ঠাকুরগাঁওয়ে বাল্যবিয়ে: কাজী ও বরের কারাদণ্ড

ঠাকুরগাঁও প্রতিনিধি, ঢাকাটাইমস
 | প্রকাশিত : ১৪ নভেম্বর ২০১৯, ২১:৩২

ঠাকুরগাঁওয়ে বাল্যবিয়ে দেয়ার চেষ্টা করায় কাজীকে তিন মাস ও বরকে ছয় মাসের বিনাশ্রম কারাদণ্ড দিয়েছে ভ্রাম্যমাণ আদালত। বুধবার রাত ১১টার দিকে ভ্রাম্যমাণ আদালতের হাকিম সদর উপজেলার নির্বাহী কর্মকর্তা (ইউএনও) আব্দুল্লাহ আল মামুন এ সাজা দেন।

দণ্ডপ্রাপ্তরা হলেন- বিবাহের কাজী সদর উপজেলার সালন্দর ইউনিয়নের মাদরাসাপাড়া গ্রামের আব্দুল হামিদের ছেলে আব্দুল আজিজ ও বর একই ইউনিয়নের সরকারপাড়া গ্রামের আবুল হোসেনের ছেলে আল আমিন।

ভ্রাম্যমাণ আদালতের হাকিম আব্দুল্লাহ আল মামুন বলেন, সদর উপজেলার সালন্দর ইউনিয়নের আরাজি কৃষ্টপুর গ্রামের মাইনুদ্দিনের মেয়ের বয়স ১৬ বছর। তার সঙ্গে একই ইউনিয়নের সরকারপাড়া গ্রামের আল আমিনের বিয়ের দিন ঠিক হয় বুধবার সন্ধ্যা সাড়ে ৭টার দিকে। বরপক্ষ সন্ধ্যায় কনের বাড়িতে উপস্থিত হয়ে বাল্যবিয়ের জন্য প্রস্তুতি নিচ্ছিলেন।

তিনি বলেন, এলাকাবাসীর কাছে বাল্যবিয়ের সংবাদ পেয়ে সংশ্লিষ্ট ইউনিয়নের চেয়ারম্যান মাহবুব আলম মুকুল ও স্থানীয় পুলিশ প্রশাসনের সহায়তায় কনের বাড়িতে ভ্রাম্যমাণ আদালত পরিচালনা করা হয়। কনের বাড়িতে হাজির হয়ে দুই পরিবারের লোকজনের সঙ্গে কথা বলে ঘটনার সত্যতা পাওয়া যায়। ভ্রাম্যমাণ আদালত উপস্থিত হওয়া মাত্র কনে ও তার বাবা-মা পালিয়ে যায়। তবে ঘটনাস্থল থেকে বিয়ের কাজী আব্দুল আজিজ ও বর আল আমিনকে আটক করে পুলিশ। এসময় কাজীর কাছ থেকে বিয়ের রেজিস্ট্রি খাতা জব্দ করা হয়।

আব্দুল্লাহ আল মামুন বলেন, ভ্রাম্যমাণ আদালত বসালে কাজী আব্দুল আজিজ ও বর আল আমিন নিজেদের দোষ স্বীকার করেন। পরে বাল্যবিয়ে নিরোধ আইনে কাজীকে তিন মাসের বিনাশ্রম কারাদণ্ড ও তার বিয়ে নিবন্ধন বাতিল করা হয় এবং বরকে ছয় মাসের বিনাশ্রম কারাদণ্ড প্রদান করা হয়।

সদর থানার পরিদর্শক (তদন্ত) তানভিরুল ইসলাম বলেন, এই বাল্যবিয়ে বন্ধ হওয়ায় এবং কাজী ও বরের সাজা হওয়ায় সচেতনতা বাড়বে।

(ঢাকাটাইমস/১৪নভেম্বর/এলএ)

সংবাদটি শেয়ার করুন

বাংলাদেশ বিভাগের সর্বাধিক পঠিত

বিশেষ প্রতিবেদন বিজ্ঞান ও তথ্যপ্রযুক্তি বিনোদন খেলাধুলা
  • সর্বশেষ
  • সর্বাধিক পঠিত

শিরোনাম :