এনসিসি ব্যাংকের ২৯তম প্রতিষ্ঠা বার্ষিকী উদযাপন

অর্থনৈতিক প্রতিবেদক, ঢাকাটাইমস
 | প্রকাশিত : ১৭ মে ২০২২, ২০:৩১

এনসিসি ব্যাংকের ২৯ তম প্রতিষ্ঠাবার্ষিকী উপলক্ষ্যে আজ মঙ্গলবার বিভিন্ন অনুষ্ঠানের আয়োজন করা হয়। ব্যাংকের চেয়ারম্যান মো. আবুল বাশার ঢাকায় এনসিসি ব্যাংক ভবনে কেক কেটে প্রতিষ্ঠাবার্ষিকী কার্যক্রমের উদ্বোধন করেন।

এসময় ব্যাংকের ভাইস- চেয়ারম্যান মিসেস্ তানজীনা আলী, ঝুঁকি ব্যবস্থাপনা কমিটির চেয়ারম্যান মো. নূরুন নেওয়াজ সেলিম, পরিচালক মিসেস সোহেলা হোসেন, খায়রুল আলম চাকলাদার, অডিট কমিটির চেয়ারম্যান নুরুল ইসলাম চৌধুরী এফসিএ, নমিনেশন ও রিমুনারেশন কমিটির চেয়ারম্যান ইতরাত হোসেন, এফসিএমএ, এফসিএস এবং ব্যবস্থাপনা পরিচালক ও প্রধান নির্বাহী মোহাম্মদ মামদুদুর রশীদ উপস্থিত ছিলেন।

এর পূর্বে, বর্ষপূর্তি উপলক্ষ্যে সাংবাদিকদের সাথে মত বিনিময় অনুষ্ঠানে ব্যাংকের ব্যবস্থাপনা পরিচালক ও প্রধান নির্বাহী মোহাম্মদ মামদুদুর রশীদ বলেন, উদ্ভাবনী প্রযুক্তির ব্যবহার এবং নতুন প্রজন্মে গ্রাহক সৃষ্টির মাধ্যমে দেশের শীর্ষ ৫ ব্যাংকের একটিতে পরিণত হওয়ার লক্ষ্যে কাজ করছে এনসিসি ব্যাংক লিমিটেড। এসময় অতিরিক্ত ব্যবস্থাপনা পরিচালক খন্দকার নাইমুল কবির এবং উপ-ব্যবস্থাপনা পরিচালকবৃন্দ এম আশেক রহমান, মো. মাহবুব আলম, মো. রাফাত উল্লা খান এবং মো. জাকির আনামসহ সিনিয়র ম্যানেজমেন্ট টিমের সদস্যরা উপস্থিত ছিলেন।

এছাড়া অনান্য শাখা ও উপ-শাখায় কেক কাটা হয় এবং প্রধান কার্যালয়ে দোআ মাহফিলের আয়োজন করা হয়। দোয়া মাহফিলে ব্যাংকের প্রতিষ্ঠাকালীন উদ্যোক্তা পরিচালকবৃন্দ যারা প্রয়াত হয়েছেন এবং যারা বেঁচে আছেন তাঁদের কথা স্মরণ করে মোনাজাত করা হয়। প্রতিষ্ঠাবার্ষিকী উপলক্ষ্যে শীঘ্রই ইসলামী ব্যাংকিং কার্যক্রম শুরু করার ঘোষণা দেওয়া হয় এবং গ্রাহক সন্তুষ্টির জন্য “এনসিসি ব্যাংক এনআরবি গৃহ ঋণ এবং মাইক্রো এটিএম” নামে ২টি নতুন পণ্যসেবা চালুর ঘোষণা দেওয়া হয়।

