ঢাকা দক্ষিণে মেয়র তাপস, উত্তরে আতিক

নিজস্ব প্রতিবেদক, ঢাকাটাইমস
| আপডেট : ০২ ফেব্রুয়ারি ২০২০, ০৭:৩৯ | প্রকাশিত : ০২ ফেব্রুয়ারি ২০২০, ০০:৩৫

ঢাকা দক্ষিণ সিটি করপোরেশন নির্বাচনে বড় ব্যবধানে মেয়র পদে নির্বাচিত হয়েছেন আওয়ামী লীগের মনোনীত প্রার্থী ব্যারিস্টার শেখ ফজলে নূর তাপস। অন্যদিকে উত্তর সিটিতেও বড় ব্যবধানে জয় পেয়েছেন আওয়ামী লীগের প্রার্থী আতিকুল ইসলাম।

শনিবার দিবাগত রাত ১২টা ৪০ মিনিটে তাপসকে বিজয়ী ঘোষণা করেন নির্বাচন কমিশন সচিবালয়ের যুগ্ম-সচিব ও ডিএসসিসির রিটার্নিং কর্মকর্তা মো. আব্দুল বাতেন। রিটার্নিং কর্মকর্তা জানান, তাপস পেয়েছেন চার লাখ ২৪ হাজার ৫৯৫ ভোট। তার নিকটতম প্রতিদ্বন্দ্বী বিএনপির ধানের শীষ প্রতীকের প্রার্থী ইশরাক হোসেন পেয়েছেন দুই লাখ ৩৬ হাজার ৫১২ ভোট। সেগুনবাগিচার শিল্পকলা একাডেমি মিলনায়তনে এ ফল ঘোষণা করা হয়।

এই সিটির ৭৫টি ওয়ার্ডে মোট ভোটার ২৪ লাখ ৫৩ হাজার ২৩৪টি। মোট এক হাজার ১৫০টি কেন্দ্রে ভোট গ্রহণ হয়েছে।

ঢাকা উত্তরে নৌকা প্রতীকে আতিকুল পেয়েছেন চার লাখ ১৫ হাজার ৮০২ ভোট। তার নিকটতম প্রতিদ্বন্দ্বী বিএনপির প্রার্থী তাবিথ আউয়াল পেয়েছেন দুই লাখ ৪২ হাজার ৮৪১ ভোট। আওয়ামী লীগ প্রার্থী এক লাখ ৭২ হাজার ৯৬১ ভোটে বিজয়ী।

ঢাকা উত্তর সিটিতে মোট সাধারণ ওয়ার্ড ৫৪টি ও সংরক্ষিত ওয়ার্ড ১৮টি। এই সিটিতে মোট ভোটার সংখ্যা ৩০ লাখ ১০ হাজার ২৭৩ জন। এখানে ভোটকেন্দ্র রয়েছে এক হাজার ৩১৮টি।

আর ঢাকা দক্ষিণ সিটি করপোরেশনে আওয়ামী লীগ ও বিএনপি ছাড়া মেয়র পদে জাতীয় পার্টির প্রার্থী হাজী সাইফুদ্দিন আহমেদ মিলন (লাঙ্গল) পাঁচ হাজার ৫৯৩ ভোট, গণফ্রন্টের আবদুস সামাদ সুজন ১২ হাজার ৬২৭, বাংলাদেশ কংগ্রেসের মো. আকতার উজ্জামান ওরফে আয়াতুল্লাহ (ডাব) দুই হাজার ৪২১, ইসলামী আন্দোলনের মো. আবদুর রহমান (হাতপাখা) ২৬ হাজার ৫২৫ এবং ন্যাশনাল পিপলস পার্টির (এনপিপি) বাহারানে সুলতান বাহার (আম) পেয়েছেন তিন হাজার ১৫৫ ভোট।

উত্তর সিটি করপোরেশনে মেয়র পদে অন্য প্রার্থীদের মধ্যে কাস্তে প্রতীকে সিপিবির আহম্মেদ সাজেদুল হক রুবেল ১৫ হাজার ১২২ ভোট, হাতপাখা প্রতীকে ইসলামী আন্দোলনের শেখ ফজলে বারী মাসউদ ২৮ হাজার ২০০ ভোট, আম প্রতীকে এনপিপির আনিসুর রহমান দেওয়ান তিন হাজার ৮৫৩ ভোট এবং বাঘ প্রতীকে পিডিপির শাহীন খান দুই হাজার ১১১ ভোট পেয়েছেন।

কোনোরূপ অপ্রীতিকর ঘটনা ছাড়া নির্বিঘ্নে সম্পন্ন হয়েছে ঢাকার দুই সিটি করপোরেশনের ভোট। মেয়র ও কাউন্সিলর নির্বাচনের জন্য শনিবার সকাল আটটা থেকে বিকাল চারটা পর্যন্ত নিরবচ্ছিন্নভাবে ভোট নেওয়া হয় ইলেকট্রনিক ভোটিং মেশিনে (ইভিএমে)।

এবারের সিটি নির্বাচনে উ’সবমুখর পরিবেশে প্রচারণা চললেও ভোটের দিন কেন্দ্রে ভোটার উপস্থিতি ছিল কম। রিটার্নিং অফিসার কর্তৃক ঘোষিত ফলাফল থেকেও এর প্রতিফলন দেখা যায়। ভোটারের কম উপস্থিতির কথা প্রধান নির্বাচন কমিশনার থেকে শুরু করে প্রধান দুই প্রার্থী ও তাদের দলীয় নেতাদের মুখে শোনা গেছে।

ভোটে বড় ধরনের কোনো অপ্রীতিকর ঘটনা ঘটেনি। কয়েকটি ওয়ার্ডে কাউন্সিলর প্রার্থীদের সমর্থকদের মধ্যে সংঘর্ষের ঘটনা ঘটেছে। ঢাকা দক্ষিণ সিটি করপোরেশন নির্বাচনে ভোট কারচুপি, এজেন্ট ঢুকতে না দেওয়া, অন্যের ভোট জোর করে দেওয়ার অভিযোগ করে ১৯৮টি কেন্দ্রে ভোট স্থগিত চেয়েছে বিএনপি। শনিবার বেলা সাড়ে ৩টার দিকে ঢাকা দক্ষিণ সিটি করপোরেশন নির্বাচনের রিটার্নিং অফিসার এবং যুগ্মসচিব বরাবর এক চিঠিতে এই আহ্বান জানায় বিএনপি। অপরদিকে তাবিথও অনুরূপ অভিযোগ এনেছেন বিভিন্ন কেন্দ্র পরিদর্শন শেষে।

তবে সরকারি দল আওয়ামী লীগ দাবি করছে, বিএনপি মূলত বিজয়ী হওয়ার জন্য এই নির্বাচনে অংশ নেয়নি। তারা অভিযোগ করার জন্যই ভোটে অংশ নিয়েছিল। তারা বায়বীয় অভিযোগ দিয়ে ভোটকে বিতর্কিত করতে চাচ্ছে।

(ঢাকাটাইমস/০২ফেব্রুয়ারি/ইএস/মোআ)

সংবাদটি শেয়ার করুন

রাজনীতি বিভাগের সর্বাধিক পঠিত

বিশেষ প্রতিবেদন বিজ্ঞান ও তথ্যপ্রযুক্তি বিনোদন খেলাধুলা
  • সর্বশেষ
  • সর্বাধিক পঠিত

শিরোনাম :