ভূঞাপুরে যমুনার ভাঙনে আতঙ্কিত নদীপাড়ের মানুষ

ভূঞাপুর (টাঙ্গাইল) প্রতিনিধি, ঢাকাটাইমস
 | প্রকাশিত : ০১ জুলাই ২০১৯, ১৬:৪৭

যমুনায় পানি বৃদ্ধির সঙ্গে সঙ্গে টাঙ্গাইলের ভূঞাপুর অংশে শুরু হয়েছে তীব্র নদী ভাঙন। গত বৃহস্পতিবার রাতে উপজেলার গোবিন্দাসী ইউনিয়নের খানুরবাড়ী থেকে ভালকুটিয়া পর্যন্ত প্রায় অর্ধ কিলোমিটার এলাকাজুড়ে শুরু হয়েছে এ ভাঙন।

এতে কয়েক ঘণ্টার ব্যবধানে চারটি বসতভিটা নদীতে বিলীন হয়ে গেছে। এছাড়া ফসলি জমি ও গাছপালা নদী গর্ভে চলে গেছে। ক্ষতিগ্রস্তরা এখন মানবেতর জীবনযাপন করছেন।

বিগত কয়েক বছরে শত শত একর ফসলি জমি ও বসতভিটা চলে গেছে এই নদীতে। এতে হুমকির মুখে রয়েছে গোবিন্দাসী বাজার, ছয়টি প্রাথমিক বিদ্যালয়, তিনটি উচ্চ বিদ্যালয়, একটি মাদ্রাসা, মসজিদ ও একটি মন্দিরসহ বিভিন্ন প্রতিষ্ঠান।

কষ্টাপাড়া গ্রামের আব্দুল্লাহ আল মামুন বলেন, কোনোভাবেই বসতভিটা রক্ষা করতে পারলাম না। বিগত দিনে বিভিন্ন জায়গায় অভিযোগ করেও কোনো কাজ হয়নি।

তিনি আরো বলেন, নদী থেকে অবৈধভাবে বালু উত্তোলন ও বাংলা ড্রেজার দিয়ে মাটি কাটার কারণেই এ ভাঙন দেখা দিয়েছে।
খানুরবাড়ী গ্রামের রশিদ মাস্টার বলেন, গত কয়েক বছর আগে আমার বাড়ি ও লেয়ার ফার্ম এ নদী গর্ভে চলে গেছে। সরকারের কাছে আবেদন শিগগির খানুরবাড়ি থেকে চিতুলিয়াপাড়া পর্যন্ত বেড়ি বাঁধ নির্মাণ করা হোক।

ভুক্তভোগী খানুরবাড়ি গ্রামের ইমান আলী বলেন, দীর্ঘদিনের বসতভিটা এ যমুনায় বিলীন হয়ে গেছে। আমি গরিব মানুষ, আমার পরিবার নিয়ে এখন কোথায় যাব? অন্যত্র বাড়ি করার মতো সামর্থ্যও নেই।

এদিকে গত শুক্রবার সকালে নদী ভাঙন কবলিত এলাকা পরিদর্শন করেন স্থানীয় সাংসদ ছোট মনির, উপজেলা চেয়ারম্যান আব্দুল হালিম, উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা ঝোটন চন্দা।

(ঢাকাটাইমস/১জুলাই/এলএ)

সংবাদটি শেয়ার করুন

বাংলাদেশ বিভাগের সর্বাধিক পঠিত

বিশেষ প্রতিবেদন বিজ্ঞান ও তথ্যপ্রযুক্তি বিনোদন খেলাধুলা
  • সর্বশেষ
  • সর্বাধিক পঠিত

শিরোনাম :