প্রতিষ্ঠাবার্ষিকী উপলক্ষ্যে এনসিসি ব্যাংকের ব্যাংকের চেয়ারম্যান মো. আবুল বাশার বলেন, ব্যাংক হিসেবে এনসিসি ব্যাংকের যাত্রা ১৯৯৩ সালের ১৭ মে। সে হিসেবে ব্যাংকের বয়স এখন ২৯ বছর। আর্থিক প্রতিষ্ঠান হিসেবে কার্যক্রম পরিচালনার সময় বিবেচনায় এনসিসি ব্যাংকের বয়স ৩৭ বছর।

এ দীর্ঘ সময়ে দেশের অর্থনৈতিক সমৃদ্ধির প্রতিটি ধাপে এনসিসি ব্যাংক গুরুত্বপূর্ণ ভূমিকা রেখেছে। ভারী শিল্প, তৈরি পোশাক, বিদ্যুৎ ও অবকাঠামো নির্মাণসহ প্রায় সকল খাতেই এনসিসি ব্যাংকের অবদান রয়েছে। সুশাসন, নৈতিকতা, স্বচ্ছতা ও জবাবদিহিতা প্রতিষ্ঠার মাধ্যমে এনসিসি ব্যাংক ইতিমধ্যে দেশের অন্যতম সেরা ব্যাংকে পরিণত হয়েছে। গ্রাহকের আস্থা নিয়ে এনসিসি ব্যাংক এগিয়ে চলেছে এবং ভবিষতেও এ অগ্রযাত্রা অব্যাহত থাকবে বলে তিনি আশাবাদ ব্যক্ত করেন।

ব্যবস্থাপনা পরিচালক ও প্রধান নির্বাহী মোহাম্মদ মামদুদুর রশীদ বলেন, অদূর ভবিষ্যতে নতুন প্রজন্মের চাহিদা পূরণের লক্ষ্যে দেশের ব্যাংকিং সিস্টেম “ব্রীক এন্ড মর্টার” থেকে ভার্চুয়ালে রূপান্তরিত হবে। ডিজিটাল ব্যাংকিং সেবাগুলো দ্রুত গ্রাহকদের দোরগোড়ায় পৌঁছানোর লক্ষ্যে এনসিসি ব্যাংক উদ্ভাবনী প্রযুক্তির এ্যাপ্লিকেশন ভিত্তিক পণ্য সেবার প্রতি গুরুত্ব আরোপ করেছে। বাংলাদেশের আর্থ-সামাজিক প্রেক্ষাপটে ইসলামিক ব্যাংকিং কার্যক্রম ও অর্থব্যস্থার গুরুত্ব বিবেচনা করে প্রচলিত ধারার ব্যাংকিং এর পাশাপাশি শরিয়াহ্ ভিত্তিক ইসলামি ব্যাংকিং কার্যক্রম শুরু করতে যাচ্ছে।

তিনি বলেন, এনসিসি ব্যাংক বিভিন্ন সেবার মাধ্যমে গ্রাহকদের সন্তুষ্টি অর্জনে কাজ করে যাচ্ছে। এরই ধারাবাহিকতায় “এনসিসি ব্যাংক এনআরবি গৃহ ঋণ এবং মাইক্রো এটিএম” নামে ২টি নতুন পণ্যসেবা চালু করেছে। পরিশেষে তিনি এনসিসি ব্যাংকের উত্তরোত্তর সাফল্যের পেছনে পরিচালনা পর্ষদের সদস্যবৃন্দ, অংশীজন, গ্রাহক ও শুভানুধ্যায়ীবৃন্দ এবং কর্মকর্তা ও কর্মচারীদের অসামন্য অবদানের কথা উল্লেখ করে সকলকে ধন্যবাদ জানান।

(ঢাকাটাইমস/১৭মে/এসকেএস)

সংবাদটি শেয়ার করুন

অর্থনীতি বিভাগের সর্বাধিক পঠিত

বিশেষ প্রতিবেদন বিজ্ঞান ও তথ্যপ্রযুক্তি বিনোদন খেলাধুলা
  • সর্বশেষ
  • সর্বাধিক পঠিত

শিরোনাম :