​রূপকথার জিয়নকাঠি শেখ হাসিনা

আশিকুর রহমান অমি
| আপডেট : ২৮ ডিসেম্বর ২০২২, ২০:৪৭ | প্রকাশিত : ২৮ ডিসেম্বর ২০২২, ১৭:২৯

বাংলাদেশ নামক রাষ্ট্রের পথ পরিক্রমায় আমাদের যাপিত জীবনে আমরা বরাবরই দেখেছি যে এদেশের মানুষ খুবই শান্তিপ্রিয় এবং স্বপ্নবাজ। শান্তি এবং স্বপ্নের মাঝে এক অদ্ভুত ধরনের মিল রয়েছে। মানুষ জেগে জেগে যে স্বপ্ন দেখে সেই স্বপ্নে তারা একটি সমৃদ্ধ আগামীতে শান্তির কুঠিকে আঁকড়ে ধরে তার আগামীর স্বপ্নের সিড়ি নির্মান করে। বাংলাদেশের রাজনৈতিক অস্তাচলেও এই জনগণ শান্তির নীড়কে নিজেদের ঠিকানা মনে করে।

প্রসঙ্গত আজ একটি ঐতিহাসিক দিন, আজকের দিনেই ২০০৮ সালের নির্বাচনে দিন বদলের সনদ ও ডিজিটাল বাংলাদেশের অঙ্গীকারকে বুকে ধারণ ও লালন করে এদেশের আপামর জনগন নৌকা মার্কার উপরে আস্থা রেখে তাদের আগামীর বাংলাদেশের স্বপ্নকে আঁকড়ে ধরেছিল, ধরেছিল শান্তির নীড়ে যাত্রা করবার জন্য এক নির্ভরতার ঠিকানা। বাংলাদেশের জনগণ সেই ২০০১-২০০৬ এবং ২০০৬ এরপর উদ্ভুত রাজনৈতিক অচলায়তন ১/১১ এর দুর্বিষহ দিনগুলোর স্বাক্ষী হয়ে সেই নির্বাচনে নিজেদের ম্যান্ডেট বাংলাদেশ আওয়ামী লীগের হাতে ন্যস্ত করেছিল। সেই উত্তাল সময়ের দিকে তাকালেই আমরা দেখি, কখনও অপারেশন ক্লিন হার্টের নাম করে, নামে বেনামে কত মানুষকে গুম, খুন ও বিচার বহির্ভূত হত্যা কখনও জঙ্গীবাদের মদদ দিয়ে এদেশের মানুষকে জিম্মি করে ত্রাসের রাজত্ব কায়েম কিংবা এদেশে সন্ত্রাসের অভয়ারণ্য গড়বার ফন্দি ফিকির করেছিল বন্দুকের নল আর বুলেট বেয়নেটের চোয়াল থেকে বেড়ে ওঠা তথাকথিত রাজনৈতিক দল বিএনপি-জামায়াত।

জলপাই রঙের উর্দি পরা বাহিনীকে মাঠে নামিয়ে সেসময়ে রাষ্ট্রযন্ত্রে সামরিক সৌকর্য সাধনের অপপ্রয়াস কিংবা রাজনৈতিক প্রতিদ্বন্দ্বীকে চিরতরে ঘায়েল করবার ষড়যন্ত্র কোন কিছুতেই আঁধারের হাতছানি আলোর সন্নিকটে যাওয়ার সুযোগ পায়নি।

কখনও খাম্বা লিমিটেড তো কখনও হাওয়া ভবনের হুকুমজারি সকল কিছুই এদেশের শান্তিপ্রিয় জনগণ নিরবে নিভৃতে পরখ করেছে। এদেশের জনগণ কখনও তার সন্তান কখনও তার বাবা মাকে গ্রেনেডের স্প্লিন্টারে ধুঁকতে দেখেছে তো কখনও নিজেদের সহায় সম্পত্তি অযাচিতভাবে লুট হতে দেখেছে৷

সেসময়ের ক্রান্তিকাল আজ সুদূর অতীত। খাতা কলম কিংবা অর্থনৈতিক সমীক্ষার দিকেও যদি আজ আমরা নজর দিই তাহলে আমরা দেখতে পাই যে, ২০০১-০২ থেকে ২০০৫-০৬ অর্থবছরে বাংলাদেশের গড় অর্থনৈতিক প্রবৃদ্ধি ছিল ৫.৪০ শতাংশ, পক্ষান্তরে ২০০৯-১০ হতে ২০১৩-১৪ অর্থবছরে প্রবৃদ্ধি হয়েছে গড়ে ৬.১৪ শতাংশ হারে।

