হাড় মজবুত রাখতে যেসব খাবার খাবেন

স্বাস্থ্য ডেস্ক, ঢাকাটাইমস
 | প্রকাশিত : ২৮ নভেম্বর ২০২১, ০৯:৪৫

শরীরে হাড়ক্ষয়ের লক্ষণ দেখা দিতে শুরু করে বয়স ৫০ পার হতেই। নারী-পুরুষের হাড়ের ঘনত্ব সাধারণত ২৮ বছর বয়স পর্যন্ত বাড়ে এবং তা ৩৪ বছর পর্যন্ত বজায় থাকে। এরপর হাড় ক্ষয়ে যেতে থাকে। যাদের হাড়ক্ষয়ের ঝুঁকি বেশি, তাদের হাড়ের ঘনত্ব দ্রুত কমতে থাকে। নারীদের মাসিক-পরবর্তী সময়ে হাড়ক্ষয়ের গতি বেগবান হয়। এছাড়া আরও অনেক কারণ বা স্বাস্থ্যঝুঁকি হাড়ক্ষয়ের আশঙ্কা বৃদ্ধি করতে পারে।

বিশেষজ্ঞরা জানিয়েছেন, হাড় মজবুত থাকলে শরীরকেও বিভিন্ন অসুখের হাত থেকে প্রতিরোধ করা সম্ভব হয়। কিন্তু নির্দিষ্ট একটা বয়সের পর থেকেই হাড়ের ক্ষয় দেখা দেয়। শুধু বয়সজনিত কারণেই নয়, অনিয়মিত লাইফস্টাইল এবং অস্বাস্থ্যকর ডায়েটের ফলে হাড়ের সমস্যা দেখা দিতে পারে। বয়স বাড়ার সঙ্গে সঙ্গে আমাদের হাড়ও তত দুর্বল হতে থাকে।

হাড় ভালো রাখতে প্রয়োজন পড়ে ভিটামিন ডি এবং ক্যালসিয়ামের। শুধু হাড়ই নয়, বরং পুরো শরীর সুস্থ রাখতে এই ভিটামিনের দরকার পড়ে। হাড় ও দাঁতের স্বাভাবিক বৃদ্ধি এবং রোগ প্রতিরোধ ক্ষমতা গড়ে তোলার জন্য গুরুত্বপূর্ণ এই ভিটামিন।

শরীরে পর্যাপ্ত মিনারেলসের অভাবে অনেক অসুখ দেখা দিয়েছে। মিনারেলস সম্পর্কে বহু মানুষেরই বিশেষ না জানা থাকার ফলে তারা নিয়মিত খাবারের তালিকায় সেগুলো বাদ থেকে যায়। ফলস্বরূপ শরীরে এমন অনেক রোগ দেখা দিয়েছে, যা মিনারেলসের অভাবে হয়। হাড় মজবুত রাখতে মিনারেলসজাতীয় খাবার খুবই দরকারি। তাহলে দেখে নেওয়া যাক, হাড় মজবুত রাখতে কোন কোন খাবার অবশ্যই প্রয়োজনীয়।

মিনারেলস বলতে তার মধ্যে থাকে অনেক উপকারী উপাদান। আয়রন, পটাশিয়াম, ম্যাগনেশিয়াম, সেলেনিয়াম, জিঙ্ক, ক্যালশিয়াম এবং আরও অনেক উপাদান নিয়ে তৈরি হয় মিনারেলস।

বিশেষজ্ঞরা জানাচ্ছেন, পালং শাক, বিট, বেদানা, আপেল, পেস্তা, আমলকি, ড্রাই ফ্রুটস, সবুজ শাক সবজিতে প্রচুর পরিমাণে আয়রন রয়েছে। এগুলো হাড় মজবুত রাখতে খুবই সাহায্য করে।

দুগ্ধজাত খাবার, সোয়াবিন, সবুজ শাক সবজি, কড়াইশুঁটি, বাদাম, আখরোট, কমলালেবু, সূর্যমুখীর বীজে থাকে প্রচুর ক্যালশিয়াম। শরীর সুস্থ রাখতে এগুলো নিয়মিত খাওয়া প্রয়োজনীয়।

করোনা পরিস্থিতিতে প্রায়শই অনেককে জিঙ্ক জাতীয় খাবার খাওয়ার পরামর্শ দিতে দেখা যায়। কিন্তু কোন কোন খাবারে জিঙ্ক থাকে, সেই ধারণা বহু মানুষেরই নেই। বিশেষজ্ঞরা জানাচ্ছেন, বিনস, দুধ, চিজ, দই, রেড মিট, ডাল, কুমড়া, বাদাম, কাজুবাদাম, আমন্ড বাদাম, ডিম, গম, চালে থাকে জিঙ্ক।

রক্তচাপ নিয়ন্ত্রণে রাখতে সাহায্য করে ম্যাগনেশিয়াম। হাড় মজবুত রাখতে এবং স্নায়ু সচল রাখতেও সাহায্য করে। তাই নিয়মিত কাজু বাদাম, আমন্ড বাদাম, পালং শাক, ব্রাউন রাইস, স্যামন মাছ, মুরগীর মাংস প্রভৃতি ম্যাগনেশিয়ামজাতীয় খাবার খাওয়া জরুরি।

হৃদপিন্ডকে সুস্থ রাখতে সাহায্য করে পটাশিয়াম। মিষ্টি আলু, কড়াইশুঁটি, কুমড়ো, কলা, আলি, কমলালেবু, শশা, মাশরুম, কিশমিশ খাওয়া জরুরি।

বিশেষজ্ঞদের মতে, এক্ষেত্রে তাদের মত, স্বাস্থ্যকর খাবারের পাশাপাশি নিয়মিত শরীরচর্চা করাও খুবই জরুরি। এরই সঙ্গে অত্যধিক ধূমপান কিডনির সমস্যার সঙ্গে হাড়েরও ক্ষতি করে। তাই হাড়ের ক্ষয় দূর করে সুস্থ থাকার জন্য ধূমপান এবং মদ্যপান অবশ্যই ত্যাগ করা দরকার।

(ঢাকাটাইমস/২৮নভেম্বর/আরজেড/এজেড)

সংবাদটি শেয়ার করুন

স্বাস্থ্য বিভাগের সর্বাধিক পঠিত

বিশেষ প্রতিবেদন বিজ্ঞান ও তথ্যপ্রযুক্তি বিনোদন খেলাধুলা
  • সর্বশেষ
  • সর্বাধিক পঠিত

শিরোনাম :