কমেছে মুরগি-পেঁয়াজের দাম, সবজির বাজার চড়া

নিজস্ব প্রতিবেদক, ঢাকাটাইমস
| আপডেট : ১৪ জানুয়ারি ২০২২, ১২:৫৫ | প্রকাশিত : ১৪ জানুয়ারি ২০২২, ১২:৪৩

সপ্তাহের ব্যবধানে রাজধানীর বাজারগুলোতে কমেছে সব ধরনের মুরগি ও পেঁয়াজের দাম। তবে ভরা মৌসুমেও চড়া দামে বিক্রি হচ্ছে বেশির ভাগ সবজি। বাজারে শীতকালীন সবজির আমদানি বাড়লেও কমছে না সবজির দাম। গত সপ্তাহের মতই বিক্রি হচ্ছে চড়া দামে।

শুক্রবার রাজধানীর শ্যামলী, মোহাম্মদপুর, আগারগাঁও এবং কারওয়ান বাজার ঘুরে বাজার দরের এমন চিত্র দেখা গেছে।

ব্যবসায়ীরা ব্রয়লার মুরগির কেজি বিক্রি করছেন ১৬০ থেকে ১৭০ টাকা, যা গত সপ্তাহে ছিল ১৮০ টাকা। সোনালি মুরগি বিক্রি হচ্ছে ২৫০ টাকা আবার কোথাও কেথাও ২৬০ টাকা কেজি দরে বিক্রি হচ্ছে, যা গত সপ্তাহে কেজি ছিল ২৭০ থেকে ২৮০ টাকা। সেই সঙ্গে লেয়ার মুরগির কেজিতে ১০ টাকা কমে বিক্রি হচ্ছে ২৪০ টাকা, যা গত সপ্তাহে কেজি ছিল ২৫০ টাকা।

রাজধানীর আগারগাঁও বাজারের মুরগি বিক্রেতা জীবন শেখ বলেন, গত দুসপ্তাহ আগেও মুরগির দাম আনেকটা বেড়ে গিয়েছিল। তখন বাড়ার কারণ ছিল নতুন বছর হওয়া চাহিদা বেড়েছিল। তবে এখন চাহিদাটা একটু কম হওয়ার কারণে দাম কমেছে।

জীবন শেখ বলেন, এখন বাজারে নতুন নতুন শীতকালীন সবজি আমদানী হচ্ছে তাই মুরগির চাহিদা কিছুটা কম।

এদিকে সরেজমিনে রাজধানীর সবজি বাজার ঘুরে দেখা গেছে, গত কয়েক সপ্তাহের মতই বাজারে এখনও চড়া দামে সবজি বিক্রি হচ্ছে। আমদানী বাড়লেও দামে কোন প্রকার প্রভাব পরছে না এসব সবজির। এসব বাজারে প্রতি কেজি শিম বিক্রি হচ্ছে ৪০ থেকে ৬০ টাকা, গোল বেগুন ৮০ টাকা, লম্বা বেগুন ৪০ টাকা, বড় ফুলকপি প্রতি পিস ৪০ টাকা, বড় বাঁধাকপি ৪০ টাকা, টমেটো বিক্রি হচ্ছে ৪০ থেকে ৫০ টাকা, করলা ৬০ টাকা, গাঁজর প্রতি কেজি ৪০ টাকা, চাল কুমড়া পিস ৩০ টাকা, মিষ্টি কুমড়ার কেজি ৪০ টাকা, নতুন আলু কেজি ২৫ থেকে ৩০ টাকা, চিচিঙ্গা ৫০ টাকা, পটল ৫০ টাকা, ঢেঁড়স ৬০ টাকা, লতি ৬০ টাকা, মুলা ৪০ টাকা, কচুর লতি ৬০ টাকা, আকারভেদে প্রতি পিস লাউ বিক্রি হচ্ছে ৪০ থেকে ৬০ টাকা, পেঁপে প্রতিকেজি ৩০ টাকা, কাঁচা কলার হালি ২৫ থেকে ৩০ টাকা এবং কাঁচামরিচ প্রতি কেজি বিক্রি হচ্ছে ৬০ থেকে ৮০ টাকা।

এদিকে বাজারে সপ্তাহের ব্যবধানে কেজি প্রতি ৫ থেকে ১০ টাকা কমে প্রতি কেজি পেঁয়াজ বিক্রি হচ্ছে ৪০ টাকা দরে। যা গত সপ্তাহে ছিল ৪৫ থেকে ৫০ টাকা।

এছাড়া বাজারে প্রতি কেজি চায়না রসুন বিক্রি হচ্ছে ১২০ টাকা। দেশি রসুন বিক্রি হচ্ছে ৬০ টাকা কেজি এবং দেশি আদার কেজি ৮০ টাকা দরে বিক্রি হচ্ছে।

সরেজমিনে রাজধানীর মাছবাজার ঘুরে দেখা গেছে, এক কেজি ওজনের ইলিশ মাছ বিক্রি হচ্ছে ১০০০ থেকে ১২০০ টাকা প্রতি পিস, ছোট ইলিশ মাছ কেজি প্রতি ৩৫০ থেকে শুরু করে ৬০০ টাকা পর্যন্ত। চিংড়ি মাছ ৪৫০ থেকে ৬০০ টাকা কেজি। রুই মাছ ২৮০ থেকে ৩৫০ টাকা। কাতল মাছ ২৮০ থেকে ৩৫০ টাকা। তেলাপিয়া ও পাঙাশ মাছের কেজি বিক্রি হচ্ছে ১৫০ থেকে ১৭০ টাকা।

এদিকে বাজারে লাল ডিমের ডজন বিক্রি হচ্ছে ১১০ টাকা। হাঁসের ডিমের ডজন বিক্রি হচ্ছে ১৭০ থেকে ১৮০ টাকা। সোনালী (কক) মুরগির ডিমের ডজন বিক্রি হচ্ছে ১৬০ থেকে ১৬৫ টাকা।

(ঢাকাটাইমস/১৪জানুয়ারি/কেআর)

সংবাদটি শেয়ার করুন

রাজধানী বিভাগের সর্বাধিক পঠিত

বিশেষ প্রতিবেদন বিজ্ঞান ও তথ্যপ্রযুক্তি বিনোদন খেলাধুলা
  • সর্বশেষ
  • সর্বাধিক পঠিত

শিরোনাম :