ভারতীয় সেনার গুলিতে দাদার মৃত্যু, বুকে বসে কাদঁছে নাতি

আন্তর্জাতিক ডেস্ক, ঢাকা টাইমস
| আপডেট : ০২ জুলাই ২০২০, ০৯:১৮ | প্রকাশিত : ০২ জুলাই ২০২০, ০৯:১০

ভারতীয় সেনাদের গুলিতে মৃত্যু হওয়া দাদার মৃতদেহ রাস্তায় পড়ে রয়েছে, তার বুকের ওপর বসে কাঁদছে তিন বছরের নাতি। এই হৃদয়বিদারক ঘটনাটি ঘটেছে ভারত নিয়ন্ত্রিত কাশ্মীরে। ছবিটি সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে ভাইরাল হয়েছে।

পুলিশের পক্ষ থেকে জানানো হয়েছে, বশির আহমেদ খান নামের ওই ব্যক্তি বন্দুকযুদ্ধের মাঝে পড়ে বিদ্রোহীদের গুলিতে প্রাণ হারিয়েছেন। আর মৃতের পরিবারের দাবি, তাকে গাড়ি থেকে নামিয়ে হত্যা করেছে নিরাপত্তাবাহিনীর সদস্যরা। এই ঘটনায় আবারও বিক্ষোভে উত্তাল হয়ে উঠেছে কাশ্মীর। খবর আল জাজিরার।

কাশ্মীর পুলিশের মহাপরিদর্শক বিজয় কুমার সাংবাদিকদের জানিয়েছেন, সোপোর এলাকার একটি মসজিদ থেকে বিদ্রোহীরা নিরাপত্তাবাহিনীর সদস্যদের ওপর গুলি চালালে দুই পক্ষের মধ্যে বন্দুকযুদ্ধ শুরু হয়। এতে এক নিরাপত্তা কর্মকর্তা নিহত ও তিন সদস্য আহত হন। বন্দুকযুদ্ধের সময় বশির আহমেদ তার নাতিকে সঙ্গে নিয়ে গাড়ি চালিয়ে যাচ্ছিলেন। সেসময় বিদ্রোহীদের ছোড়া গুলিতে তিনি প্রাণ হারান।

তবে পুলিশের এ দাবি উড়িয়ে দিয়েছে মৃতের পরিবার। বশিরের ছেলে সুহেইল আহমেদ বলেন, আমরা একটা ফোনকল পাই যে, বাবার দুর্ঘটনা ঘটেছে। আমরা সোপোরে গেলে বলা হয়, তিনি ক্রসফায়ারে মারা গেছেন। তিনি প্রশ্ন তুলে বলেন, এটা যদি ক্রসফায়ারই হয় তাহলে মরদেহ গাড়ির ভেতর থাকার কথা। কিন্তু সেটি রাস্তার ওপর এলো কী করে?

স্বজনদের দাবি, নিরাপত্তা সদস্যরাই বশির আহমেদকে গাড়ি থেকে টেনে নামিয়ে হত্যা করেছে। এমনকি, ছবি তোলার জন্য তার বুকের ওপর ছোট্ট শিশুটিকে বসতেও বাধ্য করা হয়েছে।

পরে শ্রীনগরে বশির আহমেদের জানাজায় সমবেত হন শত শত মানুষ। এসময় তারা কাশ্মীরের স্বাধীনতার দাবিতে স্লোগান দেন।

৩৭০ ধারা বিলোপের পর থেকেই কার্যত অবরুদ্ধ কাশ্মীর। সেখানে মানুষের স্বাভাবিক জীবন বিপন্ন। আগে থেকেই অবরুদ্ধ থাকা কাশ্মীরে করোনাভাইরাস লকডাউনের সময় সামরিক অভিযান জোরদার করছে ভারত। সেখানে প্রতিনিয়ত অভিযান চালায় দেশটির নিরাপত্তা বাহিনী।

ঢাকা টাইমস/০২জুলাই/একে

সংবাদটি শেয়ার করুন

আন্তর্জাতিক বিভাগের সর্বাধিক পঠিত

বিশেষ প্রতিবেদন বিজ্ঞান ও তথ্যপ্রযুক্তি বিনোদন খেলাধুলা
  • সর্বশেষ
  • সর্বাধিক পঠিত

শিরোনাম :