ডেটলাইন : গাজীপুর

ভারপ্রাপ্ত মেয়র হিসেবে আগে ইতিবাচক কাজের অনেক নজির গড়েছেন কিরণ

হাবিবুল্লাহ ফাহাদ, ঢাকাটাইমস
| আপডেট : ২৫ নভেম্বর ২০২১, ২০:১৭ | প্রকাশিত : ২৫ নভেম্বর ২০২১, ১৯:০৪

গাজীপুর তখনো সিটি করপোরেশন হয়নি। টঙ্গী পৌরসভা থাকতেই কমিশনার পদে একাধিকবার নির্বাচিত হন আসাদুর রহমান কিরণ। জনগণ অন্তপ্রাণ এই জনপ্রতিনিধি নিজ ওয়ার্ডের অবকাঠামোগত উন্নয়নের রূপকার হয়ে ওঠেন। কাজ ও ব্যবহার দিয়ে জয় করেন মানুষের মন। জনপ্রিয়তায় শীর্ষে উঠে আসতে তাই খুব বেশি বেগ পেতে হয়নি তাকে।

২০১৩ সালের ৬ জুলাই নবগঠিত গাজীপুর সিটি করপোরেশনের প্রথম নির্বাচনেও কাউন্সিলর নির্বাচিত হন আসাদুর রহমান কিরণ। তার তিন মাস পর কাউন্সিলরদের সরাসরি ভোটে প্যানেল মেয়র নির্বাচিত হন ৪৩ নম্বর ওয়ার্ডের এই কাউন্সিলর। পরে তৎকালীন মেয়র বিএনপি নেতা এম এ মান্নানকে সুনির্দিষ্ট অভিযোগে বরখাস্ত করা হলে ভারপ্রাপ্ত মেয়র হিসেবে দায়িত্ব পান আসাদুর রহমান কিরণ।

২০১৫ সালের ৮ মার্চ নবগঠিত গাজীপুর সিটি করপোরেশনের গুরু দায়িত্ব আসে তার কাঁধে। তখন সবার সহযোগিতায় গাজীপুরকে আদর্শ সিটি গড়ার উন্নয়নের রূপরেখাও তৈরি করেন কিরণ। ইতিবাচক কাজের অনেক নজির গড়েছেন তিনি।

গাজীপুর সিটি করপোরেশনের সংশ্লিষ্ট সূত্রে জানা যায়, ভারপ্রাপ্ত মেয়রের দায়িত্ব নেওয়ার পর আসাদুর রহমান কিরণ গাজীপুর সিটির সমস্যাগুলো চিহ্নিত করে সে অনুযায়ী সমাধানের রূপরেখা তৈরি করেন। বিশেষ করে রাস্তাঘাটসহ অকাঠামোগত উন্নয়ন, দুর্যোগ, ড্রেনেজ ও বর্জ্য ব্যবস্থাপনার সুষ্ঠু সমাধান গড়তে পরিকল্পনা করেন। পৌরসভা থাকতে শিল্পনগরী গাজীপুরে ড্রেনেজ, বর্জ্য এবং রাস্তাঘাটের যে বেহাল দশা ছিল তা কাটিয়ে উঠতে উদ্যোগ নেন। পাশাপাশি দীর্ঘমেয়াদি উন্নয়নের প্রতি বিশেষ নজর দেন।

গাজীপুর সিটি করপোরেশনের মধ্যে টঙ্গী শিল্প নগরী হিসেবে ব্যাপক পরিচিত। এই এলাকায় ভারি ও মাঝারি কল কারখানার সংখ্যাই বেশি। অথচ সে তুলনায় রাস্তাঘাট খুবই অপ্রশস্ত ছিল। ড্রেনেজ ব্যবস্থা এতটাই বেহাল ছিল যে অল্প বৃষ্টিতেও হাঁটু পানি জমতো মূল সড়কে। সেই অবস্থা থেকে উত্তরণে প্রথমেই টঙ্গীর রাস্তাঘাট ও অবকাঠামোগত উন্নয়নে জোর দেন ভারপ্রাপ্ত মেয়র আসাদুর রহমান কিরণ।

শুধু টঙ্গীই নয় গাজীপুরের কোণাবাড়ি কল কারখানা বহুল এলাকার সড়ক প্রশস্ত করা এবং ড্রেনেজ ব্যবস্থা গড়ে তুলতেও উদ্যোগ নেন তিনি। পাশাপাশি গাজীপুরবাসীর মূল দুর্ভোগ বর্জ্য ব্যবস্থাপনার আধুনিকায়নেও গুরুত্ব দেন কিরণ। তার উদ্যোগে ময়লা ফেলার জন্য বড় পরিসরে জায়গা নির্ধারণ করা হয়। যার সুফল আজও ভোগ করছে গাজীপুরের জনগণ।

