রিপোর্ট নেয়াকে কেন্দ্র করে ঢামেকে সংঘর্ষ, আহত ২০

নিজস্ব প্রতিবেদক, ঢাকাটাইমস
| আপডেট : ১৮ আগস্ট ২০১৯, ১৮:১৩ | প্রকাশিত : ১৮ আগস্ট ২০১৯, ১৭:২৯

তুচ্ছ ঘটনাকে কেন্দ্র করে ঢাকা মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে সংঘর্ষে জড়িয়েছেন নার্স ও প্যাথলজিস্টদের দুটি পক্ষ। দফায় দফায় ধরে চলা সংঘর্ষে উভয়পক্ষের অন্তত ২০ জন আহত হয়েছেন।

হাসপাতালের নতুন ভবনের দ্বিতীয় তলায় প্যাথলজি বিভাগ থেকে রিপোর্ট সংগ্রহ করা নিয়ে বিতর্কের জেরে বেলা সাড়ে এগারোটার দিকে পক্ষ দুটি সংঘর্ষে জড়ায়।

বেশ কয়েকজন প্রত্যক্ষদর্শী জানান, রাসেল নামে একজনসহ হাসপাতালের চারজন ব্রাদার সিভিল পোশাকে বেলা সাড়ে ১১টার দিকে ঢাকা মেডিকেলের নতুন ভবনের দ্বিতীয় তলার প্যাথলজি বিভাগে যান। তারা একজন রোগীর রিপোর্ট তাড়াতাড়ি দেয়ার জন্য সুপারিশ করেন। প্যাথলজি বিভাগ থেকে জানানো হয়, ‘রিপোর্ট দিতে দেরি হবে। রোগীর চাপ আছে, অপেক্ষা করতে হবে।’

তখন ওই চারজন জানান, তারা হাসপাতালের ব্রাদার। সুতরাং তাড়াতাড়ি রিপোর্টটা দিলে সুবিধা হয়। এ নিয়ে তর্কাতর্কির একপর্যায়ে প্যাথলজিস্ট ও ব্রাদারদের মধ্যে হাতাহাতি শুরু হয়। খবর পেয়ে সেখানে যান প্যাথলজি বিভাগের প্রধান আজিজ আহমেদ খান। সেখানে গিয়ে আজিজ আহমেদ ও সিনিয়র একজন প্যাথলজিস্ট ব্রাদারদের তোপের মুখে পড়েন। এরপর ব্রাদাররা চলে যান। ওই সময় পরিস্থিতি কিছুটা শান্ত হলেও কিছুক্ষণ পর হাসপাতালের ব্রাদাররা মিছিল নিয়ে প্যাথলজি বিভাগে যান। প্যাথলজিস্টরা সংঘবদ্ধ হয়ে ব্রাদারদের প্রতিহত করার চেষ্টা করলে সেখানে আবার সংঘর্ষ শুরু হয়।

কয়েক দফা সংঘর্ষে উভয়পক্ষের ২০ জনের মতো আহত হন। এর ফলে চিকিৎসা সেবা ব্যাহত হচ্ছে।
পরিস্থিতি সামাল দিতে নার্সদের নিয়ে পরিচালক ব্রিগেডিয়ার জেনারেল নাসির উদ্দীন নার্সেস কার্যালয়ের সামনে যান। সেখানে নার্সদের নির্বৃত্ত করার জন্য বক্তব্য দেন। এ সময় ওটি (অপারেশন সেন্টার) কমপ্লেক্স ভবনের ছাদ থেকে নার্সদের ওপর কতিপয় কর্মচারীরা ইট-পাটকেল নিক্ষেপ করে। ইটের আঘাতে রোগীকে দেখতে আসা দুইজন দর্শনার্থী আহত হন।

প্যাথলজিস্ট ও কর্মচারীরা প্রশাসনিক ভবনের পরিচালকের কক্ষের সামনে অবস্থান নিয়ে বিক্ষোভ করেন। পরিস্থিতি সামাল দিতে হাসপাতালের করিডোরসহ সকল গেট ও গুরুত্বপূর্ণ পয়েণ্টে অতিরিক্ত পুলিশ মোতায়েন করা হয়।

পরে বিষয়টি সুরাহার জন্য নার্সদের পক্ষ থেকে সভাপতি কামাল উদ্দিন পাটোয়ারী এবং সাধারণ সম্পাদক আসাদুজ্জামান জুয়েলসহ চার সদস্য এবং কমর্চারী প্রতিনিধিদের নিয়ে পরিচালকের রুমে একটি  সমঝোতা বৈঠক হয়। বৈঠকে সাত সদস্য বিশিষ্ট একটি তদন্ত কমিটি গঠন করা হয়। তাদের সাত দিনের মধ্যে প্রতিবেদন জমা দিতে বলা হয়েছে বলে জানিয়েছেন ঢামেকের পরিচালক নাসির উদ্দিন।

ঢাকাটাইমস/১৮আগস্ট/এএ/এমআর

সংবাদটি শেয়ার করুন

রাজধানী বিভাগের সর্বাধিক পঠিত

বিশেষ প্রতিবেদন বিজ্ঞান ও তথ্যপ্রযুক্তি বিনোদন খেলাধুলা
  • সর্বশেষ
  • সর্বাধিক পঠিত

শিরোনাম :