ময়মনসিংহে জঞ্জালে মুখ ঢেকেছে নগরীর সৌন্দর্য

মনোনেশ দাস, ময়মনসিংহ
| আপডেট : ০৪ আগস্ট ২০১৯, ১০:৩১ | প্রকাশিত : ০৪ আগস্ট ২০১৯, ১০:৩০

পৌরসভা থেকে হয়েছে ময়মনসিংহ সিটি করপোরেশন। বদলে যাচ্ছে ঘর-বাড়ি স্থাপনা। বদলে যাচ্ছে চারপাশ। কিন্তু একটাই দৃশ্য যার কোন বদল হয় না। আর তা হলো- সর্বত্র ছড়িয়ে থাকা আবর্জনার স্তূপ।

১৮১১ সালে অর্থাৎ ব্রিটিশ আমলে এই শহর তৈরি হলেও এখনও কোন ডাম্পিং গ্রাউন্ড তৈরি হয়নি। তাই জঞ্জালে মুখ ঢেকেছে ময়মনসিংহ নগরের সৌন্দর্য।

নগরবাসীর অভিযোগ, সিটি করপোরেশন কর্তৃপক্ষেরও কিছুটা দায় আছে, শুধু স্থাপনা করে রেখে দিলে হবে না, এর যথাযথ রক্ষণাবেক্ষণ করতে হবে। কারা নোংরা ও নষ্ট করছে- তাদের শাস্তির আওতায় আনতে হবে। অন্যথায় তাদের অবদান অচিরেই মানুষ ভুলে যাবে।

নগরের বাসিন্দা সিরাজুস সালেকিন বলেন, ‘আমাদের শহরের সৌন্দর্য বর্ধনে মেয়র মহোদয় অনেক প্রকল্প হাতে নিয়েছেন। তার মধ্যে বিভিন্ন মোড় বা চত্বরে মনোমুগ্ধকর স্থাপনা তৈরি করেছেন। তেমনি একটি স্থাপনা হচ্ছে বড় মসজিদ, বড় বাজার ও চকবাজারের ‘ইক্বরা’। এই ‘ইকরা’ হচ্ছে পবিত্র কোরআনের প্রথম অবতীর্ণ আয়াতের স্থাপনা। আজ এই স্থাপনাটি ডাস্টবিনে পরিণত করেছে কিছু নোংরা মনের মানুষ।’

অভিযোগ রয়েছে, নগরের নগরীর পাটগুদাম শম্ভুগঞ্জ সেতু সংলগ্ন ময়মনসিংহ-কিশোরগঞ্জ, নেত্রকোনা- শেরপুর সড়কের পাশে জমে থাকা আবর্জনা থেকে ছড়াচ্ছে দূষণ। সেই সঙ্গে বাড়ছে মশা, মাছির উপদ্রব। পতঙ্গবাহিত রোগ ছড়াচ্ছে নগরবাসীর মধ্যে।

সেই নোংরা আবর্জনার উপর দিয়েই পথ চলতে হয় যানবাহনের যাত্রী, চালক-হেলপার ও সাধারণ মানুষকে।

ময়মনসিংহ সিটি করপোরেশনের প্রধান নির্বাহী কর্মকর্তা মোহাম্মদ আনোয়ার হোসেন জানান, সেতু সংলগ্ন আবর্জনা স্থানান্তরসহ ৩২ কোটি টাকার প্রকল্প বরাদ্দের সম্ভাবনা আছে। সমাধানের চেষ্টা চলছে।

(ঢাকাটাইমস/০৪আগস্ট/এমডি/এলএ)

সংবাদটি শেয়ার করুন

বাংলাদেশ বিভাগের সর্বাধিক পঠিত

বিশেষ প্রতিবেদন বিজ্ঞান ও তথ্যপ্রযুক্তি বিনোদন খেলাধুলা
  • সর্বশেষ
  • সর্বাধিক পঠিত

শিরোনাম :