শিশুকে ডাক দিতেই গণপিটুনি, পুলিশ আসায় প্রাণে রক্ষা

কুমিল্লা প্রতিনিধি, ঢাকাটাইমস
| আপডেট : ২১ জুলাই ২০১৯, ১৭:০০ | প্রকাশিত : ২১ জুলাই ২০১৯, ১৪:৫০

পদ্মাসেতুর জন্য মানুষের মাথা লাগবে বলে উদ্ভট কথা ছড়িয়ে দেওয়ার পর শুরু হওয়া গণপিটুনি থামছেই না। কুমিল্লায় দুটি ঘটনায় ছেলেধরা সন্দেহে ৬০ বছরের বৃদ্ধ ও নারীসহ পেটানো হয়েছে চারজনকে। তবে পুলিশ ঘটনাস্থলে উপস্থিত হওয়ায় তারা প্রাণে বেঁচে যান।

রবিবার সকাল সাড়ে ১০ টায় জেলার সদর উপজেলার আমড়াতলী ইউনিয়নের ধুতিয়া দিঘীর পাড় এলাকায় এই গণপিটুনির ঘটনা ঘটে। আহতরা জেলার ব্রাহ্মণপাড়া উপজেলার বেজোড়া গ্রামের বাসিন্দা। তাদের মধ্যে একজন নারী এবং দুইজন পুরুষ। নারীর বয়স আনুমানিক ৫০। দুই পুরুষের বয়স আনুমানিক ৬০ বছর হবে। তবে তাদের নাম জানা যায়নি।

আমড়াতলী ইউপি চেয়ারম্যান মোজাম্মেল হোসেন জানান, সকালে ওই তিন ব্যক্তি জেলার ব্রাহ্মণপাড়া উপজেলার বেজোড়া গ্রাম থেকে আমড়াতলী স্কুলের সামনে আসেন। পাশের একটি বাড়ির সামনে গিয়ে একটি ছোট শিশুকে ডাক দিলে তাদেরকে আটক করে এলাকাবাসী। পরে একযোগে চলে পিটুনি। খবর পেয়ে দ্রুত পুলিশ ঘটনাস্থলে এসে আহত অবস্থায় তাদেরকে উদ্ধার করে নিয়ে যায়।

যুবককে পিটুনি

সকালে সদর উপজেলার মাঝিগাছা এলাকায় আরো একটি গণপিটুনির ঘটনা ঘটে। সেখানে পেটানো হয় আরিফ নামে এক যুবককে।

আরিফ ব্রাহ্মণবাড়িয়া জেলার কসবা উপজেলার নয়নপুর এলাকার আবদুর নূর স্বর্ণকারের ছেলে।

কোতয়ালি মডেল থানার তদন্ত পরিদর্শক সালাউদ্দিন জানান, গণপিটুনির খবর পেয়ে পুলিশ তাকে উদ্ধার করে। চিকিৎসার জন্য হাসপাতালে ভর্তি করা হয়েছে।

সম্প্রতি ফেসবুক এবং ইউটিউবে গুজব ছড়িয়ে দেওয়া হয় যে, পদ্মাসেতু নির্মাণে এক লাখ মানুষের মাথা দরকার হবে। এর এ জন্য ৪২টি দল সারাদেশে ছড়িয়ে পড়েছে। তারা প্রধানত শিশুদেরকে হত্যা করবে।

সরকারের পক্ষ থেকে বিবৃতিতে বলা হয়েছে, সেতু করতে মানুষের মাথা দরকার পড়ে না। যারা গুজব ছড়িয়েছে তাদের অন্তত ১০ জনকে গ্রেপ্তার করা হয়েছে। কিন্তু গুজব থামছে না, উল্টো গত বুধবার নেত্রকোণায় একটি শিশুকে গলা কেটে হত্যার ঘটনায় একজনকে গণপিটুনিতে হত্যার পর গুজব ডালপালা মেলেছে আরো।

শনিবার ঢাকার বাড্ডা ও সাভারে দুই জন এবং নারায়ণগঞ্জে একজনকে পিটিয়ে হত্যা করা হয়েছে। আহত হয়েছে একাধিক। এর আগেও ঢাকার মোহাম্মদপুরে পিটিয়ে হত্যা করা হয় এক জনকে। আজ নওগাঁয় ছয় জেলেকে পেটানো হয়েছে তাদের ব্যাগে রাখা মাছকে মানুষের মাথা ভেবে।

কুমিল্লার ঘটনা নিয়ে কোতয়ালি মডেল থানার ছত্রখিল পুলিশ ফাঁড়ির উপপরিদর্শক তপন কুমার বাকচী বলেন, ‘ছেলেধরা সন্দেহে মহিলাসহ তিন ব্যক্তিকে গণপিটুনি দিয়ে আহত করা হয়েছে। আমরা ঘটনাস্থলে গিয়ে তাদেরকে উদ্ধার করেছি। চিকিৎসার জন্য হাসপাতালে নেওয়া হচ্ছে।’

ঢাকাটাইমস/২১জুলাই/প্রতিনিধি/ডব্লিউবি

সংবাদটি শেয়ার করুন

বাংলাদেশ বিভাগের সর্বাধিক পঠিত

বিশেষ প্রতিবেদন বিজ্ঞান ও তথ্যপ্রযুক্তি বিনোদন খেলাধুলা
  • সর্বশেষ
  • সর্বাধিক পঠিত