রংপুর এক্সপ্রেস দুর্ঘটনায় জিজ্ঞাসাবাদে ৪ কর্মচারী

সিরাজগঞ্জ প্রতিনিধি, ঢাকাটাইমস
| আপডেট : ১৫ নভেম্বর ২০১৯, ২২:১৬ | প্রকাশিত : ১৫ নভেম্বর ২০১৯, ১৬:৩৩

সিরাজগঞ্জের উল্লাপাড়া রেল স্টেশনে রংপুর এক্সপ্রেস দুর্ঘটনায় গঠিত চার তদন্ত কমিটির কোনওটিই শুক্রবার দুপুর পর্যন্ত আনুষ্ঠানিকভাবে কাজ শুরু করেনি। তবে পশ্চিমাঞ্চল রেলওয়ের এক কর্মকর্তা মনে করছেন, লাইনে ত্রুটির কারণে রংপুর এক্সপ্রেস দুর্ঘটনায় পড়ে।

এদিকে ইঞ্জিন ও বগিতে অগ্নিকাণ্ড ও বগি লাইনচ্যুত হওয়ার ঘটনায় চার খালাসি ও মিস্ত্রিকে জিজ্ঞাসাবাদে নিয়েছে জিআরপি থানা পুলিশ।

দুর্ঘটনার কারণ অনুসন্ধানে পশ্চিমাঞ্চল রেল বিভাগের পাকশীর ডিআরএম অফিসের নির্দেশে গঠিত কমিটির প্রধান মো. আবদুল্লাহ আল মামুন শুক্রবার দুর্ঘটনার প্রাথমিক তদন্ত কাজ শুরু করেছেন। লাইনের ত্রুটির কারণেই রংপুর এক্সপ্রেস দুর্ঘটনায় পড়ে বলে প্রাথমিকভাবে ধারণা করা হচ্ছে।

পশ্চিমাঞ্চল রেলের (পাকশী বিভাগীয়) এ পরিবহন কর্মকর্তা বলেন, ‘দুর্ঘটনার কারণ অনুসন্ধানে প্রাথমিক তদন্তে সিগন্যালের কোনও প্রকার ত্রুটি খুঁজে পাওয়া যায়নি। লাইনের ত্রুটির কারণেই দুর্ঘটনা ঘটতে পারে বলে প্রাথমিকভাবে ধারণা করা হচ্ছে।’

‘সে কারণে স্থানীয় ঊর্ধ্বতন সহকারী উপ-প্রকৌশলী কার্যালয়ের চার-পাঁচজন কর্মচারীকে জিজ্ঞাসাবাদের জন্য জিআরপি থানা পুলিশের মাধ্যমে ডেকে আনা হয়েছে।’

সিরাজগঞ্জ জিআরপি থানার ওসি হারুন মজুমদার জানান, শুক্রবার ভোরে জিজ্ঞাসাবাদের জন্য চার কর্মচারীকে আনা হয়েছে। তারা হলেন, খালাসি আরিফুল ইসলাম এবং মিস্ত্রি আব্দুর রাজ্জাক ও মকবুল হোসেন। বাকি একজনের নাম জানা যায়নি।

উল্লেখ্য, রংপুর এক্সপ্রেস ট্রেনটি বৃহস্পতিবার দুপুরে উল্লাপাড়া স্টেশনের এক নম্বর প্ল্যাটফর্ম পার হওয়ার পর হঠাৎ করে দুর্ঘটনায় পড়ে। ইঞ্জিন বাদে সাতটি বগি লাইনচ্যুত হয়। ইঞ্জিনটি হঠাৎ ওপরের দিকে উঠে লাইন থেকে ছিটকে পড়ে। সঙ্গে সঙ্গে ইঞ্জিনসহ এসি বগিতে আগুন ধরে। এরপর আরও তিনটি বগিতে আগুন ছড়িয়ে পড়ে। পাওয়ার কার থেকে আগুনের সূত্রপাত বলে প্রাথমিকভাবে বলা হয়েছিল।

দুর্ঘটনার পর হুড়োহুড়ি করে নামতে গিয়ে অন্তত ২৫ জন যাত্রী আহত হন। আর ঢাকার সঙ্গে উত্তরাঞ্চলসহ খুলনা ও রাজশাহীর ট্রেন যোগাযোগ প্রায় সাত ঘণ্টা বন্ধ থাকে।

(ঢাকাটাইমস/১৫নভেম্বর/ডিএম)

 

সংবাদটি শেয়ার করুন

বাংলাদেশ বিভাগের সর্বাধিক পঠিত

বিশেষ প্রতিবেদন বিজ্ঞান ও তথ্যপ্রযুক্তি বিনোদন খেলাধুলা
  • সর্বশেষ
  • সর্বাধিক পঠিত

শিরোনাম :