ফরিদপুরে করোনায় মৃত মুক্তিযোদ্ধার সৎকার করল পুলিশ

বিশেষ প্রতিনিধি, ফরিদপুর
 | প্রকাশিত : ৩১ মে ২০২০, ২০:০২

ফরিদপুর মেডিকেল কলেজ হাসপাতালের করোনা আইসলেশন ওয়ার্ডে চিকিৎসাধীন অবস্থায় শহরের পুরাতন কালিবাড়ির সেবাইত কমলেশ চক্রবর্তী ভানু নামে এক মুক্তিযোদ্ধার মৃত্যু হয় রবিবার সকাল ৭টা ৪০ মিনিটে। মৃত্যুর পর শহরের অম্বিকাপুর শশ্মানে মরদেহ সৎকার করতে বাধা দেয় এলাকাবাসী। খবর পেয়ে ফরিদপুর-৩ আসনের সাংসদ ইঞ্জিনিয়ার খন্দকার মোশাররফ হোসেন দ্রুত পদক্ষেপ গ্রহণ করেন। তার নির্দেশে পরে ফরিদপুর জেলা পুলিশ গিয়ে স্থানীয়দের অবরোধ সরিয়ে সৎকারের ব্যবস্থা নেয়। এছাড়া আওয়ামী লীগ নেতৃবৃন্দ ঘটনাস্থলে উপস্থিত থেকে বিঘ্ন সৃষ্টিকারী জনতার সাথে আলোচনা করে বিষয়টি নিষ্পত্তির ব্যবস্থা নেন।

এসময় লাশটি হিন্দু নিয়মে সৎকারের জন্য কেউ এগিয়ে আসেনি। এমনকি হিন্দু ধর্মের কোন সদস্য বা পরিবারের কেউ এগিয়ে আসেননি। পরে জেলা পুলিশ সুপার আলিমুজ্জামানের নির্দেশে সদর সার্কেলের অতিরিক্ত পুলিশ সুপার রাশেদুল ইসলামের নেতৃত্বে পুলিশ সদস্যরা সৎকার করতে এগিয়ে আসে। তারা চিতায় সব ব্যবস্থা করেন। তাদের তত্ত্বাবধানে মৃতের পুত্র আগুন দিয়ে মুখাগ্নি করার পর পুলিশ সদস্যরা লাশ দাহ্য করার পুরো নিয়ম মেনে লাশটি দাহ্য কার্য সম্পন্ন করে।

এসময় কমলেশ চক্রবর্তীর মরদেহ হাসপাতাল থেকে নেয়া লাশ দাহ্যের জন্য প্রস্তুত করা এবং শ্মশান পর্যন্ত নেয়ার কাজগুলো করে স্থানীয় স্বেচ্ছাসেবী সংগঠন ‘তরুছায়া’।

এ বিষয়ে সদর সার্কেলের অতিরিক্ত পুলিশ সুপার রাশেদুল ইসলাম জানান, আমরা খবর পাই- বীর মুক্তিযোদ্ধা কমলেশ চক্রবর্তী ভানুর মরদেহ সৎকারে শশ্মানের সামনে বাধা দিচ্ছে স্থানীয় এলাকাবাসী। এসময় এসপি স্যারের নির্দেশে পুলিশ সদস্যদের নিয়ে গিয়ে স্থানীয় এলাকাবাসীর করা অবরোধ সরানো হয়। এরপর পুলিশের সদস্যরা তার লাশটি হাসপাতাল থেকে গাড়িতে করে নিয়ে গিয়ে যাবতীয় ব্যবস্থা করা হয়। এর আগে রাষ্ট্রীয় মর্যাদায় সদর উপজেলা ইউএনও মাসুম রেজা তাকে গার্ড অব অনার প্রদান করেন।

তিনি বলেন, আমরা পুলিশ প্রশাসন থাকতে করোনায় মৃত কোন ব্যক্তির লাশ পড়ে থাকতে হবে না।

ফরিদপুর শহর আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক চৌধুরী বরকত ইবনে সালাম, জেলা যুবলীগের আহবায়ক এইচ এম ফুয়াদ ও ফরিদপুর প্রেসক্লাবের সভাপতি ইমতিয়াজ হাসান রুবেল এসময় উপস্থিত ছিলেন।

এ বিষয়ে অম্বিকাপুর শশ্মান কমিটির সভাপতি লক্ষণ দত্ত বলেন, বিষয়টি শুনেছি- কিন্তু যাইনি। করোনা ছড়িয়ে পড়ার ভয়ে এলাকার স্থানীয়রা লাশটি সৎকারে বাধা দিয়েছিল।

মুক্তিযোদ্ধা কমলেশ চক্রবর্তী ভানুর মৃত্যুতে শোক জানিয়েছেন স্থানীয় সরকার পল্লী উন্নয়ন ও সমবায় মন্ত্রণালয় সম্পর্কিত স্থায়ী কমিটির সভাপতি, সাবেক মন্ত্রী ও বর্তমান ফরিদপুর-৩ আসনের সংসদ সদস্য ইঞ্জিনিয়ার খন্দকার মোশাররফ হোসেন, ফরিদপুর শহর আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক চৌধুরী বরকত ইবনে সালাম ও ফরিদপুর প্রেসক্লাবের সভাপতি ইমতিয়াজ হাসান রুবেল, স্থানীয় জেলা প্রশাসন ও পুলিশ প্রশাসন, জেলা মুক্তিযোদ্ধা সংসদ, শিবাজী নিকেতন, ব্রাহ্মণ পুরোহিত ঐক্য পরিষদ, বঙ্গবন্ধু পরিষদসহ ফরিদপুরের বিভিন্ন সামাজিক ও সেবামূলক সংগঠনের নেতৃবৃন্দ।

(ঢাকাটাইমস/৩১মে/এলএ)

সংবাদটি শেয়ার করুন

বাংলাদেশ বিভাগের সর্বাধিক পঠিত

বিশেষ প্রতিবেদন বিজ্ঞান ও তথ্যপ্রযুক্তি বিনোদন খেলাধুলা
  • সর্বশেষ
  • সর্বাধিক পঠিত

শিরোনাম :