বিগত ২০০৫-০৬ অর্থবছরে মাথাপিছু আয় ছিল মাত্র ৫৪৩ মার্কিন ডলার, যা ২০১৩-১৪ অর্থবছরে দ্বিগুণেরও বেশি বৃদ্ধি পেয়ে দাঁড়িয়েছে ১,১৯০ মার্কিন ডলারে যা বর্তমানে ২৮০০ মার্কিন ডলার অতিক্রম করেছে। কিন্তু সেই আগুনের দিনগুলি থেকে বাংলাদেশ আওয়ামী লীগ যে দিনবদলের ডাক দিয়েছিল সেই দিন বদলের ডাকে বাংলাদেশের আপামর জনগন যে সারা দিয়েছিল সে ডাকের মান ও মর্যাদা আওয়ামী লীগ সরকার পরিপূর্ণ ভাবেই অক্ষুণ্ণ রেখেছে। কেননা ২০০৮ এর ২৮ ডিসেম্বর রাষ্ট্রযন্ত্রের দায়িত্ব নিয়ে মাত্র ৪ বছরের পথের পরিক্রমায় এদেশের জনগণের মাথাপিছু আয় বেড়েছিলো দিগুণেরও বেশি।

কোন জাদুর কাঠি দিয়ে আওয়ামী লীগ সরকার তা করে দেখিয়েছিল আজ যদি প্রশ্ন করা হয় তাহলে বলতে হবে আমাদের কোন জাদুর লাঠি নয় বরং রক্ত মাংসের গড়া এক জিয়নকাঠি রয়েছেন আর তিনি খোদ বঙ্গবন্ধুর সুযোগ্য কন্যা দেশরত্ন জননেত্রী শেখ হাসিনা। আঁধারের কিনার থেকে যিনি এদেশকে আলোর সন্নিকটে প্রবাহিত করেছেন তাঁর দূরদর্শী নেতৃত্ব, অপরিমেয় সাহস আর সম্মোহনী শক্তি দিয়ে। যিনি একাধারে একজন নেতা, একজন মাতা এবং একজন রাষ্ট্র নির্মাতা।

সূদুর অতীতের সেসময়ে দুর্নীতিতে বারংবার বিশ্বচ্যাম্পিয়ন হওয়া দেশ আজ মেট্রোরেলের যুগে প্রবেশ করেছে। আগামীতে হাতছানি দিচ্ছে ক্যাশলেস স্মার্ট সোসাইটি ও স্মার্ট বাংলাদেশ। ডিজিটাল বাংলাদেশ সূচিত হওয়ার পর দিগ্বিজয়ী রূপকল্পের দিকে এগুচ্ছেন দেশরত্ন শেখ হাসিনা। ভিশন ২০৪১ রূপকল্প ও ডেল্টা প্ল্যান এদেশের মানুষের ভাগ্য বদলের সনদে রূপান্তরিত হতে যাচ্ছে।

পুনশ্চঃ , বিশ্বমন্দার ধাক্কা, পরাক্রমশালী দেশগুলোর মাঝে সরাসরি কিংবা অর্থনৈতিক যুদ্ধে যখন পুরো বিশ্বে নাস্তানাবুদ পরিস্থিতি সেসময়ে একদল প্রথাগত গোষ্ঠী এদেশকে শ্রীলঙ্কা বানিয়ে ভবিষ্যদ্বানী করেছিলেন। অথচ সেই অন্ধ দোকানীদের বুড়ো আঙুল দেখিয়ে আজকের মেট্রোরেলের বাংলাদেশ আগামীর সিঙ্গাপুর হওয়ার স্বপ্ন দেখে। ১৯৭১ সালের সেই উত্তাল সময়ের স্লোগান আর আজকের একুশ শতকের বারুদমাখা স্লোগানকে যদি ব্যবচ্ছেদ করা হয় কিংবা খুঁজে ফেরা হয় তাহলে সেময়ের স্লোগান - “পিন্ডি না ঢাকা? ঢাকা.. ঢাকা..” আর আজকের - “বাংলাদেশ যাবে কোনপথে? শ্রীলঙ্কা না সিঙ্গাপুর? সিঙ্গাপুর... সিঙ্গাপুর...” এই স্লোগানের মর্মার্থ সেই উত্তাল সময়ের সংগ্রামকে আবারও নতুন করে হাতছানি দিয়ে ফেরে। হয়তো এটিই সেই দিনবদলের দিনক্ষণ আর আমাদের এই দিনবদলের দিনক্ষণের রূপকথার জিয়নকাঠি দেশরত্ন জননেত্রী শেখ হাসিনা। এভাবেই অপ্রতিরোধ্য অগ্রযাত্রায় অদম্য হয়ে উঠুক বাংলার সকল শান্তিপ্রিয় ও স্বপ্নবাজ মানুষ।

লেখক- সাবেক সাংগঠনিক সম্পাদক, ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয় ছাত্রলীগ

সংবাদটি শেয়ার করুন

মতামত বিভাগের সর্বাধিক পঠিত

বিশেষ প্রতিবেদন বিজ্ঞান ও তথ্যপ্রযুক্তি বিনোদন খেলাধুলা
  • সর্বশেষ
  • সর্বাধিক পঠিত

মতামত এর সর্বশেষ

এই বিভাগের সব খবর

শিরোনাম :