বন্ধুর শিক্ষা-জন্মসনদে নিজের ছবি বসিয়ে চাকরি, ১৯ লাখ টাকা নিয়ে উধাও

নিজস্ব প্রতিবেদক, ঢাকা টাইমস
 | প্রকাশিত : ০৮ জুন ২০২৩, ১৮:৪০

নিজের প্রকৃত নাম-পরিচয় গোপন করে মো. জাহাঙ্গীর আলম নামে এক স্কুল সহপাঠীর শিক্ষাগত সনদপত্র, জন্ম সনদ এবং জীবনবৃত্তান্ত কৌশলে সংগ্রহ করে সেখানে নিজের ছবি যুক্ত করে নেন মো. হেলাল উদ্দিন (৩৫)।

নিজেকে জাহাঙ্গীর আলম পরিচয় দিয়ে ২০১৮ সালের ১ সেপ্টেম্বরে তানজিম প্রিন্টিং অ্যান্ড প্যাকেজিং লিমিটেডের অফিসার (সেলস এন্ড বিপনন) পদে নিয়োগও পান হেলাল। পরে প্রতিষ্ঠানটির উৎপাদিত প্লাস্টিক সামগ্রী বিভিন্ন দোকান, অফিস ও প্রতিষ্ঠানের কাছে বিক্রি করে ১৯ লাখ ২১ হাজার ৫০০ টাকা আত্মসাত করে পালিয়ে যান। বুধবার (৭ জুন) রাতে রাজধানীর সায়েদাবাদ বাস টার্মিনাল এলাকা থেকে প্রতারক মো. হেলাল উদ্দিনকে গ্রেপ্তার করে পুলিশ ব্যুরো অব ইনভেস্টিগেশন-পিবিআই।

বৃহস্পতিবার (৮ জুন) দুপুরে এই তথ্য জানান পিবিআইয়ের অতিরিক্ত পুলিশ সুপার (গণমাধ্যম) আবু ইউসুফ। তিনি জানান, ২০১৮ সাল থেকে ২০২১ সালের ৯ মে পর্যন্ত তানজিম প্রিন্টিং এন্ড প্যাকেজিং কোম্পানিতে অফিসার (বিক্রয় ও বিপনন) পদে কর্মরত ছিলেন মো. হেলাল উদ্দিন। কোম্পানিটিতে নিজের প্রকৃত নাম পরিচয় গোপন করে মো. জাহাঙ্গীর আলমের শিক্ষাগত সনদপত্র, জন্ম সনদ এবং জীবনবৃত্তান্তে মো. হেলাল উদ্দিন তার নিজের ছবি যুক্ত করে চাকরির নিয়োগ পান।

জাহাঙ্গীর আলমের নাম ধারণ করেই কোম্পানিটিতে কাজ করে আসছিলেন। চাকরিতে থাকা অবস্থায় হেলাল উদ্দিন প্রতিষ্ঠানটির উৎপাদিত প্লাস্টিক সামগ্রী বিভিন্ন দোকান, অফিস ও প্রতিষ্ঠানের কাছে বিক্রি করে মোট ১৯ লাখ ২১ হাজার ৫০০ টাকা নিয়ে অফিসে জমা দেননি। সেই টাকা আত্মসাত করে পালিয়ে যান। এই ঘটনায় মোহাম্মদপুর থানায় তানজিম প্রিন্টিং এন্ড প্যাকেজিংয়ের ব্যবস্থাপনা পরিচালক মোহাম্মদ গোলাম হোসেন ২০২১ সালেই মামলা করেন।

মামলার তদন্তের বিষয়ে পিবিআই জানায়, মামলাটির তদন্তের দায়িত্ব পাওয়ার পর দেখা যায়, যার কাগজপত্র ব্যবহার করা হয়েছে তিনি প্রকৃতপক্ষে মো. জাহাঙ্গীর আলম এবং হেলাল উদ্দিনের স্কুল জীবনের সহপাঠী ছিল। তিনি বর্তমানে ভোলার চর মোতাহার আলিম মাদ্রাসায় ৪র্থ শ্রেণির কর্মচারী পদে চাকরি করছেন। তারা পাশাপাশি এলাকায় বসবাস করার সুবাদে কৌশলে মো. হেলাল উদ্দিন তার বন্ধু মো. জাহাঙ্গীর আলমের অজ্ঞাতে তার শিক্ষাগত সনদপত্র, জন্ম সনদ, ইউনিয়ন পরিষদের সনদপত্র ও জীবনবৃত্তান্তের ফটোকপি সংগ্রহ করে রাখেন। সেই কাগজ দিয়ে প্রথমে সুহৃদ ইন্ডাস্ট্রিজ লি. কোম্পানিতে এবং পরে তানজিম প্রিন্টিং এন্ড প্যাকেজিং লি. কোম্পানিসহ বিভিন্ন কোম্পানিতে চাকরি করে আসছিল।

আসামির বিরুদ্ধে ভুয়া কাগজপত্র দিয়ে চাকরি করে প্রতারণা ও বিশ্বাস ভঙ্গের মাধ্যমে টাকা আত্মসাতের অভিযোগ। বুধবার (৭ জুন) রাজধানীর সায়েদাবাদ বাস টার্মিনাল এলাকা থেকে তাকে গ্রেপ্তার করা হয়।

(ঢাকাটাইমস/০৮জুন/এএ/কেএম)

সংবাদটি শেয়ার করুন

অপরাধ ও দুর্নীতি বিভাগের সর্বাধিক পঠিত

বিশেষ প্রতিবেদন বিজ্ঞান ও তথ্যপ্রযুক্তি বিনোদন খেলাধুলা
  • সর্বশেষ
  • সর্বাধিক পঠিত

অপরাধ ও দুর্নীতি এর সর্বশেষ

এমপি আনারের হাত-পা বাঁধা ছবি প্রকাশ

জাহাজ মেরামতে ক্লায়েন্ট সেজে অর্থ হাতিয়ে নেওয়ার চেষ্টার অভিযোগ

সহকর্মী পুলিশ সদস্যকে গুলি করে হত্যার কারণ নিয়ে যা জানা গেল

ঝিনাইদহ জেলা আ.লীগ নেতা মিন্টু প্রসঙ্গে যা জানাল ডিবি

সিটি গ্রুপের দুই পরিচালকসহ ৪ জনের বিরুদ্ধে মামলা করছে দুদক

এমপি আনারের নগ্ন ছবি কি আ.লীগ নেতা মিন্টুর ফোনে ছিল? একারণেই গ্রেপ্তার?

এমপি আনার হত্যা: এবার ঝিনাইদহ জেলা আ.লীগ সম্পাদক মিন্টু আটক

১৫২ কোটি টাকা আত্মসাৎ: সাবেক ভ্যাট কমিশনার ওয়াহিদার বিরুদ্ধে মামলা

বিয়ের প্রলোভনে ধর্ষণ, টিকটকার মামুন গ্রেপ্তার

ফরিদপুরে মিলেছে নারীর মাথা, ঢাকায় হাত-পা, পরিচয় শনাক্তে সহযোগিতা চায় পিবিআই

এই বিভাগের সব খবর

শিরোনাম :