ভারপ্রাপ্ত মেয়র হিসেবে ইতিবাচক কাজের নজিরই শুধু নয় দলীয় রাজনীতিতেও ব্যাপকভাবে সক্রিয় ছিলেন কিরণ। গাজীপুরে আওয়ামী লীগের রাজনীতিকে আরও শক্তিশালী করার জন্য মাঠ পর্যায়ের নেতাকর্মীদের সঙ্গেও নিয়মিত যোগাযোগ সম্পর্ক রেখেছেন তিনি। গাজীপুরবাসীকে উন্নত নাগরিক সুবিধা দেওয়ার জন্য আওয়ামী লীগ সরকারের উদ্যোগগুলোকে যথাযথ বাস্তবায়নেও ভূমিকা রাখেন জনপ্রিয় এই জনপ্রতিনিধি। সরকার যে ভাবনাকে সামনে রেখে গাজীপুরকে সিটি করপোরেশন ঘোষণা করে সেই লক্ষ্য বাস্তবায়নে সদা সচেষ্ট ছিলেন তিনি। এবারও তার ব্যতিক্রম হবে না বলে মনে করেন কিরণ ও তার ঘনিষ্টরা।

জায়গা দখল, ঠিকাদারিতে অনিয়ম, বিশ্ব ইজতেমা আয়োজনকে কেন্দ্র করে ভুয়া বিল ভাউচার তৈরি, হাটবাজার থেকে ইজারা তুলে তা যথাযথভাবে রাজস্বখাতে জমা না দেওয়াসহ বিভিন্ন অভিযোগে মেয়র পদ থেকে বৃহস্পতিবার সাময়িক বরখাস্ত করা হয় জাহাঙ্গীর আলমকে। এর আগে স্থানীয় সরকার বিভাগ গাজীপুর সিটি করপোরেশনে তিন সদস্যের মেয়র প্যানেল গঠন করে। যার তালিকার শুরুতেই আছেন আসাদুর রহমান কিরণ। এবারও মেয়রের অবর্তমানে ভারপ্রাপ্ত মেয়র হিসেবে দায়িত্ব পেয়েছেন কিরণ।

যোগাযোগ করা হলে আসাদুর রহমান কিরণ ঢাকা টাইমসকে বলেন, ‘জনগণের কল্যাণে কাজ করার ব্রত নিয়ে পথ চলছি। আমার নির্বাচনী এলাকার জনগণ আমার ওপর বরাবরই আস্থা রেখেছে। অতীতেও আমি ভারপ্রাপ্ত মেয়র হিসেবে গাজীপুর সিটি করপোরেশনে দায়িত্ব পালন করেছি। চেষ্টা করেছি প্রাণপ্রিয় গাজীপুর সিটির আধুনিকায়নে কাজ করতে।’

কিরণ বলেন, ‘এই এলাকার বাসিন্দা হওয়ায় আমি জানি মানুষের দুঃখ, দুর্ভোগ আসলে কোথায়। সেই দুর্ভোগ দূর করে উন্নত নাগরিক সুবিধা নিশ্চিতে অতীতে কাজ করেছি। আবারও ভারপ্রাপ্ত মেয়রের দায়িত্ব পেলাম। অতীতের মতো এবারও জনগণের কল্যাণের লক্ষ্য সামনে রেখেই কাজ করব।’

বর্তমান সরকারের উন্নয়ন অগ্রগতির চিত্র তুলে ধরে তিনি বলেন, ‘বঙ্গবন্ধুর সোনার বাংলা গড়তে মাননীয় প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা নিরলস কাজ করে যাচ্ছেন। আমরা তার সহযাত্রী হিসেবে আমৃত্যু কাজ করে যেতে চাই। আমার চাওয়া পাওয়ার কিছু নেই। গাজীপুরবাসীর ভালোবাসাই আমার পাথেয়।’

জাতির পিতা বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমান ও মুক্তিযুদ্ধে শহীদদের সংখ্যা নিয়ে কটূক্তি করায় গত ১৯ নভেম্বর গাজীপুর মহানগর আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক পদ থেকে আজীবনের জন্য সিটি মেয়র জাহাঙ্গীর আলমকে বহিষ্কার করে আওয়ামী লীগ। একইসঙ্গে দলে তার প্রাথমিক সদস্যপদও বাতিল করা হয়।

বৃহস্পতিবার গাজীপুর মহানগর আওয়ামী লীগের ভারপ্রাপ্ত সাধারণ সম্পাদকের দায়িত্ব আতাউল্লাহ মণ্ডলকে দিয়েছে আওয়ামী লীগ। বৃহস্পতিবার আওয়ামী লীগের দপ্তর সম্পাদক বিপ্লব বড়ুয়া স্বাক্ষরিত এক সংবাদ বিজ্ঞপ্তিতে এই তথ্য জানানো হয়।

আওয়ামী লীগ থেকে বহিষ্কারের পর পরই জাহাঙ্গীর আলমের বিরুদ্ধে মুখ খুলতে শুরু করে গাজীপুরে তার ও তার অনুসারীদের কারণে ভুক্তভোগীরা।

(ঢাকাটাইমস/ ২৫ নভেম্বর/এইচএফ)

সংবাদটি শেয়ার করুন

জাতীয় বিভাগের সর্বাধিক পঠিত

বিশেষ প্রতিবেদন বিজ্ঞান ও তথ্যপ্রযুক্তি বিনোদন খেলাধুলা
  • সর্বশেষ
  • সর্বাধিক পঠিত

শিরোনাম :