আনুশকাকে ডিভোর্স দিতে কোহলিকে আর্জি

বিনোদন ডেস্ক
 | প্রকাশিত : ২৭ মে ২০২০, ০৮:৪৪

লকডাউনের ভারতে আলোচনার কেন্দ্রবিন্দুতে অভিনেত্রী আনুশকা শর্মা প্রয়োজিত ওয়েব সিরিজ ‘পাতাললোক’। প্রথমে দর্শকদের বাঁধভাঙা উচ্ছ্বাস। আর এখন এই সিরিজ নিয়ে একের পর এক বিতর্ক। যার জেরে আনুশকার বিরুদ্ধে পুলিশের কাছে অভিযোগ দায়ের পর্যন্ত করেছেন উত্তরপ্রদেশের এক বিজেপি নেতা নন্দকিশোর গুরজার। পাশাপাশি বিরাট কোহলির উদ্দেশে তার আর্জি, ‘প্লিজ এখনই আনুশকাকে ডিভোর্স দিন!’

কিন্তু কেনিআনুশকার বিরুদ্ধে পুলিশে অভিযোগ দায়ের করলেন ওই বিজেপি নেতা? নন্দকিশোর গুরজারের অভিযোগ, বিনা অনুমতিতে সিরিজে তার ছবি ব্যবহার করেছেন ‘পাতাললোক’-এর নির্মাতারা। শুধু তাই নয়, সিরিজে সাম্প্রদায়িক হিংসা দেখানোর অভিযোগ তুলে জাতীয় নিরাপত্তা আইনের আওতায় আনুশকার বিরুদ্ধে অভিযোগ দায়ের করেছেন উত্তরপ্রদেশের লোনির এই বিজেপি নেতা।

ওয়েবসিরিজে একটি দৃশ্য রয়েছে, যেখানে একটি নিউজপেপার কাটিং দেখানো হয়েছে। কী এমন রয়েছে সেই নিউজপেপার কাটিংয়ে? গাজিয়াবাদের ইউপি গেটের উদ্বোধনের ছবি রয়েছে। ছবিতে উত্তরপ্রদেশের মুখ্যমন্ত্রী যোগী আদিত্যনাথসহ রাজ্যের আরও বেশ কিছু বিজেপি নেতারা রয়েছেন। সেখানে মুখ দেখা গেছে অভিযোগকারী বিজেপি নেতা নন্দকিশোর গুরজরেরও।

আনুশকা প্রযোজিত ‘পাতাললো ‘ ওয়েবসিরিজটি নিষিদ্ধ করার দাবি তুলে কেন্দ্রীয় তথ্য ও সম্প্রচার মন্ত্রী প্রকাশ জাভড়েকরের কাছে আবেদনও করেছেন এই বিজেপি নেতা। তার আরও অভিযোগ, এই ওয়েবসিরিজে সনাতন ধর্মকে আঘাত করে হিন্দুত্ববাদী সংগঠনগুলো সম্পর্কে ভুল বার্তা দেয়া হয়েছে।

‘পাতাললোক’কে দেশদ্রোহী ওয়েবসিরিজ বলেও অভিযোগ করেছেন নন্দকিশোর। তার দাবি, এই সিরিজে নির্দোষ ভারতীয়দের অহেতুক পাকিস্তানি চিহ্নিত করে মামলা সাজিয়েছে সিবিআই। এমন মিথ্যা মামলা আদতে দেশ এবং সমাজকে কলুষিত করতে পারে। হিন্দু-মুসলিম সাম্প্রদায়িক হিংসাও তুলে ধরা হয়েছে বলে জানিয়েছেন তিনি।

এরপরই তিনি আর্জি জানিয়েছেন, ‘বিরাট কোহলি দেশের জন্য ক্রিকেট খেলেন। দেশদ্রোহী ‘পাতাললোক’ দেখার পরই তার উচিত আনুশকা শর্মাকে ডিভোর্স দেয়া।’

এদিকে ‘পাতাললোক’-এ একটি নেপালি চরিত্রের বিরুদ্ধে এক মহিলা পুলিশ অফিসারকে জাতিবিদ্বেষী কথাবার্তা বলতে শোনা গেছে। এমনকী জাত তুলে খোঁটা দিয়ে রীতিমতো গালমন্দও করা হয়েছে। বিষয়টি নিয়ে সর্বপ্রথম আলোকপাত করেন বীরেন শ্রী গুরুং নামে এক আইনজীবী। তিনি জানান, কেবলমাত্র নেপালি শব্দটি ব্যবহার করলে কোনো সমস্যা ছিল না, কিন্তু চরিত্রটির বিরুদ্ধে যেভাবে জাতিবিদ্বেষী উক্তি ধেয়ে এসেছে, তাতে গোর্খা সম্প্রদায়ের মহিলাদের অপমান করা হয়েছে।

আপত্তিমূলক সেই শব্দটি বাদ দেয়ার জন্য গত ১৮ মে সিরিজের প্রযোজক আনুশকা শর্মার কাছে আইনি নোটিশ পাঠিয়েছিলেন আইনজীবী বীরেন। আপত্তিকর সেই শব্দটি বাদ দেয়ার আবেদন করেন তিনি। অনলাইন পিটিশনের মাধ্যমে বিষয়টি কেন্দ্রীয় তথ্য ও সম্প্রচার মন্ত্রী প্রকাশ জাভড়েকরেরও নজরে আনা হয়েছিল।

ঢাকাটাইমস/২৭মে/এএইচ

সংবাদটি শেয়ার করুন

বিনোদন বিভাগের সর্বাধিক পঠিত

বিশেষ প্রতিবেদন বিজ্ঞান ও তথ্যপ্রযুক্তি বিনোদন খেলাধুলা
  • সর্বশেষ
  • সর্বাধিক পঠিত

শিরোনাম :