাকার লোকজন এ মানববন্ধন করে।

ঢাকা-শ্রীনগর-নওপাড়া সড়কের রুসদী উচ্চ বিদ্যালয়ের সামনে আয়োজিত এ মানববন্ধনে একাধিক ইউপি সদস্যসহ বিভিন্ন বয়সের প্রায় সহস্রাধিক নারী-পুরুষ অংশ নেন।

তারা নিখোঁজ দোকান কর্মচারী কমল দাসের সন্ধান দাবি করেন এবং দোকান মালিক মুন্সীগঞ্জ জেলার লৌহজং উপজেলার বৌলতলী এলাকার দেলোয়ার শিকদারের উপযুক্ত বিচার দাবি করেন।

মানববন্ধনে অংশগ্রহনকারীরা জানান, রুসদী গ্রামের গোপাল দাসের দুই ছেলের মধ্যে বড় ছেলে কমল দাস ঢাকার সরদরঘাটের লাকি এন্টরাপ্রাইজে কর্মচারী হিসাবে প্রায় ১২ বছর ধরে কাজ করে আসছিল। ছয় মাস আগে সে দোকানের মালিক দেলোয়ার শিকদারকে দোকানে কাজ করতে অস্বীকৃতি জানায়। এতে দেলোয়ার শিকদার ক্ষিপ্ত হয়ে উঠে। এ নিয়ে দুজনের মধ্যে মাঝে মাঝে কথা কাটা কাটি হতো। গত ৯ মার্চ কমল দোকান থেকে নিখোঁজ হয়। দুই দিন পর দেলোয়ার কমলের বাড়িতে ফোন করে জানায় তাকে পাওয়া যাচ্ছে না।

এ ঘটনায় কমলের পরিবার কোতোয়ালি থানায় সাধারণ ডায়েরি করতে গেলে উল্টো তাদের সাথে খারাপ আচরণ করে পুলিশ।

কয়েক দিন পর দেলোয়ার জানান,  কমলের সন্ধান পাওয়া গেছে। ৫০ হাজার টাকা দিলে তাকে ছাড়িয়ে আনা সম্ভব। এর পর কমলের অসহায় বাবা-মা সুদে টাকা এনে দেলোয়ারের কাছে ৫০ হাজার টাকা তুলে দেন। ৫০ হাজার টাকা হাতিয়ে নেয়ার পর দেলোয়ার কয়েকটি তারিখ দিলেও কমলকে ফিরিয়ে না দিয়ে তালবাহানা শুরু করেন। নিরুপায় হয়ে কমলের বাবা গোপাল দাস ২৩ এপ্রিল ঢাকার মুখ্য মহানগর হাকিমের আদালতে দেলোয়ার শিকদার ও আজাহার দপ্তরীকে আসামি করে অপহরণ করে হত্যার অভিযোগে মামলা করেন।

এ অবস্থায় মামলা উঠিয়ে নেয়ার জন্য কমলের পরিবারকে হুমকি দেয়া হচ্ছে বলেও অভিযোগ করেন বক্তারা।

এ ব্যাপারে দেলোয়ার শিকদারের মোবাইল ফোনে কল দেয়া হলে তার দোকান কর্মচারী জানান, দেলোয়ার শিকদার বর্তমানে চীনে অবস্থান করেছেন। লাকী এন্টার প্রাইজ সরদঘাটের বিক্রমপুর মার্কেটে অবস্থিত।

ওই মার্কেটের সাধারণ সম্পাদক হাজী মহসীন খাঁন বলেন, কমল দাসের নিখোঁজের বিষয়ে আমাদেরকে কিছুই জানানো হয়নি।

(ঢাকাটাইমস/১০মে/প্রতিনিধি/এলএ)

সংবাদটি শেয়ার করুন

বাংলাদেশ বিভাগের সর্বাধিক পঠিত

বিশেষ প্রতিবেদন ফিচার বিনোদন খেলাধুলা
  • সর্বশেষ
  • সর্বাধিক পঠিত