দলে নতুন খেলোয়াড় চান না পচেত্তিনো

ক্রীড়া ডেস্ক, ঢাকাটাইমস
 | প্রকাশিত : ২১ অক্টোবর ২০১৯, ১৯:৫৫

জানুয়ারিতে শীতকালীন ট্রান্সফার উইন্ডোতে নতুন কোন খেলোয়াড়ের সাথে চুক্তির প্রয়োজন নেই বলে জানিয়েছেন টটেনহ্যাম হটস্পারের প্রধান কোচ মরিসিও পচেত্তিনো।

প্রিমিয়ার লিগে এবারের মৌসুমে বাজে শুরুর পর পচেত্তিনো বেশ চাপের মধ্যে আছেন। ৯ ম্যাচে এ পর্যন্ত মাত্র তিনটিতে জয় এসেছে। তিন পরাজয় ও তিন ড্রয়ে ১২ পয়েন্ট নিয়ে স্পার্সরা টেবিলের সপ্তম স্থানে রয়েছে। এর মধ্যে লেস্টারের বিপক্ষে পরাজয়ে পাশাপাশি তলানির দল ব্রাইটন ও নিউক্যাসেলের বিপক্ষে পরাজয় কোনভাবেই মেনে নিতে পারছে না সংশ্লিষ্টরা।

গত আসরে চ্যাম্পিয়ন্স লিগের ফাইনালিস্টরা চলতি মাসের শুরুতে ঘরের মাঠে বায়ার্ন মিউনিখের কাছে ৭-২ গোলে বিধ্বস্ত হয়েছে। কাল নিজেদের তৃতীয় ম্যাচে রেড স্টার বেলগ্রেডের মোকাবেলা করবে পচেত্তিনো বাহিনী।

কিন্তু তারপরেও জানুয়ারির ট্রান্সফার উইন্ডোকে কাজে লাগিয়ে দলকে শক্তিশালী করার কোন আগ্রহ পচেত্তিনো দেখাননি। এ সম্পর্কে তিনি বলেন, ‘আমার মনে হয়না এটা করার কোন প্রয়োজন আছে। টটেনহ্যামে এই মুহূর্তে যে খেলোয়াড়রা রয়েছেন তাদের ওপর আমরা পূর্ণ আস্থা রয়েছে। যারা পরিবর্তন চায় তাদের মতামতকে আমি শ্রদ্ধা করি। কিন্তু যদি আমাকে সিদ্ধান্ত নিতে বলা হয় তবে আমি আমার সিদ্ধান্তে অটল থাকবো। কারন এই খেলোয়াড়দের কাছ থেকে আমি লড়াই আশা করতে পারি।’

গত গ্রীষ্মে বেশ কয়েকজন খেলোয়াড়কে দলে ভেড়াতে গিয়ে মোটা অঙ্কের অর্থ ব্যয় করেছে স্পার্সরা। ক্লাব রেকর্ড ৬৫ মিলিয়ন পাউন্ডে মিডফিল্ডার টানগাই এমডোম্বেলে ছাড়াও ফুলহ্যাম থেকে ২৫ মিলিয়ন পাউন্ডে লেফট ব্যাক রায়ান সেসেগননকে ও গিওভানি লো সেলসোকে ধারে দলে ভিড়িয়েছে। যদিও দলে আসার পর থেকে দীর্ঘ সময়ের জন্য ইনজুরির কারনে তারা মাঠের বাইরে রয়েছেন। গত মৌসুমেও কোন খেলোয়াড়ের সাথে চুক্তি করেনি টটেনহ্যাম। পোচেত্তিনো অবশ্য বলেছেন সেসেগনো ও লো সেলসো ইনজুরির কারনে বিশ্রামে থাকলেও তাদের ফিরে আসার অপেক্ষায় রয়েছে ক্লাব।

দলের বাজে ফর্মের বিষয়ে পচেত্তিনো বলেন, ‘আমার পুরো দলের ওপর ২০০ ভাগ আস্থা আছে। এই পরিস্থিতি থেকে বেরিয়ে এসে দল ঘুড়ে দাঁড়াবে বলেই আমার বিশ্বাস। এই ধরনের পরিস্থিতিতে আগে বা পরে সব ক্লাবই পড়ে। সবকিছু স্বাভাবিক হতে শুধুমাত্র কিছু সময়ের প্রয়োজন।’

(ঢাকাটাইমস/২১ অক্টোবর/এআইএ)

 

সংবাদটি শেয়ার করুন

খেলাধুলা বিভাগের সর্বাধিক পঠিত

বিশেষ প্রতিবেদন বিজ্ঞান ও তথ্যপ্রযুক্তি বিনোদন খেলাধুলা
  • সর্বশেষ
  • সর্বাধিক পঠিত

শিরোনাম :