‘শিক্ষা ছাড়া নারীর মুক্তি নেই’

বিশেষ প্রতিনিধি, ফরিদপুর
 | প্রকাশিত : ০৯ ডিসেম্বর ২০১৯, ১৭:৩২

ফরিদপুরের জেলা প্রশাসক অতুল সরকার বলেছেন, বেগম রোকেয়া তার জীবন সংগ্রামের মাধ্যমে বুঝতে পেরেছিলেন যে- শিক্ষা ছাড়া নারীর মুক্তি নেই। কেননা একমাত্র শিক্ষাই পারবে আমাদের মুক্তির আলোয় নিয়ে আসতে নিজেদের প্রাপ্য সম্মান পাওয়ার জন্য শিক্ষার বিকল্প নেই। মেয়েদের জন্য বিদ্যালয় প্রতিষ্ঠা করতে গিয়ে তাকে কম গঞ্জনা শুনতে হয়নি। ঘরে ঘরে গিয়ে তিনি মেয়েদের বিদ্যালয়ে আসতে অনুরোধ করতেন। কিন্তু তিনি থেমে যাননি। নিরলস পরিশ্রমের মাধ্যমে ধীরে ধীরে শিক্ষার্থীদের সংখ্যা হাজারের দিকে যায়। তিনি সবসময় সাম্যের ডাক দিয়ে গেছেন। তিনি পুরুষতান্ত্রিক কিংবা নারীতান্ত্রিক সমাজ গড়তে চাননি। তিনি চেয়েছিলেন সমাজে নারী ও পুরুষ যাতে একসাথে সমান মর্যাদা এবং অধিকার নিয়ে বাঁচে। উনিশ শতকের দিকে যখন মেয়েরা ছিল অবরোধবাসিনী, তখন তিনিই সেই ঝিমিয়ে পড়া নারী জাতিকে জাগিয়ে তুলেছিলেন, নারীর পরাধীনতার বিরুদ্ধে সোচ্চার হয়েছিলেন।

বেগম রোকেয়া দিবস উদযাপন পক্ষ উপলক্ষে আয়োজিত আলোচনা সভায় প্রধান অতিথির বক্তব্যে তিনি এসব কথা বলেন। এসময় জেলার বিভিন্ন ক্ষেত্রে অবদান রাখার জন্য পাঁচ জয়িতাকে সম্মাননা দেয়া হয়।

সোমবার দুপুরে ফরিদপুর জেলা প্রশাসকের সম্মেলন কক্ষে এই পুরস্কার দেয়া হয়। সম্মাননা পাওয়া জয়িতা নারীরা হলেন- অর্থনৈতিক ক্ষেত্রে মধুখালী উপজেলার সাবিনা ইয়াসমিন, শিক্ষা ও চাকরি ক্ষেত্রে ভাঙ্গা উপজেলার দিপালী রানী, সফল জননী সদরপুর উপজেলার ফাতেমা বেগম, উদ্যেমী নারী হিসেবে মধুখালীর বিথী, সমাজ উন্নয়নে সদর উপজেলার মিনি আক্তার।  

এসময় আরো বক্তব্য দেন- অতিরিক্ত জেলা প্রশাসক (সার্বিক) রোকসানা রহমান, অতিরিক্ত পুলিশ সুপার জামাল পাশাসহ পাঁচ জয়িতা।

(ঢাকাটাইমস/৯ডিসেম্বর/এলএ)

সংবাদটি শেয়ার করুন

বাংলাদেশ বিভাগের সর্বাধিক পঠিত

বিশেষ প্রতিবেদন বিজ্ঞান ও তথ্যপ্রযুক্তি বিনোদন খেলাধুলা
  • সর্বশেষ
  • সর্বাধিক পঠিত

শিরোনাম :